তসলিমা নাসরিন আসলে আগামী পৃথিবীর বন্ধু

প্রকাশিত: ১০:৩৮ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ২৮, ২০২৩

তসলিমা নাসরিন  আসলে আগামী পৃথিবীর বন্ধু

মুশফিকা লাইজু 

·
২৫ শে আগষ্ট ছিল নির্বাসিতা লেখক  তসলিমা নাসরিনের জন্মদিন।

আসলে শুধুমাত্র জন্মদিন নয় প্রতিবার প্রবল ভা‌বে ফি‌রে আসা এবং নব নব উত্থান।

প্রতিটা জন্মদিনের সে দ্বিগুণ, তিনগুন, চারগুণ হয়ে বাঙালি নারী এবং বাংলাদেশের প্রগ‌তিশীল , অসম্প্রদা‌য়িক এবং স‌চেতন মানুষের জীবনে ফিরে ফিরে আসে।

তার লেখা না পড়ে তাকে না জেনে যারা তাকে ঘৃণা করে তাদের মধ্য থেকে প্রতিবার তা‌কে ভালবাসার মানু‌ষের সংখ‌্যা বে‌ড়ে যায়। কেন ঘৃণা করে সেই বিষয়টি তাদের মাথার মধ্যে প্রশ্ন তোলে? তারা তখন বই খুঁজে বই পড়ে। তসলিমা নাসরিনের প্রকাশনার ছোটখাটো একটি লাইব্রেরী আমার নিজের আছে। বেশ কয়েকজন আমাকে ইনবক্সে নক করে বলেছে যে জীবনে অন্তত একটা তার বই পড়তে চাই। এর মধ্যে কয়েকজন রক্ষণশীল নারী ও আছেন।
প্রতিবার তসলিমা নাসরি‌নের জন্মদিন মানে বাংলাদেশের প্রথিতযশা তথাকথিত প্রগতিশীল লেখকদের এক একটা ধাক্কা। যে সকল প্রগতিশীল লেখকরা তসলিমার ক উপন্যাসে বিষয়বস্তু হয়ে ছিলেন।
তসলিমা নাসরিনের প্রতিটি জন্মদিন এদেশের বুদ্ধি বেচা জীবিদের মনে করিয়ে দেয় যে তারা ভেজা গাব পাতার মতন জীবন যাপন করে। তারা কখনোই একযোগে তসলিমা কে দেশে ফিরিয়ে আনার ব্যাপার সোচ্চার হয়নি। কারণ তসলিমার জনপ্রিয়তায় তসলিমার সাহস, তসলিমার স্বদর্প প্রকা‌শে তারা ভীত সন্ত্রস্ত থাকে। সুতরাং তসলিমা নাসরিন শুধু জঙ্গি জামাতের শত্রু নয়। তসলিমা এদেশের জঙ্গি দোষে দুষ্ট রাষ্ট্র ব্যবস্থাপনারও শত্রু। প্রগতিশীল বুদ্ধিজীবী লেখকদের শত্রু।
তসলিমা শুধু আমার বন্ধু, আমাদের বন্ধু, নারীবাদের বন্ধু, আপসহীনাদের বন্ধু।তসলিমা নাসরিন আসলে আগামী পৃথিবীর বন্ধু। বর্তমান সময়ের বন্ধু, নিপীড়িতের বন্ধু।
আরো অনেক অনেক অনেক বছর আপনি বেঁচে থাকুন। বিপুল বৈভ‌বে বিপুল শক্তিশালী হয়ে প্রতি বছর আপনার জন্মদিন ফিরে ফিরে আসুক।
আমরা আজ বু‌ঝে গে‌ছি, জে‌নে গে‌ছি এ‌দে‌শে কর‌র্পো‌রেট বেশ‌্যা, দালাল, ঋন‌খেলাপী, জ‌ঙ্গি জামাত , ধর্ষক , ওয়াজী মিথ‌্যূক হুজুর, রাজাকার‌দের বসবাস করার অ‌ধিকার আ‌ছে শুধু সত‌্য প্রকাশ করা মানু‌ষের বসবাস করার অ‌ধিকার নেই ।

 

মুশফিকা লাইজু  ঃ লেখক, মানবাধিকার নেত্রী