করোনার সঙ্গে বসবাস

প্রকাশিত: ৬:০৭ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ২১, ২০২০

করোনার সঙ্গে বসবাস

মিনার মনসুর

প্রথমে তারা ধর্মের বর্ম ব্যবহার করেছিলেন।কিন্তু ইরান ও সৌদি আরব ধরাশায়ী হওয়ার পর তারা দ্রুত অবস্থান বদলালেন।বললেন, যেসব দেশ আক্রান্ত হয়েছে তাদের তাপমাত্রা ২০ ডিগ্রির কম, কিন্তু আমাদের তাপমাত্রা ৩০-এর বেশি, অতএব, আমাদের কিচ্ছু হবে না! পরে যখন জানা গেল, যাদের তাপমাত্রা আমাদের চেয়েও বেশি, তারাও দেদারসে আক্রান্ত হচ্ছে, তখন নতুন অস্ত্র নিয়ে হাজির হলেন তারা। বললেন, যারা করোনাক্রান্ত হচ্ছে তাদের গায়ের রং সাদা, কিন্তু আমাদের গাত্রবর্ণ সাদা নয়, অতএব, আমাদের হবে না! যখন জানা গেল, ঘোর কৃষ্ণবর্ণদেরও পরিত্রাণ মিলছে না করোনার আলিঙ্গন থেকে, তখন তারা নতুন ঢাল ব্যবহার করলেন।বললেন, করোনার মতো কতো হাতিঘোড়া গেল তল…অতএব, আমাদেের কিচ্ছু হবে না!

এদিকে আগ্রাসন কিন্তু থেমে নেই।যুক্তরাষ্ট্রের জন হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, সর্বশেষ গত বৃহস্পতিবার রাত ১২টা পর্যন্ত ১৬০টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে করোনা। সংক্রমিত হয়েছে ২ লাখ ৩৫ হাজারের বেশি মানুষ। জরুরি অবস্থা জারি করতে বাধ্য হয়েছে মহাশক্তিধর যুক্তরাষ্ট্রসহ ২০টির বেশি দেশ।বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রধান সবচেয়ে বাজে অবস্থার জন্যে প্রস্তুত থাকতে বলেছেন বাহ্যত বিপদমুক্ত আফ্রিকাকে। আর আইএলও’র প্রধান বলেছেন, বৈশ্বিক এই মহামারির কারণে কর্মহীন হয়ে পড়তে পারে আড়াই কোটি লোক।এই যখন অবস্থা তখন কেন কিছু লোক বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার সতর্কবার্তা উপেক্ষা করে একের পর এক হাস্যকর সব যুক্তি খুঁজে বেড়াচ্ছেন বোঝা মুশকিল।আমার নবম শ্রেণিপড়ুয়া ছেলে বললো, বাবা, এগুলো হলো নিয়ম না মানার ছল।তার মানে কি এই যে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ও আমাদের সরকারের পক্ষ থেকে সতর্কতামূলক যে নিয়মনীতিগুলো মানতে বলা হচ্ছে, সেগুলো যাতে মানতে না হয় তার জন্যেই এত অজুহাত!

ইতালি ও স্পেনসহ বহু দেশ এখন আফসোস করছে।দক্ষিণ কোরিয়া ও চীনের অভিজ্ঞতা আরও মর্মান্তিক।একটি-দুটি মানুষের সামান্য গাফিলতিও যে কতো বড়ো বিপর্যয়ের কারণ হতে পারে তা এখন হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছে তারা।ধরা যাক, কিছুই হবে না আমাদের– এটাই ঠিক। কিন্তু তারপরও সতর্ক থাকলে, নিয়ম-শৃঙ্খলা মেনে চললে ক্ষতির তো কিছু দেখি না।বরং করোনার কারণেও যদি আমরা কিছু অত্যাবশ্যক নিয়ম-শৃঙ্খলা মানতে শিখি তাতে তো বরং লাভই বেশি।চোখ বন্ধ রাখলেই যে প্রলয় থেমে থাকবে না তা আমরা কবে বুঝতে শিখবো, জানি না।

ঢাকা: ২০ মার্চ ২০২০

ছড়িয়ে দিন

Calendar

November 2021
S M T W T F S
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
282930