গাজীপুরে ভোট বন্ধের দাবি

প্রকাশিত: ৩:৫৫ অপরাহ্ণ, জুন ২৬, ২০১৮

গাজীপুরে ভোট বন্ধের দাবি

গাজীপুরে বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ এনে ভোট বন্ধের দাবি জানিয়েছেন বিএনপি প্রার্থী হাসান সরকার

২৬ জুন, মঙ্গলবার ভোট চলাকালে দুপুর ১টার দিকে গাজীপুর সদরে বিএনপির কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি করেন হাসান সরকার।

এ সময় বিএনপির মনোনীত এই মেয়র প্রার্থী ভোটের নানা অনিয়মের কথা তুলে ধরেন। শতাধিক কেন্দ্রে অনিয়মের সুনির্দিষ্ট তথ্য রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে দেওয়া হবে বলেও জানান হাসান সরকার। তিনি জানান, রিটার্নিং কর্মকর্তাকে এখনই ভোট বন্ধ করতে বলবেন।

নির্বাচন কমিশন সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানে ব্যর্থ হয়েছে বলে অভিযোগ করে হাসান সরকার বলেন, ‘কমিশনের উচিত স্বেচ্ছায় পদত্যাগ করা।’

সকাল সোয়া ৮টার দিকে নিজ বাসভবন সংলগ্ন ৫৪ নম্বর ওয়ার্ডের আউচপাড়ায় বছিরউদ্দিন উদয়ন একাডেমি স্কুল কেন্দ্রে ভোট দেন হাসান সরকার। ভোট দেওয়ার পর তিনি অভিযোগ করেন, ১০টি কেন্দ্র থেকে বিএনপির এজেন্টদের বের করে দেওয়া হয়েছে।

হাসান উদ্দিন সরকার বলেন, ‘ভোট শুরুর সঙ্গে সঙ্গে ১০টি কেন্দ্র থেকে বিএনপির এজেন্টদের বের করে দেওয়া হয়েছে। বেশ কয়েকজন এজেন্টকে আটক করে সাদা মাইক্রোবাসে করে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়। এসব অভিযোগের ব্যাপারে রির্টানিং অফিসারকে ফোন দেওয়া হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।’

হাসান উদ্দিন সরকার আরও বলেন, ‘জয়ের ব্যাপারে আমি শতভাগ আশাবাদী। শেষ পর্যন্ত লড়ে যাব।’এর আগে সকাল ৮টা থেকে গাজীপুরে ভোট গ্রহণ শুরু হয়। সকাল ৮টা থেকে শুরু হওয়া ভোট গ্রহণ চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। এরপর হবে ভোট গণনা। তারপর রিটার্নিং কর্মকর্তা ফলাফল ঘোষণা করা কথা রয়েছে।

নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নির্বাচন অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা বিভিন্ন কেন্দ্রে অবস্থান নিয়েছেন। সিটি করপোরেশনের ৫৭টি ওয়ার্ডে ৪২৫টি ভোটকেন্দ্রে ব্যালট পেপার ও অন্যান্য নির্বাচনি সরঞ্জাম রয়েছে। দলীয় প্রতীকে এবারই প্রথম গাজীপুর সিটি করপোরেশনে নির্বাচন হচ্ছে।