ঢাকা ১৪ই জুলাই ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩০শে আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৮ই মহর্‌রম ১৪৪৬ হিজরি


টরন্টোতে সজনার অভিনব চাষ : আকর্ষণীয় কিছু তথ্য

redtimes.com,bd
প্রকাশিত এপ্রিল ২, ২০২১, ১১:৫৮ অপরাহ্ণ
টরন্টোতে সজনার অভিনব চাষ : আকর্ষণীয় কিছু তথ্য

 

ননীগোপাল দেবনাথ

সজনা গাছের ফল ও পাতা দুটিই খাওয়া যায়। পৃথিবীর সবচেয়ে পুষ্টিকর ঔষধি বলে সজনা পরিচিত। গবেষকরা সজনা পাতাকে বলে থাকেন অলৌকিক পাতা এবং সজনা গাছকে বলা হয় চিকিৎসক গাছ, কেউ বা সুপার ফুড গণ্য করে, কারণ সজনার পাতা এবং ফল উভয়ের মধ্যেই থাকে বিপুল পুষ্টির সম্ভার।

সাধারণত গ্রীষ্ম প্রধান অঞ্চলে এই উদ্ভিদ জন্মায়। তাই আমরা যারা বিশ্বের উষ্ণ অঞ্চল থেকে এসে কানাডার অভিবাসী হয়েছি, সবাই মোটামুটি সজনার মাহাত্ম্য সম্পর্কে কম বেশী জ্ঞাত। তবু আজ এই নিবন্ধে সজনা নিয়ে আমার লেখার প্রয়াস একটু ভিন্ন। আশাকরি নি কানাডাতে কেউ তার আঙিনায় দেশী সবজির সাথে সজনার মত এমন উপকারী উদ্ভিদ চাষের কথা ভাববেন! শুধু ভাবাই নয় বীজ সংগ্রহ করে চারা করে পরিচর্যার দ্বারা গাছ বড় করে পুষ্টি সংগ্রহ করেছেন যিনি, বিগত গ্রীষ্মে অভিনব পদ্ধতিতে, তার কথা কিছু চর্চা করা প্রয়োজন মনে করছি। যেন কানাডায় বসবাসকারী আমাদের সকল বাঙালি আঙিনা কৃষিতে রপ্ত বন্ধুগণ উৎসাহ বোধ করেন ও অনুপ্রাণিত হন। গ্রীষ্মে চাষের সময় প্রায় সমাগত, তাই আগেভাগে কিছু তথ্য পেলে সজনা চাষের ইচ্ছা পোষণ করলে প্রস্তুতি নিতে পারবেন।

 

