একজন সমাজসেবক ভবতোষ মূখার্জী সুবীর

প্রকাশিত: ১১:০৯ পূর্বাহ্ণ, মে ১০, ২০২০

একজন সমাজসেবক ভবতোষ মূখার্জী সুবীর

রিপন শান

পৃথিবী জুড়ে করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে জনজীবন আজ বিপর্যস্ত যা বৈশ্বিক দুর্যোগে রূপ নিয়েছে। আমাদের দেশেও ইতিমধ্যেই এর প্রভাব ব্যাপক আকার ধারণ করেছে। সারাদেশ জুড়ে প্রতিদিনই আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে, মৃত্যুর মিছিলে প্রতিদিনই যুক্ত হচ্ছে নতুন নতুন নাম। হা হা কারে ভারী হয়ে উঠছে দেশের বাতাস। সবাই এক চরম উৎকন্ঠার মধ্যদিয়ে দিন কাটাচ্ছেন।
সরকারী ঘোষনায় দেশজুড়ে চলছে লকডাউন। দেশের মানুষ এখন ঘরবন্দি। কর্মহীন হয়ে পড়েছে দেশের বেশীরভাগ মানুষ। এদিকে খেটে খাওয়া নিম্নবিত্ত বা নিম্ন আয়ের মানুষগুলো কর্মহীন হয়ে পড়ায় সারা দেশে দেখা দিয়েছে খাদ্যাভাব। অনেক কষ্টে খেয়ে না খেয়ে দিন কাটাচ্ছে বেশীরভাগ মানুষ। এক সংকটময় পরিস্থিতির মধ্যদিয়ে দিনাতিপাত করছে এদেশের কর্মহীন নিম্ন আয়ের খেটে খাওয়া মানুষগুলো।
এই সংকটময় পরিস্থিতিতে মানবিক সাহায্য নিয়ে নিজ এলাকার অভাবি মানু্ষের পাশে দাঁড়িয়েছেন মাগুরা জেলার শালিখা থানার ধনেশ্বরগাতী ইউনিয়নের সিংড়া গ্রামের ভবতোষ মূখার্জী সুবীর। ঢাকার একটি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে সহ-মহাব্যবস্থাপক পদে চাকুরীরত থেকে তার সাধ্যমত সম্পূর্ণ নিজউদ্যোগে দেশের এই সংকটময় পরিস্থিতিতে কর্মহীন অভাবিত মানুষের মাঝে মানবিক সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়ে তিনি দেশের আর দশজন সমাজ সেবকের মতই দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন যা বর্তমান সমাজে খুবই বিরল। তাছাড়া বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সাথে মিলেমিশেও দেশের বিভিন্ন জায়গায় ত্রান সহযোগিতা করে চলেছেন তিনি।
তার এই মানবিক সাহায্যপ্রদান আরও একবার এটাই প্রমান করলো যে মানুষের সেবা করার জন্য কোন মন্ত্রী, এমপি, নেতা, জনপ্রতিনিধি বা সরকারী দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হতে হবে তা নয়। মানুষের একটা ইচ্ছা শক্তিই তাকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারে অনেক দুর। ভবতোষ মূখার্জী সুবীর বলেন মানুষকে ভালবাসতে হলে কোন পরিচয়ের দরকার হয়না বরং মানুষের ভালবাসাই একদিন নিজেকে পরিচয় করিয়ে দেয় সকলের সাথে।
ভবতোষ মূখার্জী সুবীর এর এই মহানুভবতা ও মানবিকতার কথা তার নিজ এলাকার লোকজন আজীবন স্মরণ রাখবে এটাই প্রত্যাশা। ভবতোষ মূখার্জীর সাথে আমাদের প্রতিনিধি কথা বলে এটাও জানতে পারেন যে তার এই মহতি উদ্যোগে তার পরিবারের সদস্যরা সতস্ফুর্তভাবে তাকে সহযোগিতা করেন। ঈশ্বর সহায় থাকলে দেশের মানুষের যে কোন বিপদে সাধ্যানুযায়ী তার সহযোগিতা অব্যহত থাকবে বলেও তিনি আশা প্রকাশ করেন।
করোনা বিপর্যয়ের এই মানবিক সাহায্য তার নিজ এলাকা শালিখা থানার ধনেশ্বরগাতী ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের ৪টি গ্রামের (সিংড়া, তিলখড়ি, থৈপাড়া ও ধাউখালী) সহ মাগুরা ও যশোর জেলার বিভিন্ন অঞ্চলের খেটে খাওয়া দুস্থ ও গরীব জনসাধারনের মধ্যে বিতরণ করা হয়। এদের মধ্যে ছিল; স্বামী পরিত্যাক্তা, শ্রমজীবি, ভ্যান চালক, ভাসমান দোকানদার, ভূমিহীন গুচ্ছগ্রামবাসি, ঋষি সম্প্রদায়, জেলে, পুরোহিত, সংস্কৃতি কর্মী ও অন্যান্য অসহায় মানুষদের মধ্যে। এছাড়াও তিনি ঢাকা সহ দেশের অন্যান্য এলাকায়ও সংস্কৃতিকর্মী সহ অন্যান্য পরিচিত অসহায় লোকজনদের মধ্যেও এই ত্রান সাহায্য বিতরণ করেন।
গত ১২ এপ্রিল ২০২০ হইতে পর্যায়ক্রমে এই সাহায্য প্রদান অব্যাহত রয়েছে। সাহায্যের মধ্যে রয়েছে; নগদ অর্থ ও খাদ্য সামগ্রির প্যাকেটঃ ৫কেজি চাউল, ১কেজি ডাউল, ২কেজি আলু, ১লিটার তেল, ১কেজি লবন ও ২টি সাবান। ভবতোষ মূখার্জী সুবীর চাকুরীর সুবাদে ঢাকায় বসবাস করায় ও লক ডাউনের কারণে না আসতে পারায় তার পরিবারের লোক ও এলাকার সেচ্ছাসেবকদের মাধ্যমে সকলকে সাহায্য পৌঁছে দেওয়া হয়েছে বলে জানান।
তিনি আরো জানান পবিত্র ঈদ্-উল-ফিতরকে সামনে রেখে এই মহামারি মোকাবেলায় অসহায় মানুষের পাশে থেকে সাহায্য প্রদান অব্যাহত থাকবে। একইসাথে তিনি ধর্ম-বর্ণ, জাতি ও রাজনীতি ভুলে মানবতার জয় হোক এই শ্লোগানকে সামনে রেখে সমাজের স্বাবলম্বী ও বিত্তবানদেরকে আহ্বান জানিয়েছেন এই মানবিক কার্যক্রমে সহযোগিতার মাধ্যমে জনসাধারণের পাশে থাকার জন্য।

ছড়িয়ে দিন