চিন্তার সমাবেশ

প্রকাশিত: ২:৩৩ অপরাহ্ণ, মার্চ ৩, ২০২৪

চিন্তার সমাবেশ

হাসিদা মুন

 

নিরাকার আবেগ প্রশমিত করা ‘কার্যকর চিন্তাটা’;
মনের কোণ খুঁজে পাচ্ছেনা সেই গতকাল থেকেই,
ঘুম থেকে জাগিয়ে টেনে তুল্লো ‘বিহিত করা’কে …

 

মোটামুটি -‘বুঝের দিক’
উঠে দাঁড়িয়ে চেঁচিয়ে বল্লো-‘অতি শীঘ্রই
মনের কাঁড়া নাকাড়া বাজিয়ে দাও
সরবে জীবনকে মেলে ধরো তুখোড় রৌদ্রে
ঝাঁঝিয়ে দাও খানিকটা ঝাঁকুনিতে ‘…

 

‘উচ্চাকংখা’
এসে গুরু গম্ভীর পায়চারী করলো খানিকক্ষণ ধীর পায়ে,
‘আনন্দদায়ক’-হেসে সামনে এসে দাঁড়াতেই
‘নৈতিক চিন্তাটা’
যে কিনা ওদের অধিনায়ক
গর্বের সাথে বাতাসে উড়াবে আজ প্রক্ষিপ্ত পাখা তার-
নীতিমালার চুড়াতে উঠে …

 

‘গর্ব, উৎফুল্ল করা চিন্তারা –
হাত নেড়ে বললো,’আমাদের আরেক কাপ চা দাও’
‘সহানুভূতি’ স্তব্দ পায়ে দরজায় দাঁড়ানো-
‘অন্তর্হিত’ তাঁর পাশে বন মোরগ ডাকা ভোর থেকে
প্রত্যাবর্তনের পথ চেয়ে আছে …

 

‘ঐশ্বরিক চিন্তা’টা
রক্তিম চোখে লম্বা হুইসেল বাজিয়ে
লাল বর্ণলিপিতে ‘ফাউল’ লেখা ধমক দেখালো,
‘মরণশীল চিন্তাটা’ সাহসী ভঙ্গীতে গান ধরলো …

 

ভাগ্যের বিন্যাসে শোভিত বাগান তোমার
পূর্ণতায় সাজাও প্রেমে,
সম্পদ নিক্ষেপ করো – যতোটা পারো
সহসা প্রেমানলে – গলে গলে …

 

আমরা এখন ঘোর স্বপ্নে লীন হবো,
সুদৃশ্য ঠোঁটের অদেখা প্রসবনে ক্ষয়ে ক্ষয়ে
কুটিল পৃথিবীর খরস্রোতে চলো ভেসে যাই –
নিরস্ত্র হৃদয়কে পুড়ে ছারখার হতে দিয়ো না,
গভীর খাঁড়িতে পড়তে দিওনা অকারণে …

চিন্তাদের সমাবেশে আবেশে দাঁড়িয়ে বললাম
এ যাবত বুঝেছি যে হাল –
অস্পষ্ট জীবন ফাঁদে ;কাঁদে অভিনব জীবনকাল.…..
*