আরিয়ানের জামিন আজও হয়নি, জেলে থাকার নির্দেশ

প্রকাশিত: ৯:০৪ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৮, ২০২১

আরিয়ানের জামিন আজও হয়নি, জেলে থাকার নির্দেশ

শাহরুখ পুত্র আরিয়ান খানকে কোনোভাবেই ছাড় দিতে চাইছে না ভারতের আদালত। তৃতীয় দফায় জামিনের আবেদন করা হলেও তা গ্রাহ্য হয়নি। বরং ১৪ দিন জেলে থাকার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

 

বৃহস্পতিবার (৭ অক্টোবর) আরিয়ানকে ১৪ দিনের জেল হেফাজতে রাখার নির্দেশ দেন আদালত। এরপর তাৎক্ষনিক অন্তবর্তী জামিনের আবেদন করেন তার আইনজীবী সতীশ মানশিণ্ডে। সেই আবেদনের প্রেক্ষিতে শুক্রবার (৮ অক্টোবর) লম্বা সময় ধরে শুনানি হয়। দুই পক্ষের তর্ক-বিতর্কে আদালত কক্ষ সরগরম হয়ে ওঠে। কিন্তু রায় গেল নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরো বা এনসিবির পক্ষে।

 

কেবল আরিয়ান নন, তার সঙ্গে আরবাজ শেঠ মার্চেন্ট এবং মুনমুন ধমেচার জামিনের আবেদনও নাকচ করে দিয়েছেন আদালত। তাই এ দু’জনকেও এনসিবির কাছে বন্দী থাকতে হবে।

 

আরিয়ানকে জামিন দিলে তথ্য প্রমাণ নয়-ছয় হতে পারে এবং তদন্ত প্রক্রিয়ার ব্যঘাত ঘটতে পারে; শুক্রবার শুনানিতে এই যুক্তি দেখিয়েছেন এনসিবির আইনজীবী অনিল সিং। অন্য দিকে আরিয়ানের আইনজীবীর পাল্টা যুক্তি ছিল, প্রভাবশালী পরিবারের ছেলে মানেই তথ্য প্রমাণ নয়-ছয় করবেন, তা ধরে নেওয়া ভুল।

 

তদন্তের অংশ হিসেবে আরিয়ানের হোয়াটসঅ্যাপের মেসেজও যাচাই করেছেন এনসিবি কর্তারা। কিন্তু সেখানে মাদক নয়, বরং ফুটবল সংক্রান্ত চ্যাটিং ছিল বলে দাবি শাহরুখের নিযুক্ত আইনজীবীর। যদিও এনসিবি পক্ষে আইনজীবীর মতে, ফুটবল নয়, সাংকেতিকভাবে মাদক চক্রের সঙ্গে যোগাযোগ করতেন আরিয়ান। এসব বিষয় খতিয়ে দেখার জন্যই হেফাজতে রাখার আবেদন করেন তিনি।

 

জানা গেছে, আগামী এক সপ্তাহ আর্থার রোড জেলের কোয়ারেন্টিন সেলে থাকবেন আরিয়ান খান ও তার দুই সঙ্গী। ইতোমধ্যে শারীরিক পরীক্ষা শেষে তাদের সেখানে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

 

উল্লেখ্য, গত ২ অক্টোবর রাতে মুম্বাই উপকূলে একটি প্রমোদতরী থেকে আরিয়ান খানসহ ৮ জনকে আটক করে এনসিবি। মাদক পার্টি করার অভিযোগে তাদের তুলে আনা হয়। এরপর জিজ্ঞাসাবাদ শেষে গ্রেফতার করা হয়।

ছড়িয়ে দিন