নিউইয়র্কে প্রবাসী বাংলাদেশি সংগঠনের নির্বাচন রবিবার

প্রকাশিত: ১২:০৩ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৯, ২০১৫

নিউইয়র্কে প্রবাসী বাংলাদেশি সংগঠনের নির্বাচন রবিবার

এসবিএন ডেস্ক:
নিউইয়র্কে জ্যাকসন হাইটস বাংলাদেশি বিজনেস অ্যাসোসিয়েশন অব নিউইয়র্কের (জেবিবিএ) কার্যকরী পরিষদের দ্বি-বার্ষিক (২০১৬-২০১৭) নির্বাচন রবিবার। স্থানীয় সময় বেলা ১১ টা থেকে রাত আটটা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে কুইন্সের বাংলাদেশি অধ্যুষিত জ্যাকসন হাইটসের ৭৩ স্ট্রিটের বাংলাদেশ প্লাজা মিলনায়তনে ভোটগ্রহণ চলবে। এটিই নিউইয়র্কে প্রবাসী বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের সবচেয়ে বড় সংগঠন।
২৫৭ জন ব্যবসায়ী সদস্য তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। নির্বাচন অনুষ্ঠানের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে বলে নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা গেছে।
নির্বাচনে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ ১৫ টি পদে দুটি প্যানেলে ৩০ জন এবং সাধারণ সম্পাদক পদে প্যানেলের বাইরে একজন স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। প্যানেল দুটি হচ্ছে দিদার-কামরুল এবং জিকো-তারেক প্যানেল। সাধারণ সম্পাদক পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী হলেন মাহবুবুর রহমান টুকু।
নির্বাচনের শেষ মুহূর্তে প্রচার-প্রচারণা চলছে তোড়জোরে। গত দুদিন ধরে প্রার্থীরা সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত ভোটারদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে যাচ্ছেন। নিজেদের যোগ্য প্রার্থী দাবি করে ভোট প্রার্থনা করছেন। ভোটারদের কেউ ভোট দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছেন আবার কেউ বিবেচনার আশ্বাস দিচ্ছেন।
এদিকে নির্বাচন কমিশন জানায়, নির্বাচনে বিশেষ পরিস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে ভোট গণনার মেশিন ব্যবহৃত হচ্ছে না এবং ব্যয় সংকোচনের লক্ষ্যে পূর্বনির্ধারিত বাংলাদেশ প্লাজাকে ভোট কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহারের সিদ্বান্ত বহাল রাখা হয়েছে। ইতিপূর্বে প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে নান্দুস ব্যাঙ্কুয়েট হলকে ভোটকেন্দ্র হিসেবে ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছিল। কিন্তু সবদিক বিবেচনা করে ৭৩ নং স্ট্রিটের বাংলাদেশ প্লাজাই ভোট কেন্দ্র হিসাবে থাকছে।
‘দিদার-কামরুল’ প্যানেলের স্লোগান হচ্ছে ‘যোগ্য নেতৃত্ব সংগঠনকে গতিশীল করে, গতিশীল সংগঠন নেতৃত্ব সৃষ্টি করে’। এই প্যানেলের প্রার্থীরা হলেন, সভাপতি প্রাথী আবুল ফজল দিদারুল ইসলাম (তিতাস সুপার মার্কেট), সহ-সভাপতি মোহাম্মদ শাহনেওয়াজ (এনওয়াই ইন্স্যুরেন্স), সহ-সভাপতি মনসুর এ চৌধুরী (হাটবাজার গ্রুপ), সাধারণ সম্পাদক মো. কামরুজ্জামান কামরুল (খামার বাড়ী), যুগ্ম সম্পাদক ফাহাদ সোলায়মান, ফাউমা ইনোভেটিভ কোষাধ্যক্ষ (নির্বাচিত) মো. সেলিম হারুন (কর্ণফুলী ট্রাভেলস), সাংগঠনিক সম্পাদক সাকিল মিয়া (গ্রাফিক্স ওয়ার্ল্ড), আপ্যায়ন ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক রাশেদ আহমেদ (তরঙ্গ মাল্টিমিডিয়া), প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সাজ্জাদ হোসাইন (ডিজাইন স্টুডিও), দপ্তর সম্পাদক মাহমুদ হোসাইন বাদশা (এনওয়াই ডেলি এন্ড গ্রোসারি) এবং কার্যকরী সদস্য কামরুজ্জামান বাচ্চু (জননী ট্রাভেলস), এসএমএ হাসান, (এইচএমএস কনস্ট্রাকশন), সুবল চন্দ্র দেবনাথ (দেবনাথ একাউন্টিং), শেখ এম হোসাইন মোশাররফ (ইস্টওয়েস্ট টিউটোরিং) এবং শফিকুল আলম (ব্রাইট ড্রাইভং স্কুল)।
অন্যদিকে ‘জিকো-তারেক’ প্যানেলের স্লোগান হচ্ছে জেবিবিএ’র ‘অতীত এতিহ্য ফিরিয়ে আনাই হবে আমাদের প্রধান লক্ষ্য’। এই প্যানেলের প্রার্থীরা হলেন, সভাপতি জাকারিয়া মাসুদ জিকো (সাপ্তাহিক আজকাল), সহ সভাপতি মোহাম্মদ সুরুজ্জামান (এনওয়াইএস মাল্টি সার্ভিসেস) ও মোল্লা মাসুদ (ঢাকা ড্রাইভিং স্কুল), সাধারণ সম্পাদক তারেক হাসান খান (গ্লোবাল এনওয়াই ট্রাভেলস), যুগ্ম সম্পাদক আব্দুল কাইয়ুম খান (ফেমাস ড্রাইভিং স্কুল), কোষাধ্যক্ষ মোহাম্মদ হোসেন মনির (বাংলাদেশ এয়ার কার্গো সার্ভিস), সাংগঠনিক সম্পাদক আতিকুল ইসলাম জাকির (প্রিন্ট ফেয়ার), দপ্তর সম্পাদক শেখ আলী হাসান (রুমালী বাজার), প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান মুস্তাফিজ (ডিলাইট ডিস্ট্রিবিউটর), সংস্কৃতি ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক হাসান জিলানী (গোল্ডেন ইমেজ ডিজিটাল)। কার্যকরী পরিষদ সদস্য জাকির মিয়া (ইউনির্ভাসাল ওএস ইন্ক), আব্দুল আলীম মেরিট কাবাব রেস্টুরেন্ট), রিশি ধাম চৌধুরী (তাজ গ্রোসারি), এম এ হক (ড্রেস ডিলাইট) ও মোহাম্মদ আলী লিয়াকত (মাইকেল ট্যাক্স)।
এছাড়া সাধারণ সম্পাদক পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী স্মৃতি ফ্যাশনের মাহববুর রহমান টুকু’র নির্বাচনী স্লোগান হচ্ছে ‘আমরা জেবিবিএ-তে সৎ ও স্বচ্ছ নেতৃত্ব চাই। আমরা পরিবর্তন চাই’।
উল্লেখ্য, জেবিবিএ’র পাঁচ সদস্য বিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি নির্বাচন কমিশনেরও দায়িত্ব পালন করছেন। তারা হলেন, সাঈদ রহমান মান্নান, এমএম রহমান, কাজী পারভেজ, মাহবুব চৌধুরী ও কাজী মন্টু

ছড়িয়ে দিন