তুরস্কে শহিদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালের ৭২তম জন্মবার্ষিকী উদ্যাপন

প্রকাশিত: ১:১২ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ৬, ২০২১

তুরস্কে শহিদ ক্যাপ্টেন শেখ কামালের ৭২তম জন্মবার্ষিকী উদ্যাপন

০৫ আগষ্ট ২০২১/আংকারা ঃ তুরস্কের আংকারাস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস বীর মুিক্তযোদ্ধা শহিদ ক্যাপ্টেন শেখ
কামালের ৭২তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে এক বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে আজ । কোভিড-১৯ বিবেচনায় জন্মবার্ষিকী
অনুষ্ঠানটি জমু এ্যাপসের মাধ্যমে ভার্চুয়ালি উদ্যাপন করা হয়।
আলোচনা অনুষ্ঠানের শুরুতেই প্রাক্তন সংসদ সদস্য আবাহনী ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা জেনারেল সেক্রেটারি জনাব হারুনুর
রশিদ ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ডঃ মিজানুর রহমান এবং দুতাবাসের মিনিস্টার
ও মিশন উপ-প্রধান জনাব মোঃ রইস হাসান সরোয়ার-কে শেখ কামালের গৌরবময় কর্মময় জীবন ও বাংলাদেশের
মহান স্বাধীনতাযুদ্ধে তাঁর অংশগ্রহনের বিষয়ে স্মৃতিচারণমূলক বক্তব্য প্রদানের জন্য মান্যবর রাষ্ট্রদূত মসয়ুদ মান্নান,
এনডিসি আহ্বান জানান। অতপর উক্ত অনুষ্ঠানে শেখ কামালের জীবনকে কেন্দ্র করে নির্মিত দুটি প্রামাণ্য চিত্র
প্রদর্শন করা হয়।
আলোচনাপর্বে সকলেই বঙ্গবন্ধুর জেষ্ঠ্য পুত্র বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ কামালের জীবনের বিভিন্ন দিক নিয়ে তাদের আবেগ
ও অভিব্যক্তি তুলে ধরেন এবং ক্ষণজন্মা বহু প্রতিভার অধিকারী শেখ কামালের গৌরবময় জীবনের উপরে
আলোকপাত করেন। রাষ্ট্রদূত তাঁর বক্তব্যে বঙ্গবন্ধুর জেষ্ঠ্য পুত্র শেখ কামালের বহুমুখী প্রতিভার বর্ণাঢ্য বণর্না প্রদান
করেন। তিনি বলেন শেখ কামাল ছিলেন একজন চৌকস ক্রীড়াবিদ, সংগঠক, সংগীত, নাটক সহ সব ধরণের
সাংস্কৃতিক জগতে স্বাচ্ছন্দে বিচরণকারী একজন মহান যুবনেতা। এছাড়া বাংলাদেশের অভ্যুদয় ও ১৯৭১ সালে
মুক্তিযুদ্ধে শেখ কামালের গৌরবময় ভূমিকার কথাও তিনি স্মরণ করেন। পরিশেষে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর
রহমানের স্মৃতির প্রতি অকৃত্রিম শ্রদ্ধা প্রকাশ এবং সকল মুক্তিযোদ্ধা ও মুিক্তযুদ্ধে আত্মোৎসর্গকারী শহীদদের স্মরণ
করে আলোচনার সমাপ্তি করেন।
অনুষ্ঠানের শেষ পর্বে, বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদ ক্যাপ্টেন শেখ কামাল এবং জাতির জনক বঙ্গবন্ধুশেখ মুজিবুর রহমান
ও তাঁর পরিবার এবং ১৯৭১ এ স্বাধীনতা যুদ্ধের সকল শহীদদের আত্মার মাগফেরাত এবং বাংলাদেশের শান্তি,
সমৃদ্ধি এবং উন্নতি কামনা করে বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।

ছড়িয়ে দিন