গণমুখী মানুষ ছাড়া দলকে গণমুখী করা যায় না ঃ তথ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত: ১০:২৭ অপরাহ্ণ, মে ৬, ২০১৯

গণমুখী মানুষ ছাড়া দলকে গণমুখী করা যায় না ঃ তথ্যমন্ত্রী

কামরুজ্জামান হিমু

তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, গণমুখী মানুষ ছাড়া দলকে গণমুখী করা যায় না । গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক পরিবর্তন সম্পর্কে মন্তব্য জানতে চাইলে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, প্রকৃতপক্ষে বাস্তবতা হলো, গণফোরাম কখনোই গণমুখী দল হয়ে উঠতে পারেনি। এবং তাদের যে সাংগঠনিক পরিবর্তন, আমি মনে করি এতে বাস্তবতার কোনো পরিবর্তন হবে না।
তিনি বলেন, ‘একজন রাজনীতিবিদ হিসেবে সাধারণ মানুষ বা গ্রামের মানুষের সাথে ওঠা-বসা, তাদের সাথে কথা বলা, তাদেরকে আপন করে নেয়া-এই শক্তি সামর্থ্য যদি কোন রাজনীতিবিদের না থাকে, সেই রাজনীতিবিদ জনগণ থেকে সবসময় বিচ্ছিন্ন থাকবে। সুতরাং আমি মনে করি গণফোরাম অতীতে যেমন গণমুখী দল হয়ে উঠতে পারে নাই, এই পরিবর্তনেও গণফোরামের কোনো পরিবর্তন আসবে না। বরং তা গণফোরামকে জনগণ থেকে আরো বিচ্ছিন্ন করে কি না সেটিই সেখার বিষয়।’
ক্রমাগতভাবে অনেকগুলো ভুল সিদ্ধান্ত গ্রহণের কারণে বিএনপি জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়েছে এবং অনেক ক্ষেত্রে জনগণের প্রতিপক্ষ হয়েছে।

সোমবার দুপুরে সচিবালয়ে নিজ দফতরে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে ‘বিএনপি’র সংসদে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত যে ভুল ছিল মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সেটা স্বীকার করেছেন’-এবিষয়ে সাংবাদিকরা তার প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে তিনি একথা বলেন।

‘বিএনপি সবকিছু দেরিতে বোঝে’ উল্লেখ করে ড. হাছান বলেন, ‘মির্জা ফখরুল ইসলাম শেষ পর্যন্ত স্বীকার করেছেন, সংসদে না যাওয়ার সিদ্ধান্ত ভুল ছিল। বিএনপি গত কয়েক বছরে বহু ভুল সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সেই ভুল সিদ্ধান্তগুলোর মাশুল এখন বিএনপিকে দিতে হচ্ছে। ক্রমাগতভাবে অনেকগুলো ভুল সিদ্ধান্ত গ্রহণের কারণে বিএনপি জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়েছে এবং অনেক ক্ষেত্রে জনগণের প্রতিপক্ষ হয়েছে।’

মন্ত্রী বলেন, ২০১৪ সালে নির্বাচনে না করার সিদ্ধান্তটি ছিল বিএনপির বড় ভুল এবং আত্মহননের মতো।
ধ্বংসাত্মক কর্মকান্ড করে, মানুষের ওপর যে পেট্রোল বোমা নিক্ষেপ করে, জীবন্ত মানুষকে হত্যা করে, হরতাল অবরোধের নামে জনগণকে দিনের পর দিন অবরুদ্দ করে রেখে বিএনপি জনগণকে প্রতিপক্ষ হিসেবে দাঁড় করিয়ে ছিল। একটি গণমুখী দলের জন্য কখনই সমীচীন নয়।’

‘এরপর গত নির্বাচনেও অংশগ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েও কার্যত তারা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করে নাই’ উল্লেখ করে ড. হাছান বলেন, ‘গত নির্বাচনে বিএনপি প্রথমে সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগছিল নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে কি করবে না। শেষ প্রান্তে গিয়ে তারা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার সিদ্ধান্ত নিলেও নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেও করে নাই।’

‘বিএনপি যদি গত নির্বাচনে প্রথম থেকে অংশগ্রহণ করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করতো এবং অংশগ্রহণ করার পর তারা যে মনোনয়ন বাণিজ্য করেছে, তা যদি না করতো, তাহলে তাদের ফলাফল আরো ভালো হতে পারতো’ বলে মন্তব্য করেন তথ্যমন্ত্রী।

বিএনপির পাঁচজন শপথ গ্রহণ করেছে মির্জা ফখরুল ইসলাম করেন নাই- এবিষয়ে মন্ত্রীর দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি বলেন, ‘আমি মনে করি বিএনপির অতি কৌশলের বলি হচ্ছে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। পাঁচজন শপথ নিয়েছেন কিন্তু মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর শপথ নিলেন না কেন সে রহস্য তিনিই বলতে পারবেন। তবে বিএনপি বহুবিধ কৌশল করতে চেয়েছে এবং সেই কৌশলের বলি হচ্ছে মির্জা ফখরুল।’