দেশপ্রেম না থাকলে কখনো এই দেশের উন্নতি হবে না

প্রকাশিত: ৬:৪২ অপরাহ্ণ, জুন ৬, ২০১৯

দেশপ্রেম না থাকলে কখনো এই দেশের উন্নতি হবে না


জোবায়দা আক্তার চৌধুরী

দেশীয় পণ্যের ব্র্যান্ড আড়ং বর্জনের পক্ষে আমি নই।
মানলাম আড়ং অন্যায় করেছে। কিন্তু কতটুকু ? বাজারে বিদেশী পণ্যের জন্য যখন গলা কাটা দাম নেয় তখন ? আপনি কি বিদেশি পণ্য বর্জন করতে পেরেছেন ?
আড়ং ঐতিহ্যবাহী একটি দেশীয় ব্র্যান্ড। বিদেশেও আড়ং এর অনেক সুনাম।দেশের বাইরে যখন আমাদের আড়ং এর প্রোডাক্ট নিয়ে প্রশংসা শুনি তখন গর্বে বুকটা ভরে যায়।
বিদেশী পর্যটকরা ভাসাবী, সপার্স ওয়ার্ল্ড বা প্রেম কালেক্সানে ঢুকছেনা, ওরা আমাদের দেশীয় ব্র্যান্ড আড়ং এ ঢুকেন।
আড়ং এ যে পরিমাণ বিদেশী পর্যটক দেখা যায়, অন্যান্য বিদেশী ব্র্যান্ডের শপিং মলে কতজন বিদেশিকে দেখেন ?
আড়ং ৭০০ টাকার পান্জাবী ১৩০০ টাকায় করাতে এই অবস্থা। আর ইন্ডিয়ান প্রোডাক্ট ৫ ডাবল বেশি টাকা দিয়ে কিনতে আমাদের সমস্যা হয় না।তাই না ?
আড়ং এর মত ইন্ডিয়াতে আছে ফেবইন্ডিয়া। আমার ধারণা সেখানকার কাপড়ের চেয়ে আমাদের দেশের আড়ং এর প্রোডাক্ট হাজার গুণ ভাল।
ফেবইন্ডিয়া থেকে আমি দুটো ওড়না নিয়েছি ৫ হাজার রুপি দিয়ে। অথচ এর চেয়ে ভাল কোয়ালিটির দুটো ওড়না আড়ং এ বেশি করে হলেও ৩০০০ টাকায় পেতাম।
আমরা আড়ং নিয়ে যেসব পোস্ট দিয়ে চলেছি, এতে আমরা আমার দেশীয় প্রোডাক্টের বারোটাই শুধু বাজাচ্ছিনা, দেশের বদনামও করে চলেছি।
আমরা দেশের খারাপ কিছু পেলেই ফেইসবুকে ঝড় তুলি। অথচ দেশের ভাল কিছু তেমন প্রচার পাচ্ছেনা। একবার ভেবেছেন দেশের বাইরের মানুষ বাংলাদেশ সম্পর্কে কি ধারণা করছে ?
যারা আড়ং এর কাপড় পুড়িয়ে বিদ্রোহ ঘোষনা করছেন, তাঁরাই কয়দিন পর আড়ং এ ঢুকবেন।
আপন জুয়েলার্স নিয়ে অনেক দেখেছি, আপন জুয়েলার্স কি সত্যি সত্যি বর্জন করতে পেরেছেন ?
যেভাবে সবাই যুদ্ধ ঘোষনা করছেন তাদের বলছি এভাবে ভেজাল খাবার, মাদক এবং অন্যায়ের বিরুদ্ধে জেগে উঠুন।
দেশপ্রেম না থাকলে কখনো এই দেশের উন্নতি হবে না।