জিলাপি ও বাখরখানি

প্রকাশিত: ১১:২৫ অপরাহ্ণ, মে ২৪, ২০১৯

জিলাপি ও বাখরখানি

শাহাদত বখত শাহেদ

আজ ধানমন্ডিতে বড় মামার বাসায় ইফতার করতে গিয়ে জিলাপি খেয়ে বেশ ভাল লাগলো,মচমচে মিষ্টি স্বাদ। মনা মিয়া (বাবুর্চি) প্রতিদিন এই জিলাপি নিয়ে আসে আজদা থেকে। এই জিলাপির ভিন্ন রকম স্বাদ ও নাম আছে যেমন মাঝারি,জাম্বু, বাচ্চা জিলাপি।

আজ যেটা খেলাম সেটা ত ছোট, তার মানে বাচ্চা জিলাপি। এই জিলাপি নাকি সবচে কাটতি। ঘি দিয়ে ভেজে জাফরান ও গোলাপ মিশ্রিত চিনির শিরায় ডুবিয়ে রাখা হয়। যার জন্য এই জিলাপি স্বাদে ঘ্রাণে অন্যরকম। এই জন্য বাচ্চা জিলাপির কেজি ৪০০/- টাকা। অন্যান্য জিলাপির চেয়ে দাম বেশি।

এই বাচ্চা জিলাপি আনতে হলে লাইনে দাড়াতে হয়। মনা মিয়া রোজ ৪টায় লাইনে দাড়ালে ৫টার মধ্যে নিয়ে আসেন। জিলাপি একদিকে তৈরি হচ্ছে অন্যদিকে গরম গরম বিক্রি হচ্ছে।

জিলাপি নিতে দূরদুরান্ত থেকে গাড়ি চড়ে আসেন জিলাপি প্রেমিরা। রমজান ছাড়া এই জিলাপি তৈরী হয়না- এ দেশে রমজানে চলে বেশি।

(জামান আল বোগদাদির ১৩ শতাব্দীর রান্নার বইতে জিলাপির ইতিহাস বর্ননায় বলেছেন মিশরের ইহুদীরা এই মুখরোচক খাবারটি আবিষ্কার করেছিল। ইরানে এই মিষ্টান্ন জেলাবিয়া নামে পরিচিত। মধ্য যুগে পারসি ভাষাভাষী তুর্কিরা খাবারটিকে ভারত বর্ষে নিয়ে আসে। বাংলাদেশে ইফতারিতে একটি জনপ্রিয় খাবার)।

মনা মিয়া হেসে হেসে বললেন- বড় মামা বাচ্চা জিলাপি ছাড়া ইফতারই করতে চান না। তাই প্রতিদিন আমাকে জিলাপি আনতে হয়। প্রতিদিন ২৫০ গ্রাম জিলাপি আমাদের লাগে। মেহমান আসলে ৪০০ গ্রাম। আজ আপনারা এসেছেন তাই ৪০০ গ্রাম আনলাম।

মনা মিয়া আরেকটি মুচকি হাসি দিয়ে বললেন- বড় মামার নাকি প্রতিদিন তারাবি নামাজের পর বাখরখানি আর গরুর দুধের চা চাই। তাই প্রতিদিন আমাকে পাপড় থেকে হাফ ডজন বাখরখানি আনতে হয়। তিনি প্রতিদিন বড় মগে দুধ চা’র সাথে দুটো বাখরখানি খান। বড় মামার দেখাদেখি ঘরের সবাই শুধু মামিমা ছাড়া এই মুখরোচক খাবার রপ্ত করেছেন। সাথে আমিও।

(মুনতাসীর মামুনের ঢাকার ইতিহাস গ্রন্থ থেকে জানা যায় মুঘল সুবেদার মুর্শিদ কুলী খানের মেয়ের জামাই আগা বাকেরের নাম থেকেই এই বিশেষ ধরনের রুটির নাম)।

আমি মনা মিয়ার কথা শোনে শোনে আফসোস করছি,আর ভাবছি, আমাদের মফস্বলে তো এত মুখরোচক জিলাপি ও বাখরখানি পাওয়া যায়না যা পাওয়া যায় তা সস্তা তেলে ভাজা আনারি হাতের তৈরী তার পরও এই জিলাপি ও বাখরখানি খেয়ে অনেকের আনন্দের সীমা থাকে না।

Calendar

February 2021
S M T W T F S
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
28  

http://jugapath.com