জীবনসমগ্র

প্রকাশিত: ৮:২১ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১, ২০২৩

জীবনসমগ্র

হাসিদা মুন

 

স্পর্শ করে থাকো চোখ
স্পর্শ করে থাকো ওষ্টধর
স্পর্শ করে থাকো অন্তর
দেখো টিয়ার সবুজ রঙের মতো পরিষ্কার দিন
এই যে গতকাল- ওইযে গত বছরের দিকে যাচ্ছে
বর্ষার ফুলের রেণুর মতো আলাদা মেজাজে
পায়ের কাছে এসে নত হয় বৃষ্টিভেজা দিনকাল …

 

বাসিন্দারা যার যার চৌহদ্দিতে কর্কের মতো হালকা
এই যে পরিচিত পরিবারসমূহ
ভ্যালেন্টাইনের ভালোলাগা মুখ
এসব সুখ সংগ্রাহককে খুশি করতে পারে,
ভালো সত্যকে -খারাব মিথ্যারা এসে বাজিয়ে দ্যাখে …

 

মাঝ আকাশে থেমে যাওয়া মেঘগুলি
যেনো ভিক্টোরিয়ান কুশন-আকাশে অভিনব উড়ে যায়
দূরের ল্যান্ডস্কেপ আরো খোলামেলা
আলো নিভে যায় – অন্ধকার বৃত্তের ভিতর ঘোরে
ছায়া টেনে নিয়ে যায় চাঁদ নিঃশব্দের বসবাসে
কোনো সংযোগ ছাড়াই রাতকে খন্ড করে ভোর …

 

প্রচলিত চৌক ঘর – ছবিতে চ্যাপ্টা হয়ে থাকে সমতলে
প্রবেশের জন্য বাস্তবে সবখানেই অনেকগুলি মাত্রা রয়েছে
একা ছেড়ে দেয়া ভবিষ্যত ওড়ে – এক ধূসর সিগাল’
বিড়াল স্বরে’ প্রস্থানের কণ্ঠে ছটফট করে ডাকে …

 

বয়স আতঙ্কিত নার্সদের মতো এসে
শরীরের সাথে দেখা করে রুটিন মাফিক,
স্বজনেরা প্রত্যেকেই স্থায়ীভাবে ব্যস্ত নিজের উদ্ধারে-
ডুবে যাওয়া এক একজন মানুষ
প্রচণ্ড ঠান্ডার অভিযোগ করে শেষ সময় –
যখন জীবন জনসমুদ্র থেকে হামাগুড়ি দিয়ে উঠে এসে
মৃত্যুর দিকে হেঁটে যায়….