ট্র্যাভেল কার্নিভাল

প্রকাশিত: ৯:০১ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৭, ২০২১

ট্র্যাভেল কার্নিভাল

 

 

হোমায়েদ ইসহাক মুন
বাংলাদেশ ট্রাভেল রাইটার্স এসোসিয়েশন এর আয়োজনে দ্বিতীয় বারের মত হয়ে গেল ট্র্যাভেল কার্নিভাল। গত শনিবার ৩রা সেপ্টেম্বর ২০২১ এই আয়োজন হয় উত্তরার সেক্টর-৪ এ অবস্থিত ফেইত ওভারসিস লিমিটেড এর অফিসে। গতবারের সফল আয়োজনের পরে এবারে লেখকদের কাছ থেকে ব্যপক সাড়া পাওয়া গেছে। তাঁরা অনেকেই অংশগ্রহণ করতে আগ্রহ প্রকাশ করেছেন তবে আসন সীমিত হওয়ায় সবার সঙ্কুলান করা যায়নি, ভবিষ্যতে এই আয়োজন আরো বড় পরিসরে হবে এমনটা জানালেন ট্র্যাভেল রাইটার্স এসোসিয়েসনের সভাপতি আশরাফুজ্জামান উজ্জ্বল । শুরুতে পরিচয় পর্ব দিয়ে অনুষ্ঠান সঞ্চালন করেন ট্র্যাভেল রাইটার্স এসোসিয়েশন এর নির্বাহী কমিটির সদস্য শাকিল বিন মুশতাক। এরপর একে একে আংশগ্রহনকারী লেখ্করা তাদের পরিচয়পর্বের সাথে সাথে বিস্তর অভিজ্ঞতার ঝাপি খুললেন সবার সামনে। এত দেশ-দেশান্তরে ঘুরার অভিজ্ঞতা আর বই এর সংকলন সমেত আলোচনা সবাইকে সমৃদ্ধ করেছে। কার্নিভালে উপস্থিত ছিলেন, ড. এস এম ইলিয়াস, জেসমিন মুন্নি, মাজেদুল হাসান, আনিসুর রহমান, ফারিদুর রহমান, রেজাউল হায়দার খান, জাকারিয়া মন্ডল, শাহীন চৌধুরী, মউদুদুল আলম, মাহবুব আলম, আশিক সারওয়ার, ডাক্তার নিবেদিতা নারগিস পান্না, জাহাঙ্গীর আলম শোভন, হিমেল, কাজি জিয়াউল বাপ্পী, হোমায়েদ মুন- প্রমুখ । পরিচয় পর্বের পরে সভাপতি আশরাফুজ্জামান উজ্জ্বল সবাইকে এই ট্র্যাভেল কার্নিভালের ব্যাপারে বিস্তারিত এবং অনেক তথ্যবহুল আলোচনা করেন। তিনি উল্লেখ করেন, সম্প্রতিকালে ভ্রমণের বইয়ের বিশাল এক তালিকা তৈরি করছেন, যেখানে বাংলা ভাষায় ভ্রমণ বিষয়ক প্রায় ১৩০০ বই রয়েছে। এই তালিকা করতে গিয়ে তিনি বিস্মিত হয়েছেন যে, বাংলাদেশে জন্ম নেওয়া শঙ্কু মহারাজ (ছদ্দ নাম) নামে একজন ভ্রমণ লেখকের প্রায় ৪০টির উপরে বই রয়েছে যা কিনা ভূ-পর্যটক রামনাথ বিশ্বাস কেও ছাড়িয়ে গেছে। এছাড়াও সৈয়দ মুজতবা আলীর উপরে কাজ করছেন আশরাফুজ্জামান উজ্জ্বল । তাঁর ওপর পিএইচডি ডিগ্রী নিচ্ছেন ৪জন শিক্ষার্থী , তার মধ্যে তিনজন কোলকাতা থেকে আর একজন বাংলাদেশে থেকে গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছেন। ভবিষ্যতে ভ্রমণ বিষয়ক একটি বই মেলার আয়োজন এবং আগামী বছর ট্র্যাভেল বিষয়ক এওয়ার্ড প্রদান করার পরিকল্পনার কথা তিনি সবাইকে অভহিত করেন।
