আধুনিক দুনিয়ায় এমনটা কাম্য নয়

প্রকাশিত: ২:৫৫ অপরাহ্ণ, মে ১৭, ২০২১

আধুনিক দুনিয়ায় এমনটা কাম্য নয়

রিপন দে

একটি ছোট ঘটনাকে কেন্দ্র করে ইসরায়েল যে তান্ডব চালাচ্ছে তা পরিকল্পনা করেই করছে। সহিংসতার মাত্রা এত বেশি যে, ইসরায়েলি ও ফিলিস্তিনিদের মধ্যে এ যাবতকালের সবচেয়ে ভয়াবহ সংঘর্ষ চলছে। তবে শক্তির বিচারে দুর্বল ফিলিস্তিনের উপর সবল ইসরায়েলের অত্যাচার বলা যায়। আধুনিক দুনিয়ায় এমনটা কাম্য নয় ,যদিও সারা পৃথিবীতেই শক্তি যার সব তার।

প্রায় শত বছর ধরে ফিলিস্থিনিদের জায়গা জমি দখল করতে করতে তাদেরকে দিনে দিনে শুধু কোনটাসাই করা হচ্ছে। সেই ছোট বেলায় সাদাকালো টিভিতে দেখতাম ইসরায়েল ফিলিস্তিনের মারামারি কিন্তু এর পর বিশ্বের কত বড় বড় সমস্যার সমাধান হয়েগেলো অথচ এই সমস্যার সমাধান হলনা।

একটা ভুখন্ডের মানুষ রাতে ঘুমালে পরের দিন জীবিত থাকবে কিনা সেই শংকা নিয়ে ঘুমায়, খাওয়ার পানি নিতেও পারমিশন লাগে। নিজেদের জমিতে চাষাবাদ করতে হলেও পারমিশন নিতে হয়ে।

দিনের পর দিন এখানে যা হচ্ছে তা মানবতা বিরোধী অপরাধের চরম সীমা সেই কবেই ক্রস করেছে।

এই যে কয়দিন পরপর বিশ্বনেতারা বড় বড় সম্মেলন করেন আর পৃথিবী নিয়ে নতুন নতুন আশারবাণী শুনান সেটা কি শুধু লোক দেখানো আর নিজ নিজ স্বার্থ হাসিলের চিন্তা?

যেভাবে চলছে তাতে এই আগ্রাসন কবে থামবে তা কেউই বলতে পারবেনা।

দ্য নিউইয়র্ক টাইমসের প্রতিবেদন চলতি সংঘষের যে কারণ উল্লেখ করা হয়েছে তা জানলে একটা শিশুও বুঝবে এবারের সংঘর্ষ ইসরায়েল গায়ে পরে লাগার মত ঘটনা।

একদল ইসরায়েলি পুলিশ জেরুজালেমের আল-আকসা মসজিদ প্রাঙ্গণে ঢুকে প্রার্থনারত মুসল্লিদের সরিয়ে মিনারের লাউডস্পিকারের তার কেটে দেয়।
দিনটি ছিল প্রথম রমজান এবং ইসরায়েলের ‘মেমোরিয়াল ডে’ যা কিনা দেশের জন্য শহীদদের স্মরণে পালন করা হয়। সেদিন মসজিদের ঠিক নিচেই ইহুদি ধর্মাবলম্বীদের একটি পবিত্র স্থান ‘পশ্চিম দেয়াল’-এ দাঁড়িয়ে বক্তব্য রাখছিলেন ইসরায়েলি প্রেসিডেন্ট। ইসরায়েলি কর্তৃপক্ষের ধারণা ছিল মসজিদের প্রার্থনার শব্দের ফলে প্রেসিডেন্টের বক্তব্য শোনা যাবে না।

কিন্তু মসজিদে পুলিশি রেইডের সূত্র ধরেই ইসরায়েল এবং গাজা ভূখন্ডের শাসক হামাস গোষ্ঠীর মধ্যে চলমান এই যুদ্ধ।

কিন্তু সহিংসতার মাত্রা এত বেশি যে তা হয়তো কেউ কল্পনাই করেনি। ইসরায়েলি ও ফিলিস্তিনিদের মধ্যে এ যাবতকালের সবচেয়ে ভয়াবহ সংঘর্ষ মনে করা হচ্ছে একে। হামাস ও ইসরায়েলের সংঘর্ষে গাজায় অন্তত ১৪৫ জন এবং ইসরায়েলে ১২ জন নিহত হয়েছেন।

যুদ্ধমুক্ত সুন্দর একটি পৃথিবী হউক । স্বাধিন ফিলিস্তিন তার মত করে থাকুক।

 

সাংবাদিক ও কলামিস্ট

ছড়িয়ে দিন