গাজীপুরে ২৯ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন

প্রকাশিত: ১২:৫৫ অপরাহ্ণ, জুন ২৪, ২০১৮

গাজীপুরে  ২৯ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন

রোববার সকাল থেকে বিজিবি সদস্যদের বহনকারী গাড়ি চলতে দেখা যাচ্ছে গাজীপুরে ।
গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচন ঘিরে জমজমাট আয়োজন । সেখানে ২৯ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। বিভিন্ন এলাকা ঘুরে তারা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছেন লে জানা গেছে ।

বিজিবির জনসংযোগ কর্মকর্তা মহসিন রেজা জানান , বিজিবি সদস্যরা বুধবার পর্যন্ত নির্বাচনী এলাকায় দায়িত্ব পালন করবেন। এর বাইরে আরও বিজিবি স্ট্যান্ডবাই রাখা হয়েছে । প্রয়োজনে সেখান থেকে মোতায়েন করা হবে।

সিটির ৫৭টি ওয়ার্ডের প্রতি দুইটিতে এক প্লাটুন করে মোট ২৯ প্লাটুন বিজিবি দায়িত্ব পালন করবে এই নির্বাচনে। ২০ থেকে ৩০ জন বিজিবি সদস্য নিয়ে এ বাহিনীর এক একটি প্লাটুন গঠিত হয় বলে কর্মকর্তারা জানান।

গাজীপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সঞ্জীব কুমার দেবনাথ বলেন, ২৯ প্লাটুন বিজিবির মধ্যে কোনাবাড়ি ও কাশিমপুর এলাকায় ৭ প্লাটুন, টঙ্গী এলাকায় ১০ প্লাটুন এবং জয়দেবপুর, বাসন চান্দনা চৌরাস্তা ও কাউলতিয়া এলাকায় ১২ প্লাটুন দায়িত্ব পালন করবেন।

এছাড়া নির্বাচনে সার্বিক নিরাত্তার জন্য র‌্যাব, পুলিশ, এপিবিএন, আনসারসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রায় ১১ হাজার সদস্য মোতায়েন থাকবে বলে জানান তিনি।

আগামী ২৬ জুন গাজীপুর সিটি নির্বাচনে ভোট দিয়ে ৫৭টি সাধারণ এবং ১৯টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডের জন্য কাউন্সিলর এবং একজন মেয়র বেছে নেবেন ১১ লাখ ৩৭ হাজার ৭৩৭ জন ভোটার।

মেয়র পদে সাতজন, সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ৮৪ জন এবং সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৫৪ জন প্রার্থী এ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

গাজীপুর সিটি নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার রকিব উদ্দিন মণ্ডল বলেন, নির্বাচনের প্রস্তুতি প্রায় শেষ পর্যায়ে; রোববার মধ্যরাত থেকে সব ধরনের প্রচার-প্রচারণা শেষ হবে। ইতোমধ্যে নয় হাজার ভোট গ্রহণ কর্মকর্তাকে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে।

এদিকে ভোটকে কেন্দ্র করে ইতোমধ্যে পুরো নির্বাচনী এলাকা নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে ফেলা হয়েছে। বিপুল পরিমাণ পুলিশ নগরীর বিভিন্ন স্থানে দায়িত্ব পালন করছেন।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনী যে কোনো পরিস্থিতি মোকাবেলায় প্রস্তুত রয়েছে বলে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন গাজীপুরের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ।

নগরীর ৫৭টি ওয়ার্ডে পুলিশ ও আনসারের সমন্বয়ে ৫৭টি স্ট্রাইকিং ফোর্স এবং সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ২০টি স্ট্রাইকিং ফোর্স কাজ করবে এবার। এছাড়া ৫৭টি ওয়ার্ডে র‌্যাবের মোট ৫৮টি টিম মোতায়েন থাকবে।

নির্বাচনের আগে ও পরে চার দিন ৫৭টি ওয়ার্ডে একজন করে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োজিত থাকবেন। আরও ১০ জন অতিরিক্ত ধরে সর্বমোট ৬৭জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট দায়িত্ব পালন করবেন।

এছাড়া সিটির প্রতি তিনটি ওয়ার্ডের জন্য একজন করে মোট ১৯জন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োজিত থাকবেন। তারা ২৪ থেকে ২৭ জুন নগরীতে দায়িত্ব পালন করবেন।

রিটার্নিং অফিসার রকিব উদ্দিন বলেন, এই বিপুল সংখ্যক আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েনের প্রধান উদ্দেশ্য হল নির্বাচনী এলাকায় যাতে কেউ গোলযোগ, অনিয়ম করতে না পারে। রোববার সংশ্লিষ্ট এলাকার দায়িত্বে থাকা সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে নির্বাচনী মালামাল বণ্টন করা হবে।

এ সিটিতে ৪২৫টি কেন্দ্রে এবার ভোটগ্রহণ হবে; এর মধ্যে ৩৩৭টিকে গুরুত্বপূর্ণ এবং ৮৮টিকে সাধারণ কেন্দ্র হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে।