না’ বোলো না

প্রকাশিত: ১১:৫৭ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২, ২০২৪

না’ বোলো না

হাসিদা মুন

 

প্রতিদিন আমরা বাচাঁর ব্যবসা মাথায় করে নিয়ে বেড়াই
তাতে একে অপরের অতীত,কোথা থেকে কোথায় হাঁটা
একে অপরের হাতে কি কি ধরা -চোখে দেখে কিংবা না দেখেও বিভিন্ন মুল্যমানে সে সমস্ত কিনে নিতে চাই ..,

 

কথা বলতে পারা এবং যে বিষয়ে বলতে পারি
সে কথা জানাতেই সুলভে মঞ্চ কিনে নিই
আমাদের সম্পর্ককে সমস্ত শব্দ দিয়ে
বর্ণীল করে বারবার গুছিয়ে সাজাতে যাই
আমাদের সবার ভাষাই আমাদের পূর্বপুরুষদের
এক একজনের শব্দের বহর টেনে আনি নিজস্ব শব্দে
কেউ একজন মনেমনে সক্রেটিস বহন করে যায়
কেউ করছে হয়তো হেমলক সেলাই…

 

গার্মেন্টস গার্ল’ অপেক্ষা করছে টংগিমুখী কোনো হলারের
কৃষক পরিবর্তিত মেঘমালার আকাশ বিবেচনা করে
বীজে হাত রাখছে ফসলের আহবানে;
শ্রেণীকক্ষে শিক্ষক যখন বলছে-বইখাতা বের করে শুরু কর্ !
আমরা কথা বেচে বেচেই আবার কিছু কথা কিনি
কথাদের মুখোমুখি কথারা নিরুদ্বেগে দাঁড়ায় …

 

ক্ষয়ে যাওয়া শিলালিপি,চিটচিটে অশ্লীল চটি,মসৃণ কাব্য-
রোম্যান্টিক ফিসফিস্ অথবা সোচ্চার চিৎকারে আবৃত্তি
শব্দ বিবেচনায় ডাকাবুকো শব্দ রটনা,পুনর্বিবেচনা
ঘ্যানঘ্যানে আলোচনা,টকটক্ পাতানো – ‘টক্ শো’ …

 

আমরা ময়লা গলি ঘুপচি, মহান মহাসড়ক চিহ্নিত করি
কারও ইচ্ছায় অনিচ্ছায় দেখি অপ্রতুল যাপন
সবার নিরাপদ থাকার জায়গা খুঁজে পাওয়া দরকার,
আমরা এখনও যা দেখতেই পাইনি
তার মধ্যেই আন্দাজে চলাচল করি
সহযাত্রীদের ধাক্কা দিয়ে পিছনে ফেলে
সময়ের ট্রেনে- বাসে হুড়মুড় করে উঠে পড়ি …

 

সংগ্রামের জন্য বিগত দিনের প্রশংসার গান শুনি –
সময়ের প্রাপ্য সংগ্রাম সহজে আমরা করি না
প্রতিটি হাত পুরোনো সব চিঠি উলটে পালটে দেখতেই আগ্রহী
অর্থময় নতুন লেখাতে মন তেমন নেই
প্রয়োজনের চেয়েও শক্তিশালী কথাটি যদি প্রেম হয়
তবে নিরুদ্বেগে এ মুহূর্তে কি বলা যায় –
উমহু , ‘না’ বোলো না …