চিরবিদায় নিয়েছেন নারী ভাষাসৈনিক সমেলা রহমান

প্রকাশিত: ৪:১৮ অপরাহ্ণ, জুলাই ২২, ২০২১

চিরবিদায় নিয়েছেন নারী ভাষাসৈনিক সমেলা রহমান

নীলফামারী প্রতিনিধি

চিরবিদায় নিয়েছেন নারী ভাষাসৈনিক সমেলা রহমান (৮৭)। তিনি নীলফামারীতে থাকতেন । সেখানেই করোনায় আক্রান্ত হন ।

বৃহস্পতিবার (২২ জুলাই) বেলা ১১টার দিকে নীলফামারী জেনারেল হাসপাতালের করোনা ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল কর্মকর্তা ডা. অমল রায় বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জেলা শহরের শাহীপাড়া কলেজ সড়কের স্থায়ী বাসিন্দা ভাষাসৈনিক ও সঙ্গীতশিল্পী প্রয়াত ওয়ালিউর রহমানের সহধর্মিণী ছিলেন ভাষা সৈনিক সমেলা রহমান ও নাট্য অভিনেত্রী সাহানা সুমীর মা। সমেলা রহমান চার মেয়ে, তিনি ছেলে ও নাতি-নাতনি এবং অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, চলতি বছরের ১৭ ফেব্রুয়ারি করোনার ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ ও ১৭ এপ্রিল দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণ করেছিলেন সমেলা রহমান। চলতি বছরের গত ৭ জুলাই র‌্যাপিড এন্টিজেন টেস্টে তার করোনা শনাক্ত হয়। পাশাপাশি বার্ধক্যজনিত নানা রোগে ভুগছিলেন এই ভাষাসৈনিক।

অবস্থার অবনতি হলে ৯ জুলাই তাকে নীলফামারী জেনারেল হাসপাতালের করোনা ইউনিটের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে নেয়া হয়। শ্বাসকষ্ট বেড়ে গেলে তাকে সেন্টার অক্সিজেন দিয়ে রাখা হয়েছিল।

সমেলা রহমানের ছোট ছেলে সুমন রহমান বলেন, ‘বাদ আছর নামাজে জানাজা শেষে শহরের পৌর কবরস্থানে মাকে দাফন করা হবে।’

সমেলা রহমানের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছেন নীলফামারী সদর আসনের সংসদ সদস্য আসাদুজ্জামান নুর, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি পৌর মেয়র দেওয়ান কামাল আহমেদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদীন প্রমুখ।

১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনে সোচ্চার ছিলেন নীলফামারীর ২৭ জন নারী-পুরুষ। যাদের নাম নীলফামারীর সরকারি কলেজের শহীদ মিনারে খোদাই করা রয়েছে। এই নামের তালিকায় ২৭ জনের মধ্যে রয়েছেন ১১ জন নারী। এদের মধ্যে শুধু একমাত্র বেঁচে ছিলেন সমেলা রহমান। তিনিও প্রাণঘাতি করোনায় আক্রান্ত হয়ে পৃথিবী ছেড়ে চলে গেলেন।

ছড়িয়ে দিন