খালেদা জিয়ার আপিল শুনানি চলছে

প্রকাশিত: ২:২৩ অপরাহ্ণ, জুলাই ১২, ২০১৮

খালেদা জিয়ার আপিল শুনানি চলছে

দুর্নীতি মামলায় সাজার বিরুদ্ধে হাই কোর্টে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আপিল শুনানি চলছে ।

বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাই কোর্ট বেঞ্চে বৃহস্পতিবার বেলা ১১টার দিকে এ শুনানি শুরু হয়।

খালেদা জিয়ার আইনজীবী আবদুর রেজাক খান প্রথমে পেপারবুক থেকে এফআইআর উপস্থাপন শুরু করেন।

আইনজীবীদের মধ্যে এ জে মোহাম্মদ আলী, মওদুদ আহমেদ, জয়নুল আবেদীন ও মাহাবুব উদ্দিন খোকন উপস্থিত আছেন আদালতে।

রাষ্ট্রপক্ষে সংশ্লিষ্ট আদালতের ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল ফরহাদ আহমেদ ও দুদকের আইনজীবী খুরশীদ আলম খান আপিল শুনানিতে আছেন।

এদিকে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ এ মামলার আপিল ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে নিষ্পত্তি করার যে আদেশ দিয়েছিল, তা পুনর্বিবেচনার জন্য একটি আবেদন করেছিলেন খালেদা জিয়া আইনজীবীরা।

এ বিষয়ে শুনানি করে আপিল বিভাগ বৃহস্পতিবার বলেছে, আপিলের শুনানি ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে শেষ না হলে ওই রিভিউ আবেদন বিবেচনা করা হবে।

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন চার বিচারপতির আপিল বেঞ্চ খালেদা জিয়ার করা রিভিউ আবেদন ‘স্ট্যান্ডওভার’ রেখে এ আদেশ দেয়।

আদেশে আপিল বিভাগ বলেছে, ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে হাই কোর্টে এই আপিল শুনানির যে আদেশ রয়েছে সে অনুযায়ী আপনারা আপিল শুনানি শুরু করেন। তবে এই সময়ের মধ্যে শুনানি শেষ করতে না পারলে আপিল বিভাগ বিষয়টি বিবেচনা করবে।

বিদেশ থেকে জিয়া এতিমখানা ট্রাস্টের নামে আসা দুই কোটি ১০ লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে দুদকের দায়ের করা এ মামলার রায়ে গত ৮ ফেব্রুয়ারি সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেন ঢাকার পঞ্চম বিশেষ জজ আখতারুজ্জামান।

সেই সঙ্গে খালেদা জিয়ার বড় ছেলে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমানসহ অপর পাঁচ আসামির প্রত্যেককে ১০ বছরের জেল ও জরিমানা করা হয় রায়ে।

রায়ে বলা হয়, সরকারি এতিম তহবিলের টাকা এতিমদের কল্যাণে ব্যয় না করে পরস্পর যোগসাজশে আত্মসাৎ করে খালেদা জিয়াসহ জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার আসামিরা রাষ্ট্রীয় অর্থনৈতিক অপরাধ করেছেন।

ছয় আসামির মধ্যে খালেদা জিয়াসহ তিনজন কারাবন্দি। খালেদা জিয়া ছাড়া বাকি দুজন হলেন- মাগুরার সাবেক এমপি কাজী সালিমুল হক কামাল ওরফে ইকোনো কামাল ও ব্যবসায়ী শরফুদ্দিন আহমেদ।

আর তারেক রহমান, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাবেক সচিব কামাল উদ্দিন সিদ্দিকী আর জিয়াউর রহমানের ভাগ্নে মমিনুর রহমান পলাতক।