তারেকের জন্য বিএনপি’র ইফতার পার্টি

প্রকাশিত: ৭:৫৭ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৮, ২০২৪

তারেকের জন্য বিএনপি’র ইফতার পার্টি

 

নিজস্ব প্রতিবেদক

কম আয়ের মানুষের কথা বিবেচনা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষণা দিয়েছিলেন যে- তিনি গণভবনে কোন ইফতার মাহফিলের আয়োজন করবেন না। একইসঙ্গে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের ইফতার মাহফিল আয়োজন না করে মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। প্রধানমন্ত্রীর আহ্বানে সাড়া দিয়ে একেবারে তৃণমূল পর্যায় পর্যন্ত ইফতার মাহফিল না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তবে অন্যপথে হাঁটছে বিএনপি। দেশব্যাপি ইফতার মাহফিল আয়োজনের সাংগঠনিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিএনপি। তাদের ইফতার মাহফিলের প্রতিপাদ্য – বেগম খালেদা জিয়ার রোগ মুক্তি ও বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের দীর্ঘায়ূ কামনা। অর্থাৎ তারেক রহমানের আয়ু বাড়াতে দেশব্যপি বিএনপির ইফতার মাহফিলের আয়োজন।

পবিত্র রমজান মাসে গরীব ও দুঃস্থ মানুষের জন্য ভেবেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তার এমন সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছেন সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা। এজন্য তার আহ্বানে সাড়া দিয়ে মাঠে নেমে পড়েছেন আওয়ামী লীগের বিভিন্ন অংগসংগঠন। রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্তে সাধারন মানুষের পাশে থেকে দিচ্ছে খাবার এবং ইফতার সামগ্রী। রমজানে আওয়ামী লীগ কোনো ইফতার পার্টি করবে না বলে জানিয়েছেন দলটির সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

মাসব্যাপী ইফতার সামগ্রী বিতরণের উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। রমজান মাসে ইফতার পার্টি না করে সেই অর্থ দিয়ে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর অনুরোধ জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সে লক্ষ্যে দলীয় নেতাকর্মীদের নির্দেশনাও দিয়েছেন তিনি। সেই নির্দেশনার অংশ হিসেবেই ছাত্রলীগ দেশ জুড়ে ইফতার সামগ্রী বিতরণের এই কার্যক্রম শুরু করেছে বলে জানিয়েছেন ছাত্রলীগের উপ-ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আমির হামজা। পাশাপাশি প্রতিদিন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনের সামনে হাজারো মানুষকে ইফতার করাচ্ছে ছাত্রলীগ।

রমজানে আওয়ামী লীগের কার্যক্রম সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, “আমরা রমজান ইফতার পার্টি করতাম। এবার রমজানে আমরা ইফতার পার্টির না করে সব টাকা ও খাদ্য সাধারণ মানুষের মধ্যে বিলিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমরা মানুষের জন্য কাজ করি। মানুষের কল্যাণে কাজ করি।”

ইসলামী চিন্তাবিদরা বলছেন, রমজান মাসে আলোচনা সভা ও ইফতার ‘পার্টির’নামে বিকৃত ভোগবাদী সংস্কৃতি ধর্মীয় ঐতিহ্যকে বিতর্কিত করে। রাজনীতির জন্য লোক দেখানো ইফতার ‘পার্টি’ না করে সেই অর্থ গরবী অসহায় মানুষের জন্য ব্যয় করলে আল্লাহ বেশি খুশি হবেন। আর রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, বিএনপি বরাবরই ধর্মকে নিজেরদের রাজনৈতিক হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করে। যেখানে সারা বিশ্বে অর্থনৈতিক মন্দা চলছে সেখানে বিএনপি বড় বড় হোটেলে ইফতার ‘পার্টির’ আয়োজন করে মানুষের সঙ্গে তামাশা করছে।
অন্যদিকে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার রোগমুক্তি ও তারেক রহমানের দীর্ঘায়ু কামনায় দেশব্যাপি ইফতার মাহফিল আয়োজন করছে বিএনপি। সাংগঠনিকভাবেই এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিএনপি। বিএনপি’র কোন পরিকল্পনায় সাধারণ মানুষের সঙ্গে সম্পৃক্ততা নেই।

এ কর্মসূচি পালনে জেলা বিএনপির নেতারা থানা-উপজেলায় ইফতার ও দোয়া মিলাদের তদারকি করবেন। আর উপজেলার নেতারা ইউনিয়নের ইফতার তদারকি করবেন। ইউনিয়ন নেতারা করবেন ওয়ার্ড পর্যায়ের ইফতার। আর জেলার ইফতার তদারকি করা হবে কেন্দ্র থেকে। সেখানে কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত থাকবেন। ইতোমধ্যে জেলার নেতারা কবে, কোথায় ইফতারের আয়োজন করবে কেন্দ্র থেকে সে তালিকা করেছে। গুরুত্বপূর্ণ জেলা শহরের ইফতারে ভার্চুয়ালি সংযুক্ত হয়ে বক্তব্য দেবেন দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

বিএনপি’র কেন্দ্রীয় নেতারা জানান, কেন্দ্রীয় বিএনপির পক্ষ থেকে চারটি ইফতারের আয়োজন হবে। ইতোমধ্যে প্রথম রোজায় এতিম ও আলেম-উলামাদের সম্মানে ইফতার-পূর্ব আলোচনা সভা হয়েছে। আগামী ২৪ মার্চ কূটনীতিক ও ২৮ মার্চ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাদের সম্মানে ইফতারের আয়োজনের কথা রয়েছে। এছাড়া পেশাজীবীদের সম্মানেও আয়োজন করা হবে ইফতার।

 

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

লাইভ রেডিও

Calendar

April 2024
S M T W T F S
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
282930