ইনানী সৈকত

প্রকাশিত: ৯:২৮ পূর্বাহ্ণ, জুন ১৩, ২০১৮

ইনানী সৈকত

 

সৌমিত্র দেব

ইনানী সমুদ্র সৈকত কক্সবাজার হতে ৩২ কিলোমিটার দক্ষিণে অবস্থিত। সময় লাগে মাত্র আধঘন্টা। কক্সবাজার থেকে গিয়ে গোসল সেরে ফিরে আসা যায়। এক অর্থে উখিয়া উপজেলাধীন ইনানীর সমুদ্র সৈকতের স্থানটি কক্সবাজারের চেয়েও সুন্দর আর রমণীয়। এখানে সৈকতের অনেকটা কোল ঘেষেই দাড়িয়ে আছে সবুজ বৃক্ষরাজি শোভিত পাহাড় গুচ্ছ। নিকটের সুউচ্চ সুরুং পাহাড় , ঝরণাধারা , পাখির কলকাকলি আর সাগরের ফেনিল জলরাশির সৌন্দর্য অপরূপ এই সমুদ্র সৈকত । তাছাড়া কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে কোন প্রবাল পাথর না থাকলেও ইনানীতে এধরণের অনেক পাথর আছে। এখানে ১৯৯২ সালে নির্মিত বনবিভাগের ৩ কক্ষ বিশিষ্ট একটি রেস্ট হাউজ আছে। হিমছড়ির সামনে শুয়ে আছে ইনানী । জেলেদের কার্যকলাপ দেখেই কেটে যেতে পারে পর্যটকদের দিন। তিনি নিজেই নেমে যেতে পারেন একাকী নৌভ্রমণে । রোমাঞ্চকর অনুভূতি কাজ করবে মনে। পশ্চিমে সমুদ্র পূবে পাহাড় সব মিলিয়ে স্বপ্নের মত মনে হবে প্রকৃতিকে। সবচেয়ে অসাধারণ দৃশ্য সেখানে সূর্যাস্ত । মনোরম নিসর্গে দাড়িয়ে এরকম সূর্যাস্ত উপভোগের আনন্দই আলাদা। ভ্রমণপিয়াসীরা চাইলে কক্সবাজার থেকে সেখানে দিনে গিয়ে দিনেই ফিরে আসতে পারেন। রাস্তা ভালো। জিপে করে যাওয়া আসা করা যায়। আর যদি থাকতে চান জোৎস্না রাতে উপভোগ করতে চান সৈকতের সৌন্দর্য তাহলেও সমস্যা নেই। ইনানী সৈকতের পাশেই আছে বনবিভাগের চমৎকার বাংলো। এছাড়াও আছে বেসরকারিভাবে নির্মিত বেশ কয়েকটি চমৎকার রিসোর্ট। বাংলাদেশের অন্যতম মনোরম এ পর্যটন কেন্দ্রের প্রতি পর্যটকদের আকর্ষণ দিন দিন বেড়েই চলছে।