ওয়ে’সিস ইন্টারন্যাশনাল স্কুল উদ্বোধন ও বই বিতরন উৎসব

প্রকাশিত: ৮:৩৪ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৬, ২০১৮

ওয়ে’সিস ইন্টারন্যাশনাল স্কুল উদ্বোধন ও বই বিতরন উৎসব

 

সাভারে ওয়ে’সিস ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের শুভ উদ্বোধন ও বই বিতরন উৎসব পালন করা হয়েছে। শনিবার দুপুরে সাভার পৌর এলাকার ডগরমোড়া এলাকায় অবস্থিত স্কুলটির নতুন ভবনে এ উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।
আয়োজিত অনুষ্ঠানে পৌর ৭ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সভাপতি মোঃ হাফিজ উদ্দিনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা-১৯ আসনের সংসদ সদস্য ডা. এনামুর রহমান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ডা. ফরিদা হক, রেডিও কলোনী মডেল স্কুলের সহকারী প্রধান শিক্ষক অরুপ চক্রবর্তী প্রমুখ।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডা. এনামুর রহমান শিক্ষার্থীদেরকে মনযোগ সহকারে পড়ালেখা করার আহ্বান জানিয়ে বলেন, তোমরাই এ দেশের ভবিষ্যত কর্ণধার। তাই নিয়মিত ক্লাস করে যোগ্য নাগরিক হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলার পাশাপাশি দেশ গড়ার দায়িত্ব নেয়ার কথা বলেন। এছাড়া শিক্ষক এবং অভিবাবকদেরকে নিজের সন্তানের প্রতি দৃষ্টি রাখার পাশাপাশি তাদেরকে মুক্তিযুদ্ধ এবং বাংলাদেশের ইতিহাস সম্পর্কে সঠিক ধারনা দেয়ার আহ্বান জানান।
ডা. এনামুর রহামন বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে এ দেশ স্বাধীন হতোনা। তাই প্রথমেই আমি হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালীকে স্মরন করি। বর্তমান সরকার মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের হওয়ায় বছরের প্রথম দিনে আমরা ছাত্র-ছাত্রীদের হাতে বই তুলে দিচ্ছি। বছর শুরুর আগেই প্রতিটি স্কুলে বই পৌছে দিয়ে তা বিনামূল্যে প্রদান নিশ্চিত করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা বাংঙ্গালী জাতিকে শিক্ষিত করে গড়ে তুলার জন্য এ চ্যালেঞ্জ হাতে নিয়েছে। এবার দেশে ৪৩ কোট বই বিনামূল্যে বিতরন করা হয়েছে। প্রাথমিকে শিক্ষার্থীদের বিনা বেতনে পড়াশুনা নিশ্চিত করেছেন। ৪২ লক্ষ ছাত্র-ছাত্রীকে উপবৃত্তি প্রদানের পাশাপাশি মেয়েদের বাল্য বিবাহ ঠেকাতে এবং পড়াশুনা নিশ্চিত করতে ৭ম শ্রেনী থেকে দ্বাদস শ্রেনী পর্যন্ত বিনা বেতনে পড়াশুনার ব্যবস্থা করেছেন। তাই উপস্থিত সকলকে তিনি ‘‘শেখ হাসিনার জন্য, বাংলাদেশ ধন্য’’ বলে সজোরে শ্লোগান দিতে বলেন।
বর্তমান সরকার উন্নয়নের রোল মডেল উল্লেখ করে তিনি বলেন, আমাদের শিক্ষার হার ৭১ ভাগ। বিদ্যুৎ এর কোন ঘাটতি নাই। ২০২১ সালে ২৫ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনে লক্ষ্য নিয়ে কয়েকটি প্রকল্প হাতে নিয়েছে বর্তমান সরকার। বিদ্যুৎ উৎপাদন বৃদ্ধি পাওয়ায় নতুন নতুন শিল্প গড়ে উঠছে। বেকার সমস্যার সমাধান হচেচ্ছ। স্বাধীনতার পক্ষের সরকার ও দেশকে ভাল বেশেই সীমিত সামর্থের মধ্যে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে।
বিশ^ ব্যাংক দূর্নিতির অভিযোগ তুলে পদ্মা সেতুতে অর্থায়ন বন্ধ করে দিলেও শেখ হাসিনা সরকার নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মাসেতুর নির্মান কাজ চালিয়ে যাওয়ায় আজতে তা দৃশ্যমান।
এমপি হওয়ার পর রাস্তাঘাটসহ সকল সমস্যার সমাধানের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিভিন্ন যায়গায় ঠিকাদাররা কাজ নিয়ে কাজ না করে বিল তুলে পালিয়ে যায়। যে কারনে জনগনের অসুবিধা পোহাতে হয়। সে বিষয়টি মাথায় রেখে আমি নিজে উন্নয়ন কাজের দেখভাল করছি। যাতে এ ধরনে ঘটনার পুনরাবৃত্তি না ঘটে।
আলোচনা অনুষ্ঠান শেষে উপস্থিথ শিক্ষার্থীদের মাঝে নতুন বছরের বই তুলে দেন ডা. এনামুর রহমান।