অনুষ্ঠানের শুরুতে লেখক এবং গবেষক জাকারিয়া মন্ডল ভ্রমণ বিষয়ক লেখালেখি করতে কি কি বিষয়ে দৃষ্টি দিতে হবে, সে ব্যাপারে বিস্তারিত আলোকপাত করেন। তিনি ইবনে বতুতা থেকে শুরু করে র‍্যালফ ফিচ, নিকোলাই মানুচ্চি, বিশপ হেবার এর মত পৃথিবী ঘুরে দেখা পরিব্রাজকদের সবার সামনে উপস্থাপন করেন। ভ্রমণের সাথে সাথে ইতিহাস ঐতিহ্যকে জানা, এ বিষয়ে পড়াশোনা করা এবং তা নিয়ে লিখার ব্যাপারেও সকলকে উদ্ভুদ্ধ করা হয়।
এরপর বই নিয়ে আলোচনা করেন ভ্রমণ লেখক ফরিদুর রহমান। তিনি মূলত সাংবাদিকতার সাথে যুক্ত। সেই সুবাধে ঘুরে বেড়িয়েছেন ৩৯টি দেশে। নানা বিষয়ে তাঁর ২৪টি বই রয়েছে তার মধ্যে ভ্রমণ বিষয়ক বই আছে ৫টি। নিয়মিত কলাম লেখেন দৈনিক কালের কন্ঠ-তে। সাপ্তাহিক অনন্যা ম্যগাজিন এ তিনি তাঁর বাল্টিক ভ্রমণ নিয়ে নিয়মিত লিখছেন। ‘বার্লিনে বসন্তের দিন’ – বইটি নিয়ে লেখক আলোচনা করেন। বার্লিনে ঘুরাঘুরি নিয়ে তাঁর নানা অভিজ্ঞতা সবার সামনে তুলে ধরেন। জার্মানিতে লেখক অনেকবার গিয়েছেন তাঁর প্রথম বার্লিনে যাওয়ার অভিজ্ঞতা নিয়ে এই বইটি লিখেছেন। এছাড়াও ‘নানা রঙের আফ্রিকা’ ও ‘দূরদেশে’ বইগুলো নিয়েও আলোচনা করেন লেখক।
নিজের ভ্রমণ নিয়ে আলোচনা করেন ভ্রমণ লেখক আনিসুর রহমান। তাঁর বই ‘টেকনাফ থেকে টেষনফ’ নিয়ে অভিজ্ঞতা বর্ণনা করেন। চোখ এবং হৃদয় দিয়ে যদি ঘোরা যায় তাহলে লিখতে অনেক সহজ হয়। তিনি ছোট বেলা থেকে সৈয়দ মুজতবা আলীর লেখা পড়েছেন এবং ভ্রমণের নেশা তৈরি করেছেন।
লেখক ডক্টর এস এম ইলিয়াস শিক্ষকতা করেন । তিনি বেশ রসিক মেজাজে আমাদের তাঁর ইরান সফরের গল্প বলেছেন। তাঁর ভ্রমণের বইগুলোর মধ্যে আছে ‘দূরদেশ’, ‘জ্ঞানের দেশ চীন’, ‘স্বপ্নের স্বর্গ যুক্তরাজ্য’, ‘নয়ন ভরে দেখা’। এই বই গুলো নিয়ে তিনি আলোচনা করেন। তেহরান এ তিনি একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের আমন্ত্রনে সেখানে গিয়েছিলেন। একদিনের সময় বের করে ওমর খৈয়াম এর মাজার দেখতে মাশহাদ ঘুরতে গেলেন। ঘুরার ভাগ্যটা সেবার ভালো ছিল, আবহাওয়ার কারনে ফ্লাইট পিছিয়ে গেলো এক সপ্তাহ। এই সুযোগে তিনি বেশ কিছু জায়গা ঘুরে বেড়িয়েছেন। বিচিত্র সে অভিজ্ঞতা আর স্মৃতি হাতড়ে আমাদের বলে চলেছেন সেই গল্প। ইরানের রাস্তা আর গ্রাম অসাধারন। লন্ডন থেকে ভেনিস যাত্রায় ইংলিশ চ্যনেলের নিচে টানেল দিয়ে যাওয়ার গল্প শোনালেন।
বই নিয়ে কথা বলেন সাংবাদিক লেখক শাহীন চৌধুরী। তিনি বাংলা সাহিত্য নিয়ে পড়াশোনা করেছেন। এ পর্যন্ত উপন্যাস কবিতা সহ তাঁর ১৪টি বই বের হয়েছে। তাঁর লেখা ভ্রমণ সাহিত্যের মধ্যে রয়েছে ‘গ্রেট ওয়াল থেকে নায়াগ্রা’ ও ‘সিউল থেকে লং আইল্যন্ড’। সাংবাদিকতার সুবাধে দেশ-বিদেশে বিস্তর ঘুরাঘুরির সুযোগ হয়েছে তাঁর, আর এইসব অভিজ্ঞতার কথাই তিনি বলেছেন সবার সাথে।
মউদুদুল আলম একজন চিত্রশিল্পি ও আলোকচিত্রি। তাঁর ৬৬তম জন্মদিনে কেক কেটে তা উদযাপন করা হয়। তিনি বলেন, ‘ছবি তোলার সাথে ঘোরাঘুরির বিস্তর সম্পর্ক রয়েছে। আর চারুকলার ছাত্র হওয়ার সুবাধে আমার মনে সবসময় রঙ ঘুরে বেড়ায়, আলোর খেলা দেখতে পাই। মনের আলোটাই সবচেয়ে বড় আলো বলে আমার কাছে মনে হয়। মানুষের কাছাকাছি গেলে তার দেখা পাওয়া যায়। এখানে যুক্ত হতে পেরে আমি আনন্দিত’ । তিনি তাঁর কাশ্মীর ভ্রমণের মজার অভিজ্ঞতা বর্ণনা করেছেন।
কথা বলেন বইপিডিয়ার প্রকাশনীর প্রকাশক আশিক সারোয়ার। রামনাথের লিখা ‘অন্ধকারে আফ্রিকা’ নতুন করে আবার প্রকাশ করেছেন। প্রকাশকের কাছে অনেকে প্রশ্ন করেছেন নতুন লেখকদের বই বের করতে তারা কি ধরনের পদক্ষেপ নিবেন?
মাহবুব আলম, সাংবাদিক এবং ভ্রমণ লেখক। তিনি বলেন লেখার জন্য অন্যরকম একটি চোখ থাকতে হয়। তিনি ৮০দশকের প্রথম দিকে প্রথম থাইল্যন্ড ভ্রমণ করছেন, সেই সময়কার থাইল্যন্ড নিয়ে তাঁর অভিজ্ঞতা বললেন। ৯১সালে তিনি সরকারি সফরে উত্তর কোরিয়া গেলে মাউন্ট কুমগন-এর যাওয়ার সুযোগ হয়েছিল্ এবং তাঁকে সর্বোকনিষ্ট হওয়ায় টিম লিডার করা হয় সেই সব বিচিত্র অভিজ্ঞতা সবার সামনে উপস্থাপন করেন।
কার্নিভালে ভ্রমণ লেখকদের বইগুলো প্রদর্শনী ও বিক্রির ব্যবস্থা করা হয়েছিল। ভ্রমণ লেখকদের নিয়ে এধরনের প্রানবন্ত আয়োজনে সবাই আয়োজকদের সাধুবাদ জানায় । এমন আয়োজন প্রতিমাসেই হবে বলে আয়োজকরা আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

ছড়িয়ে দিন

Calendar

September 2021
S M T W T F S
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
2627282930