চলন্ত বাসে পোশাকশ্রমিককে গণধর্ষণ, গ্রেফতার ৩

প্রকাশিত: ৮:৪৩ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ২, ২০১৬

চলন্ত বাসে পোশাকশ্রমিককে গণধর্ষণ, গ্রেফতার ৩

সিলেট বাংলা নিউজ ডেস্কঃ টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলায় চলন্ত বাসে এক পোশাকশ্রমিক গণধর্ষণের ঘটনায় পুলিশ শনিবার ভোরে তিনজনকে গ্রেফতার করেছে।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন ধনবাড়ী উপজেলা সদরের জয়নাল আবেদীনের ছেলে বাসচালক হাবিবুর রহমান নয়ন, বাসচালকের সহকারী নিজবর্ণী গ্রামের মোতালেব হোসেনের ছেলে রেজাউল করিম জুয়েল এবং একই গ্রামের আরশেদ আলীর ছেলে আবদুল খালেক।

শুক্রবার সকালে টাঙ্গাইল-ময়মনসিংহ সড়কে এ ঘটনা ঘটে। গণধর্ষণের শিকার ওই পোশাকশ্রমিক টাঙ্গাইল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

বৃহস্পতিবার গাজীপুর থেকে ওই পোশাকশ্রমিক খালার বাড়ি টাঙ্গাইলের ধনবাড়ীর দত্তপাড়ায় বেড়াতে যান। শুক্রবার সকালে গাজীপুর আসার জন্য ধনবাড়ী বাসস্ট্যান্ড থেকে টিকিট কেটে বিনিময় পরিবহনের একটি বাসে ওঠেন। এ সময় বাসটির চালক ও দুই স্টাফ তাকে একাই নিয়ে রওনা হন।

পরে বাসটি গন্তব্যে না গিয়ে টাঙ্গাইল-ময়মনসিংহ সড়কের দিকে যেতে থাকে। এ সময় তিনি জিজ্ঞাসা করলে বাসের কর্মীরা তাকে মারধর করে বাসের সব জানালা-গেট বন্ধ করে তার হাত-পা ও মুখ বেঁধে ফেলেন। পরে বাসচালকসহ তিনজন তাকে ধর্ষণ করে বাস থেকে নামিয়ে দিয়ে চলে যান।

খবর পেয়ে ওই পোশাকশ্রমিকের স্বামী তাকে উদ্ধার করে শুক্রবার দুপুরে এ ঘটনার বিচারের দাবিতে টাঙ্গাইল শ্রমিক সংগঠনের কার্যালয়ে যান। পরে ঘটনার মীমাংসা করার জন্য ৬ এপ্রিল দিন ঠিক করেন শ্রমিকনেতারা।

ওই পোশাকশ্রমিককে টাঙ্গাইল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। হাসপাতালের গাইনি বিশেষজ্ঞ ডা. রেহেনা পারভীন জানান, মেয়েটির ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। রিপোর্ট পেলেই বিস্তারিত বলা যাবে।

টাঙ্গাইল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) নাজমুল হাসান ভূঁইয়া বলেন, ‘এ ঘটনায় ওই পোশাকশ্রমিকের স্বামী বাদী হয়ে নয়জনকে আসামি করে মামলা করেছেন।’

তিনজনকে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন টাঙ্গাইলের ধনবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি-তদন্ত) হাসান মোস্তফা।

ধর্ষণের ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে গ্রেফতারকৃত তিন শ্রমিককেই টাঙ্গাইল জেলা সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে জানান জেলা ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মীর লুৎফর রহমান লালজু।

 

ছড়িয়ে দিন