কর্মস্থলে নারী-বান্ধব ও নিরাপদ পরিবেশ উপলক্ষে র‌্যালী ও আলোচনা

প্রকাশিত: ৬:৩৫ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৪, ২০১৭

কর্মস্থলে নারী-বান্ধব ও নিরাপদ পরিবেশ উপলক্ষে র‌্যালী ও আলোচনা

কর্মস্থলে নারী-বান্ধব ও নিরাপদ কর্মপরিবেশ উপলক্ষে র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত।
আজ ২৪ নভেম্বর ২০১৭ইং নারী বান্ধব ও নিরাপদ কর্মপরিবেশের সঙ্কট পদে পদে ,তাই নারীর মর্যাদা, অর্থ‣নতিক মুক্তি, সামাজিকনিরাপত্তা, সর্বক্ষেত্রে সহ- অবস্থান নিশ্চিত করার লক্ষ্যে বিশ্বব্যাপী এক পতাকাতলে সমবেত হন বিশ্বের নারী সমাজ এবং একই সাথে সহযোদ্ধা হিসাবে পাশে থাকে সকল পুরুষ। বিশ্ব্যাপী নারী অবদান রেখে চলেছেন সমান তালে কিন্তু নারী এখনো তার যোগ্য মর্যাদা এবং
কাজের স্বীকৃতি পাচ্ছেন না। কর্মজীবী নারী বিশেষ করে শ্রমিক নারী এখনো লড়াই করে চলছেন শ্রমিক হিসাবে তার মর্যাদা পাবার ।
বাংলাদেশের অর্থ‣নতিক প্রবৃদ্ধিতে ক্সতরি পোশাক ও চামড়া শিল্প সহ অন্যান্য রপ্তানিকারক শিল্প প্রতিষ্ঠানের অবদান অনি¯ী^কার্য। ‣তরী
পোশাক শিল্পে নিয়োজিত আছেন ৭০ ভাগ নারী যাদের শ্রম ও ঘামে অর্জিত হচ্ছে ক্সবদেশিক মূদ্রা । কর্মস্থলে নারী শ্রামকের নিরাপত্তা, সম
অধিকার, বাচাঁর মত ও যুগোপযোগি মজুরী ও নারীর অর্থ‣নতিক মুক্তিকে প্রতিপাদ্য করে আওয়াজ ফাউন্ডেশন কর্মস্থলে নারী বান্ধব ও
নিরাপদ কর্মপরিবেশ উপলক্ষ্যে রসুলবাগ থেকে নাবি¯ে‥া পর্যন্ত বিকাল ৩টায় মানববন্ধন ও র‌্যালি, আলোচনাসভা ও মনোজ্ঞ সাং¯‥ৃতিক
অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।
সম্মিলিত গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশন এর সংগ্রামী সভাপতি এবং আওয়াজ ফাউন্ডেশন এর নির্বাহী পরিচালক নাজমা আক্তার বলেনসবর্
প্র মে আমাদের নারী শ্রমিককে শ্রমিকের মর্যাদা দিতে হবে, কর্মস্থলে নারীর নিরাপত্তা দেয়া সহ নারী পুরুষের সম-অবস্থান নিশ্চিত
করতে হবে। অর্থ‣নতিক মুক্তি এবং সমতা ভিত্তিক অর্থনীতি গঠনের লক্ষে নারীর যাত্রাকে তরান্বিত করার মাধ্যমে নারীকে ক্ষমতায়িত
করতে হবে। শ্রমিক হিসাবে নারী তার যোগ্য মর্যাদা, কর্মস্থলের নিরাপত্তা, চাকুরির নিরাপত্তা, পদোনড়বতিতে সম অধিকার, নেতৃত্ব এবং ট্রেড
ইউনিয়নে নারীর অংশগ্রহন নিশ্চিত করতে হবে। সকল শ্রমিককে আইনের অধিকার, বাচাঁর মত মজুরী, নির্যাতন মূক্ত কর্মপরিবেশের
নিশ্চয়তা সরকারকে দিতে হবে। নারী বান্ধব ও নিরাপদ কর্মপরিবেশ উপলক্ষে সম্মিলনে তিনি আর্ওো বলেন আমি সরকারকে বলতে চাই
নারীদের পেশাগত মর্যাদা,তাদের নিবিঘেড়ব কাজ করার স্বাধীনতা দিতে হবে, নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে শ্রম আইন করলেই হবে না
