আটাশ সেপ্টেম্বর ২০১৯

প্রকাশিত: ৩:৩৭ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১, ২০১৯

আটাশ সেপ্টেম্বর ২০১৯

ঝিনুক জোবাইদা

একটা অন্যরকম বিকেলের প্রতীক্ষায় ছিলাম। প্রতীক্ষা বড্ড তীব্র ছিলো, নিজের ভিতরে আনন্দও ছিল।

পরিচিত কবিতাক্যাফে একটু বেশী সতেজ,সবুজ আর আলোকিত মনে হলো। পারভীন রব্বানী
আপু ও সানাউল হক ভাই আগেই উপস্থিত। সময়জ্ঞান প্রচন্ড তাঁদের। তাঁদের হাতে টেবলয়েড “ষড়জ ” বর্ষা সংখ্যা। ষড়জ এর প্রথম প্রকাশ। ঝকঝকে, নুতন কাগজের খুশবু নিলাম, প্রাণ ভরে। মনে হচ্ছিল আমরা এতোক্ষণ লেবার ওয়ার্ডের বাইরে ছিলাম, একটা শিশু জন্ম নিলো, তারপর আমাদের কোলে এলো। স্বল্পভাষী সানাউল হক ভাইয়ের চোখে মুখে আনন্দের আভা। রব্বানী আপু তার স্বভাতগত মিষ্টিহাসিতে উজ্জ্বল। আমিও গদগদ। চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সিইউ ফ্রেন্ডস গ্রুপের প্রথম টেবলয়েড, পৃষ্ঠপোষকতায় সানাউল হক। সম্পাদনায়-
দিলওয়ার চৌধুরী, পারভীন রব্বানী,শামসুন নাহার ও ঝিনুক জোবাইদা ।

ঋতু বর্ষাকে উপজীব্য করে দারুণ উপস্থাপন চবিয়ান কবিদের প্রথম টেবলয়েড ষড়জ। সিইউ ফ্রেন্ডস গ্রুপে পোস্ট করা কবিতা সংগ্রহ, বাছাই, কাব্যট্রেন, সব মিলে দূরূহ একটা কাজকে সম্মিলিত প্রচেষ্টায় , প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ সহায়তায় আলোর মুখ দেখেছে, দুই পাতার ষড়জ, ঋতুভিত্তিক টেবলয়েড।

সংগ্রহ, বাছাই পর্বটি খুব সহজ ছিলনা। কারণ প্রত্যেকেই ভালো লিখেছেন। তারপরও কিছু লিখা বাদ পড়েছে, কিছু নিয়মের কারণে, ১৪ লাইনের বেশী, বিষয় বহির্ভূত,স্থান সংকুলান না হওয়া ইত্যাদি র জন্য। তবে হতাশ হওয়ার কিছু নেই, ষড়জ, শরত সংখ্যা শীঘ্রই প্রিন্ট হতে যাচ্ছে। তবে আশার কথা, রবিবারের সাহিত্যাসর তুমুল জনপ্রিয়তার কারণে, চবিয়ান কবিদের উত্তরোত্তর দক্ষতা বৃদ্ধি হচ্ছে।

ঝুম বৃষ্টি, তারপরও সবার আগে পৌঁছে গেলেন কবি মিনার মনসুর। কতটুকু সহজসরল হলে একজন প্রোথিতযশা কবি সময় মেপে চলে আসেন, বিস্মিত হওয়ার মতো। এলেন, কবি, নাট্যকার, অভিনেতা কাজী রফিক। তারপর সবাই এলেন, টইটুম্বুর হলো কবিতা ক্যাফে। এলেন ৭০ বছরের তরুন, কবি মুহম্মদ নুরুল হুদা।

সদ্য অস্ট্রেলিয়া ফেরত শামীমুন নাহার আপা ব্যাগ ভরে নিয়ে এসেছেন, কিটক্যাট। সভা আলো করে দিলেন মোহাম্মদ সারোয়ার হোসেন আজিজ ভাই। প্রচন্ড জ্যাম ঠেলে চট্রগ্রাম থেকে ঘুরে এলেন বদিউল আলম ভাই, অগ্রজ চবিয়ান।
সানাউল হক ভাইয়ের স্বতঃস্ফূর্ত উপস্থাপনায় পারভিন আপুর সভাপতিত্বে সাহিত্যাসরটি তখন প্রাঞ্জল। ছবিয়াল জেসমিন সুলতানা বিভিন্ন কায়দায় ফটো নিচ্ছে। মিনার মনসুর সরল মুখখানা নিয়ে মঞ্চে উপবিষ্ট, সাথে কাজী রফিক।

কথা হলো ষড়জ বর্ষা নিয়ে, শরত নিয়ে। কথা হলো২১’এর বই মেলা উপলক্ষে প্রকাশিতব্য খন্ডে খন্ডে অখন্ড ২০২০ নিয়ে।

কাজী রফিক চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ তম ব্যাচের বাংলার ছাত্র। তরুণ জীবনের সাহিত্য চর্চা,সাহিত্যচর্চায় টিকে থাকার গল্প শোনালেন। পেয়েছিলাম বাংলার ছাত্র আয়ুব চৌধুরীকে। দিলওয়ার চৌধুরী ও মিনার মনসুর সম্মিলিত সাহিত্য পত্রিকা এপিটাফ বিষয়ে জানলাম, দিলওয়ার চৌধুরীর বক্তব্যে।দিলওয়ার চৌধুরী কবিতা প্রেমিক, ছন্দজ্ঞান অসধারণ।
কবি মিনার মনসুর, কবিতার নির্যাসটুকু তুলে আনলেন তাঁর বক্তব্যে। তিনি আপাদমস্তক কবি এবং প্রেমিক। তার বক্তব্যে উঠে এসেছে কবিতায় টিকে থাকার সংগ্রাম, তাঁর কাছে কবিতা মানে লাইলীমজনু, কবিতা মানেই বনলতা সেন। কবিতায় ডুবে যেতে হবে, কবিতায় মিশে যেতে হবে। তাহলেই জন্ম হবে অন্তর গত কবিতা।

এলেন যাঁর প্রতীক্ষায় শরত বিকেলে বৃ্ষ্টি নেমেছিল, বিকেলটা একটু অন্যরকম ছিল, যাঁর জন্মদিন, যাঁর ৭০ বছর পূর্তি, জাতিসত্ত্বার কবি, যতদূর বাংলাভাষা ততদূর বাংলাদেশের কবি, মুহম্মদ নুরুল হুদা । কটি,পাঞ্জাবী আর জিনস পরা তারুন্য ভরপুর কবি, চোখে মুখে সৃষ্টির উজ্জ্বলতা, কথায় উদ্দীপ্ত,এবং স্পষ্টভাষী এবং ব্যাক্তিত্বশালী। কেককাটা, ষড়জ উদ্বোধন একইসাথে হলো। করতালি কেক খাওয়া এবং টেবলেয়ড হাতে পাওয়া, ত্রিমুখী আনন্দ ছড়িয়ে পড়লো কবিতা ক্যাফেতে।

এরকম বিকেল বোধহয় সবসময় আসেনা। প্রতীক্ষা করতে হয়। এরকম একটা প্রতীক্ষিত বিকেল আমরা পেয়েছিলাম, আটাশ সেপ্টেম্বর ২০১৯।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

লাইভ রেডিও

Calendar

May 2024
S M T W T F S
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
262728293031