ঐক্যফ্রন্টের নেতারা আগামী ২ ফেব্রুয়ারি গণভবনে আমন্ত্রণ পেয়েছেন

প্রকাশিত: ৮:২৫ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৬, ২০১৯

ঐক্যফ্রন্টের নেতারা আগামী ২ ফেব্রুয়ারি গণভবনে আমন্ত্রণ পেয়েছেন

জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতারা আগামী ২ ফেব্রুয়ারি গণভবনে আমন্ত্রণ পেয়েছেন ।
এই আমন্ত্রণের চিঠি পাওয়ার কথা শনিবার নিশ্চিত করেছেন
গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসীন মন্টু।

গণভবন সূত্র জানিয়েছে, ভোটের আগে সংলাপে অংশ নেওয়া রাজনৈতিক দলগুলোর নেতা এবং আওয়ামী লীগের নির্বাচন সংশ্লিষ্ট নেতাদের নিয়ে ২ ফেব্রুয়ারি চা চক্রের আয়োজন করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ সংসদ নির্বাচনের ফল প্রত্যাখ্যানের পর ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষনেতা কামাল হোসেন পুনর্নির্বাচনের দাবি তুলে ফের রাজনৈতিক দলগুলোকে সংলাপ ডাকতে প্রধানমন্ত্রীকে আহ্বান জানিয়েছিলেন।

দশম সংসদ নির্বাচন বর্জনকারী বিএনপির আহ্বানের প্রেক্ষাপটে এবার ভোটের আগে গত অক্টোবরে আকস্মিকভাবেই রাজনৈতিক দলগুলোকে সংলাপে ডাকেন শেখ হাসিনা।

বিএনপিসহ ঐক্যফ্রন্টের নেতাদের তিন দফায় আলোচনার সুযোগ দেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী । তাতে বিভিন্ন আশ্বাস পাওয়ার কথা জানিয়ে ভোটে অংশ নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় বিএনপি।

কিন্তু নির্বাচনে ব্যাপক কারচুপির অভিযোগ তুলে বিএনপি নেতারা বলেছেন, তাদের দেওয়া আশ্বাসের কিছুই বাস্তবায়ন হয়নি।

শনিবারও এক অনুষ্ঠানে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, আমাদের সঙ্গে যে সংলাপ হল, তখন তিনি যে কথাগুলো ‍দিয়েছিলেন, তার একটাও রাখেননি।”

এদিকে নির্বাচনের পর জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ফের সংলাপের দাবি তুললে তা নিয়ে আওয়ামী লীগ থেকে দুই রকম বক্তব্য পাওয়া যায়।

আওয়ামী লীগ সাথারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের প্রথমে বলেছিলেন, প্রধানমন্ত্রী আবারও দলগুলোকে সংলাপে ডাকবেন। পরে তিনি কথা ঘুরিয়ে বলেন, সংলাপ আর হবে না, প্রধানমন্ত্রী নিমন্ত্রণ জানাবেন রাজনৈতিক দলগুলোর নেতাদের।

অন্যদিকে আওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির কো চেয়ারম্যান ও প্রধানমন্ত্রী উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আবার একটি সংলাপ করবেন।

এদিকে টানা তৃতীয় মেয়াদে প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব নেওয়া শেখ হাসিনা শুক্রবার জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষণে সংলাপের কোনো কথা বলেননি।

বাংলাদেশকে উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত করতে বিভেদ ভুলে ‘জাতীয় ঐক্যের’ ডাক দিয়েছেন তিনি; বিএনপিকে আহ্বান জানিয়েছেন শপথ নিয়ে সংসদে যোগ দেওয়ার।

তবে বিএনপি মহাসচিব ফখরুল বলেছেন, তারা যেহেতু ভোটের ফলই প্রত্যাখ্যান করেছেন, তাই শপথ নেওয়া কিংবা সংসদে যোগ দিচ্ছেন না তারা।