গেজেট নিয়ে শুনানি ২ জানুয়ারি

প্রকাশিত: ৬:৩৮ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৭

গেজেট নিয়ে শুনানি  ২ জানুয়ারি

নিম্ন আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলা সংক্রান্ত বিধিমালা গেজেট নিয়ে শুনানির জন্য ২ জানুয়ারি পরবর্তী দিন ধার্য করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।

১৩ ডিসেম্বর বুধবার সকালে এ দিন ধার্য করেন ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি মো. আব্দুল ওয়াহ্হাব মিঞা।

সকালে আদালত বসার পর অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমকে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘ব্যক্তিগত কারণে বেঞ্চের পাঁচ বিচারকের মধ্যে একজন আজ আসতে পারেননি। যেহেতু এই শুনানি ফুল বেঞ্চে হয়ে আসছে, সেহেতু বুধবার আর শুনানি হচ্ছে না।’

এর আগে গত ১১ ডিসেম্বর সোমবার রাতে অধঃস্তন আদালতের বিচারকদের নিয়োগ, বদলি, পদোন্নতি ও শৃঙ্খলা বিধিমালার গেজেট আইন মন্ত্রনালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হয়েছে। বাংলাদেশ জুডিসিয়াল সার্ভিস (শৃঙ্খলা) বিধিমালা, ২০১৭ শিরোনামে এই গেজেটটি প্রকাশিত হয়েছে।

এ নিয়ে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘বিচার বিভা‌গের স্বাধীনতা নি‌য়ে আমরা বহু কথা ব‌লে‌ছি। সংস‌দে আইনও পাশ করা হ‌য়ে‌ছে। কিন্তু সেই বিচার বিভাগের স্বাধীনতা আবারও প্রশাস‌নের ওপর গি‌য়ে পড়‌ল। কোনোভা‌বেই বিচার বিভাগকে মুক্ত করা গে‌ল না।’

গেজেট প্রকাশের মাধ্যমে বিচারকদের নিয়ন্ত্রণের ক্ষমতা রাষ্ট্রপতির ওপর থাকছে না। তাদের নিয়ন্ত্রণ চলে যাচ্ছে আইন মন্ত্রণালয়ের অধীন। সরকারের এমন সিদ্ধান্তের ঘোর বিরোধীতা করে ক্ষমতা প্রতিস্থাপনের বিষয়টিকে গেজেটের ‘গোড়াতেই গলদ’ হিসেবে উল্লেখ করেছেন ব্যারিস্টার এম. আমীর-উল ইসলাম।

আর এ সম্পর্কে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেন, ‘গেজেটে অসঙ্গতি থাকার কোনো প্রশ্নই আসে না। কারণ, উচ্চ আদালতের সঙ্গে আইনমন্ত্রী বসেছেন এবং আমি যতটুকু জানি তাদের দেখিয়েই এগুলো করা হয়েছে।’

প্রসঙ্গত, ১৯৯৯ সালের ২ ডিসেম্বর মাসদার হোসেনের মামলায় (বিচার বিভাগ পৃথককরণ) ১২ দফা নির্দেশনা দিয়ে রায় দেওয়া হয়। ওই রায়ের ভিত্তিতে নিন্ম আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলা সংক্রান্ত বিধিমালা প্রণয়নের নির্দেশনা উল্লেখ করা হয়।