ট্যুরিজম সেক্টরকে নিয়ে মাস্টারপ্লান,যুক্ত হবে শ্রীমঙ্গল

প্রকাশিত: ৭:৩১ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২৯, ২০২০

ট্যুরিজম সেক্টরকে নিয়ে মাস্টারপ্লান,যুক্ত হবে শ্রীমঙ্গল

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি: বাংলাদেশ ট্যুরিজম সেক্টরকে এগিয়ে নিতে মাস্টারপ্লান (মহাপরিকল্পনা) প্রনয়নের কাজ হাতে নেওয়া হয়েছে। এ পরিকল্পনা প্রনয়নে সারা দেশের পর্যটন স্পটের সাথে শ্রীমঙ্গলকেও সংযুক্ত করা হবে। এতে প্রতিটি দর্শনীয় স্থানে বিশুদ্ধ পানি, পরিচ্ছন্ন টয়লেট, ড্রেস চেঞ্জ রুম, ব্রেস্ট ফিডিংসহ নানান সুবিধা থাকবে। এছাড়া সারা দেশের ট্যুর অপারেটরদের ডাটাবেজ করে তাদের তালিকা তৈরি করা হবে।

 

বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড কর্তৃক আয়োজিত শ্রীমঙ্গলের ট্যুর অপারেটরদের নিয়ে দুই দিনব্যাপী ভার্চুয়াল প্রশিক্ষণ কর্মশালার সমাপনি দিন মঙ্গলবার (২৯ ডিসেম্বর) প্রথম সেশনে এসব তথ্য জানান বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ও অতিরিক্ত সচিব জাবেদ আহমেদ।

 

তিনি বলেন, ইতিমধ্যে ট্যুরিজম বোর্ড পর্যটন খ্যাতকে গতিশীল করার লক্ষ্যে কাজ শুরু করেছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ জীবন এবং জীবিকা একসাথে চলতে হবে। তাই মার্চের ২৬ তারিখ থেকে প্রায় দীর্ঘ ছয় মাস লকডাউনের পর বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) এর গাইড লাইন মেনে ডমোস্টিক ট্যুরিষ্টদের জন্য স্পটগুলো জেলা প্রশাসকদের সুপারিশে আমরা খোলে দিয়েছি। এখন কক্সবাজারসহ প্রথম সারির সবগুলো স্পটগুলোতে ব্যস্থ সময় কাটাচ্ছেন ওই এলাকার ব্যবসায়ীরা। তারা রমরমা ব্যবসা করছে এই সিজনে। যদিও ইন্টারন্যশনাল এরাইবাল বন্ধ, এটা সারা বিশ্বেই। মানুষ দীর্ঘদিন বাসায় বন্দি থেকে তারা সুযোগ খুঁজছিল বের হবার।

 

অতিরিক্ত সচিব জাবেদ আহমেদ সকল পর্যটকদের অনুরোধ করে বলেন, কভিড-১৯ সিচুয়েশনে খাবারের হোটেলে গেদারিং না করে খাবার কিনে রুমে গিয়ে খেতে পারেন। আর বাহিরে বের হলে অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করবেন। কভিড সিকিউরিটি নিজের জন্য নিজেকেই নিতে হবে। আর না হয় বিপদ যেকোন মূহুর্তে আসতে পারে। কারন, আমাদের বড় ব্যর্থতা তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার আমরা বাহিরের দেশের মতো এখনো করতে পারছিনা। ডাব্লিউএইচও এর নির্দেশনা মেনে আমাদের চলতে হবে। করোনার দ্বিতীয় ঢেউকে মোকাবেলা করতে প্রস্তুতি থাকতে হবে।

 

দুই দিনের ভার্চুয়াল প্রশিক্ষণে আরো অংশগ্রহণ করেন বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড এর পরিচালক আবু তাহের মোহাম্মদ জাবের, উপ পরিচালক মো. সাইফুল হাসান, সহকারী পরিচালক বুরহান উদ্দিন, ট্যুর অপারেটর অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (টোয়াব) এর পরিচালক (অর্থ) মো. মনিরুজ্জামান মাসুম।

 

এতে ট্যুর গাইড ও ট্যুর অপারেটর অ্যাসোসিয়েশন অব মৌলভীবাজারের আহ্বায়ক এবং অ্যাডভেঞ্জার ট্যুরিজমের সিইও মো. খালেদ হোসেন, শ্রীমঙ্গলস্থ স্মার্ট ট্যুরিজমের সিইও এম এ রকিব, অরিয়েন্ট ট্যুরিজমের পরিচালক সৈয়দ রিফাত জামান রিজভী।

 

লিটন ইকো ট্যুরিজমের সিইও লিটন দেব, ভিজিট মৌলভীবাজারের চেয়ারম্যান মো. তাজ উদ্দিন, ঘুড়ি ট্যুর এন্ড ট্রাভেল এর পরিচালক এনামুল হক, ইউরবাংলা ট্যুরের পরিচালক তানভিরুল আরেফিন লিংকন, এয়ারলিফট ট্রাভেল এন্ড হলিডে এর স্বত্বাধিকারী সাকের আহমেদ পাপন, ন্যাচার ট্যুরিজমের পরিচালক আব্দুল আহাদ, শ্রীমঙ্গল ট্যুরস সার্ভিস এর এখলাছ তরফদারসহ ১৪ জন ট্যুর অপারেটর এতে অংশগ্রহণ করেন।