গত বৎসর টরন্টোতে আঙিনা কৃষি সময়টা খুব কঠিন দিন ছিল লকডাউনের কারণে, আজো যদিও অবস্থা অনেকটা তথৈবচ। আমি ব্যক্তিগতভাবে লেখালেখির সাথে সাথে কিছুটা আঙিনা কৃষি করে থাকি। আঙিনা চাষী বন্ধুদের সাথে ফোনালাপে পরামর্শ আদান প্রদান করাও আমাদের মত আনাড়ী কৃষকদের বিশেষ উৎসাহ ব্যঞ্জক এক কাজ বটে। একদিন ফোনালাপে আমার মত আর এক চাষী বন্ধু বাসুদেব ধর জানিয়েছিল তার বাড়ির সন্নিকটে আর এক আঙিনা চাষী সজনা লাগিয়েছে এবং গাছ খুব বড় হয়েছে। আমার অনুসন্ধিৎসু মন আর স্থির থাকতে পারেনি, টরন্টোতে সজনা গাছ! কল্পনাই করতে পারছিলাম না, তড়িঘড়ি যোগাযোগ করে, মাস্ক পরে স্যানিটাইজার হাতে নিয়ে পৌছে গেলাম সজনা তলায়, কিংস্টন ও কেনেডী রোডের সংযোগ স্থলের নিকটবর্তী একটি বাড়ির আঙিনায়। সেখানে আমাদের অপেক্ষায় ছিলেন আঙিনা ও সজনা তলার মালিক যুগল এ, কে, এম তৌফিক আজিজ ও রাফি আক্তার ডলি। সাক্ষাতের পর কুশল বিনিময়, পরপরই আমার প্রশ্ন ছিল, সজনার চাষ করতে হবে এ কথা তাদের ভবনায় কী করে উদয় হয়েছিল। উত্তরে আজিজ বলেছিলেন অভিনব কিছু পরীক্ষণ তাদের এক প্রকার খেয়াল (হবি)। ইতোপূর্বে গতবার তারা এবোকেডো গাছও লাগিয়েছিলেন, শীতকালটা বেইজমেন্টে নিয়ে রেখেছিলেন, দেখলাম এখন আঙিনায় বেস বড়সড় হয়েছে যদিও টবে লাগানো রয়েছে। আজিজ আরো জানিয়েছিলেন, সজনার কথা মাথায় এলে বীজ সংগ্রহের অপূর্ব কাহিনী। প্রথম তিনি আমাজনকে অর্ডার দিয়ে দীর্ঘদিন কোন উত্তর না পেয়ে চীনের এক কোম্পানির সাথে যোগাযোগ করলে সল্প সময়ের মাঝে বীজ পাঠিয়ে দেয়, যদিও চড়া দাম নেয়। আমাজন অবশ্য টাকা ফেরত পাঠায়, পরে আবার বিলম্বের জন্য ক্ষমা চেয়ে বীজও সংগ্রহ করে পাঠায়। আমাজনের কর্তব্যপরায়ণতার জন্য ধন্যবাদ দিতেই হয়। যাক বীজ পেয়ে আজিজ ও ডলি চারা করেন, কয়েকটি চারা বড় টবে লাগান, বাকী আঙিনায় মাটিতে পুঁতে লাগান।আমরা যে দিন তাদের আঙিনায় গিয়েছিলাম সজনা গাছ লম্বায় প্রায় ৭ ফুট এবং শাখা প্রশাখা বিস্তৃত বড় বড় সবুজ ঘন পাতা দেখে কানাডার মাটিতে যেন বাংলার সজনার ঘ্রাণ পেয়েছিলাম। এখানে স্পষ্ট করে আজিজ ও ডলি আরো বলেছিলেন টবে লাগানো চারা গ্রীষ্মের শেষে শীত মৌসুমে বাড়ির বেজমেন্টে নিয়ে পরিচর্যায় রাখবেন এবং পরবর্তি উষ্ণ আবহাওয়া আসলে আঙিনায় পুনঃ নিয়ে আসবেন। এবোকেডোর জন্য তাদের এই পদ্ধতি সফল হয়েছিল। দ্বিতীয়ত মাটিতে পোঁতা সজনা গাছ শীতের তাপমান হিমাঙ্কের নীচে যাওয়ার আগেই ডাল পালা কেটে দিয়ে ফোম বা ভারী কিছু আবরন দিয়ে ঢেকে দিবেন। এই দুই পদ্ধতির কোনটি পূর্ণ সাফল্য আনবে তা তাদের জানা নেই। তবে একটি সফলতা আজিজ ও ডলি যুগল ভোগ করেছেন ইতোমধ্যে, সেটি হল গ্রীষ্মের মৌসুমটা ঔষধি সজনা পাতা তাদের প্রাত্যহিক ব্যঞ্জনের অংশ ছিল।

পরিশেষে সজনার পুষ্টিগুণ ও খাদ্যে আমাদের উপকারীতার উল্লেখ করা বাঞ্ছনীয় মনে করছি। সজনাতে প্রচুর পরিমাণে জিঙ্ক, আয়রণ, ভিটামিন সি ও এ বিদ্যমান। রক্ত স্বল্পতা সহ বিভিন্ন ভিটামিন ঘাটতি জনিত রোগের বিরুদ্ধে বিশেষভাবে কাজ করে। এটি মায়ের বুকের দুধ বৃদ্ধিতে সহায়তা করে কোন প্রকার পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া ছাড়াই। সজনাতে এন্টি-ব্যাকটেরিয়াল বৈশিষ্ট্য বিদ্যমান। এটি যকৃত ও কিডনী সুস্থ রাখতে এবং রূপের সৌন্দর্য বর্ধক হিসেবে ও কাজ করে থাকে।তাছাড়া ক্যান্সারের বিরুদ্ধে সহায়ক ভূমিকা পালন করে। সজনা শরীরে কোলেস্টেরল এর মাত্রা নিয়ন্ত্রণের অন্যতম উপাদান।

আশা করি কানাডার আঙিনা কৃষকগণ আজিজ ও ডলি মত সজনা চাষে উদ্বুদ্ধ হয়ে পুষ্টির সুফল আহরণে সচেষ্ট হবেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

July 2024
S M T W T F S
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
28293031