এবার মুনিয়ার বোনের বিরুদ্ধে মাঠে নেমেছে বসুন্ধরা গ্রুপ

প্রকাশিত: ৮:২৬ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৭, ২০২১

এবার মুনিয়ার বোনের বিরুদ্ধে মাঠে নেমেছে বসুন্ধরা গ্রুপ

 

এবার কলেজছাত্রী মোসারাত জাহান মুনিয়ার বোনের বিরুদ্ধে মাঠে নেমেছে বসুন্ধরা গ্রুপ । মুনিয়াকে ধর্ষণের পর হত্যার অভিযোগে করা মামলাটিকে ‘ভিত্তিহীন ও ষড়যন্ত্রমূলক’ বলে আখ্যা দিয়েছে এই ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান । তারা বলেছে, যথাযথ আইনগত প্রক্রিয়ায় এ ষড়যন্ত্রমূলক মামলা মোকাবিলা করা হবে।

সোমবার (৬ সেপ্টেম্বর) রাতে বসুন্ধরা গ্রুপের প্রেস অ্যান্ড মিডিয়া উপদেষ্টা মোহাম্মদ আবু তৈয়ব স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা বলা হয়।

এর আগে ​ঢাকার ৮ নম্বর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মাফরোজা পারভীনের আদালতে ওই মামলা করেন মুনিয়ার বোন নুসরাত জাহান তানিয়া। মামলায় বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সায়েম সোবহান আনভীরসহ আটজনকে আসামি করা হয়েছে।

মামলার অন্য আসামিরা হলেন সায়েম সোবহানের বাবা ও বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান, মা আফরোজা, স্ত্রী সাবরিনা, শারমিন, সাইফা রহমান মিম, কথিত মডেল ফারিয়া মাহবুব পিয়াসা ও ইব্রাহিম আহমেদ রিপন।

বসুন্ধরা গ্রুপের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মামলাটি ষড়যন্ত্রমূলকভাবে সাজানো হয়েছে। বসুন্ধরা গ্রুপকে হেয় প্রতিপন্ন করতে উদ্দেশ্যমূলকভাবে বাদী অবাস্তব, ভিত্তিহীন ও কাল্পনিক তথ্য দিয়ে মামলাটি সাজিয়েছেন। যথাযথ আইনগত প্রক্রিয়ায় বসুন্ধরা গ্রুপ এই ভিত্তিহীন ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলা মোকাবিলা করবে।

‘একই বাদী এর আগে তার বোন মোসারাত জাহান মুনিয়ার অপমৃত্যুর ঘটনায় বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) সায়েম সোবহান আনভীরের নাম জড়িয়ে মিথ্যা মামলা দায়ের করেছিলেন। পুলিশের তদন্তে তার সে অভিযোগ যে অসত্য, তা বেরিয়ে এসেছে, যা তদন্তকারীগণ বিজ্ঞ আদালতে প্রতিবেদন দিয়ে জানিয়েছেন এবং আদালত বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালককে উক্ত মামলা থেকে অব্যাহতি দিয়েছেন।’

‘একই তানিয়া বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহানসহ তার পরিবারের সদস্যদের নাম জড়িয়ে উদ্দেশ্যমূলকভাবে মিথ্যা মামলা দায়ের করেছেন।’

‘মামলার অভিযোগ থেকে দেখা গেছে, কথিত ধর্ষণ ও হত্যার অভিযোগে বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহানের স্ত্রী আফরোজা বেগম এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীরের স্ত্রী সাবরিনা সোবহানকে আসামি করা হয়েছে। ধর্ষণ ও হত্যার মতো জঘন্যতম অপরাধের সঙ্গে দেশের স্বনামধন্য বৃহৎ শিল্পপরিবারের সদস্যদের নাম জড়িয়ে তাদের হেয় প্রতিপন্ন এবং মূলত ব্ল্যাকমেইল করাই এই মামলার প্রধান উদ্দেশ্য।’

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, এমন অভিযোগে পিতা, মাতা, সন্তান ও পুত্রবধূকে আসামি করার ঘটনায় স্পষ্টত বোঝা যায়, আনীত অভিযোগ কতটা বানোয়াট ও ভিত্তিহীন। এসব ঘটনার সঙ্গে বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান, ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং তাদের পরিবারের কারওই কোনো প্রকার সম্পৃক্ততা নেই। বসুন্ধরা গ্রুপকে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করে অসৎ উদ্দেশ্য বাস্তবায়নের জন্য দায়েরকৃত মিথ্যা মামলার বিরুদ্ধে আমরা তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

বসুন্ধরা গ্রুপ বরাবরই দেশের প্রচলিত আইন ও আদালতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল উল্লেখ করে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, অতীতে বসুন্ধরা গ্রুপের বিরুদ্ধে যখনই কোনো ষড়যন্ত্র হয়েছে, তখনই আইনগত প্রক্রিয়ায় বিজ্ঞ আদালতে বিচারপ্রার্থী হয়েছে বসুন্ধরা। জনৈকা তানিয়ার মামলাও আইনগতভাবে মোকাবিলা করবে বসুন্ধরা কর্তৃপক্ষ। আমরা আশা করছি, ন্যায়বিচারের মাধ্যমে এই ষড়যন্ত্র নস্যাৎ হবে ইনশাআল্লাহ্‌।’

গত ২৬ এপ্রিল রাতে গুলশানের একটি ফ্ল্যাট থেকে মুনিয়ার ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এ ঘটনায় তার বোন নুসরাত জাহান বাদী হয়ে গুলশান থানায় মামলা করেন। ওই মামলায় আসামি করা হয় বসুন্ধরা গ্রুপের এমডি সায়েম সোবহান আনভীরকে। মামলাটিতে তার বিরুদ্ধে আত্মহত্যায় প্ররোচনার অভিযোগ আনা হয়।

তবে সেই মামলাটির তদন্ত করে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা জানান, মুনিয়ার আত্মহত্যা প্ররোচনা মামলায় বসুন্ধরার এমডি সায়েম সোবহান আনভীরের সংশ্লিষ্টতা পাওয়া যায়নি। তাই মামলার তদন্তের চূড়ান্ত প্রতিবেদনে তাকে অব্যাহতি দেওয়ার আবেদন করা হয়। এই চূড়ান্ত প্রতিবেদন গত ১৯ জুলাই ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে দাখিল করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা গুলশান থানার অফিসার্স ইনচার্জ আবুল হাসান। গত ১৮ আগস্ট ঢাকা মহানগর হাকিম রাজেশ চৌধুরী পুলিশের দেওয়া চূড়ান্ত প্রতিবেদন গ্রহণ করে সেই মামলা থেকে অব্যাহতি দেন সায়েম সোবহানকে।

ছড়িয়ে দিন

Calendar

September 2021
S M T W T F S
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
2627282930