উক্ত আইন বাস্তবায়ননের ব্যবস্থা করতে হবে, ট্রেড ইউনিয়নে নারীর অংশগ্রহন বৃদ্ধিসহ সকল ক্ষেত্রে নারীদের মর্যাদাপুর্ণ স্থলে নিয়ে
য্ওায়ার জোর দাবী জানায়।
নাহিদুল হাসান নয়ন, সাধারন সম্পাদক, সম্মিলিত গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশন বলেন-এখন পর্যন্ত ভবন নিরাপত্তা ও অগিড়ব নিরাপত্তা
জোরদার করা হয়েছে কিন্তু নারী নিরাপত্তার জন্য এখন পর্যন্ত কোন কারখানা হয় নাই । তিনি আরোও বলেন ট্রেড ইউনিয়ন, পিসি কমিটি,
সেফটি কমিটিতে নারীদের উচ্চ পদে অবস্থান থাকতে হবে। তাদেরকে লাইন চিফ,পিএম, জিএম আমরা দেখতে চাই । এছাড়া বিভিনড়ব
ইউনিয়ন থেকে আগত নেতৃবৃেন্দর মধ্যে বক্তব্য রাখেন কামরুল হাসান, সাধারন সম্পাদক- আরমানা এ্যাপারেলস লিঃ সম্মিলিত গার্মেন্টস
শ্রমিক ইউনিয়ন, উর্মি, সভাপতি- হোপলুন এ্যাপারেলস লিঃ সম্মিলিত গার্মেন্টস শ্রমিক ইউনিয়ন, দিদারুল, সহ-সভাপতি- ষ্টীজ ম্যাগাজিন
লিঃ সম্মিলিত গার্মেন্টস শ্রমিক ইউনিয়ন, শিল্পী, সাধারণ সম্পাদক- ন্যাচারেল ডেনিমস লিঃ সম্মিলিত গার্মেন্টস শ্রমিক ইউনিয়ন, মোর্শেদ,
সাধারণ সম্পাদক- কেপরি গার্মেন্টস লিঃ সম্মিলিত গার্মেন্টস শ্রমিক ইউনিয়ন, বিলকিস, সভাপতি- ন্যাচারাল ডেনিমস লিঃ সম্মিলিত
গার্মেন্টস শ্রমিক ইউনিয়ন, স্বপন চে․ধুরী, সাধারণ সম্পাদক- হোপলুন এ্যাপারেলস লিঃ সম্মিলিত গার্মেন্টস শ্রমিক ইউনিয়ন, লিলি,
সভাপতি-মাষ্টার ক্যাফে, সম্পা, সভাপতি- আরমানা এ্যাপারেলস লিঃ সম্মিলিত গার্মেন্টস শ্রমিক ইউনিয়ন। তাদের কথায় কর্মস্থলে নারীবান্ধব
ও নিরাপদ কর্মপরিবেশ কেমন হবে বিষয়টি পরি¯‥ারভাব উঠে আসে । তাদের কথায় আমাদের জীবনের কোন নিরাপত্তা নেই ,কোন
প্রতিবাদ করলে মালিকেরা মাস্তান পাঠাই, পুলিশের ভয় দেখায় এই অবস্থার পরিবর্তন করবে সরকার। আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন
মো: আইনুল হক, সম্পাদক- ক্সদনিক গণমানুষের আওয়াজ, তিনি বলেন শ্রমিকের স্বর্গরাজ্য নিরাপদ কর্মক্ষেত্র।
পরিশেষে শ্রমিক প্রকল্পের প্রকল্প সমন্বয়কারী তাসলিমা আফরোজা শ্রমিক ভাই-বোনদের বিগত তাজরিন ফ্যাশানের উদ্ধৃতি দিয়ে বলেন-
এধরনের ঘটনার যেন পুনরাবৃত্তি না ঘটে। এখন নারী থাকবে নেতৃত্বে এবং সরকারকে কর্মক্ষেত্রে নিরাপত্তা দিতে হবে, নিরাপদ কর্মস্থল এর
ব্যবস্থা করতে হবে। তিনি আরোও জানান যে, আমাদের ক্যাম্পেইন প্রোগামটি একশন এইড বাংলাদেশ এর সহযোগীতায় ও ইউরোপিয়ান
ইউনিয়নের আর্থিক সহায়তায় শ্রমিক প্রকল্পের অধিনে বাস্তবায়িত হচ্ছে। এরপর শ্রকিদের মনোরঞ্জনের জন্য শুরু হয় মনোজ্ঞ সাং¯‥ৃতিক
অনুষ্ঠান। সাং¯‥ৃতিক অনুষ্ঠানে শ্রমিকদের আশা আকাঙ্খা জাগ্রত করার জন্য পরিবেশিত হয় গান ।