নির্বাচনী সহিংসতায় পাঁচ জেলায় নিহত ১১ জন

প্রকাশিত: ৯:১১ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ২৩, ২০১৬

নির্বাচনী সহিংসতায় পাঁচ জেলায় নিহত ১১ জন

এসবিএন ডেস্কঃ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ভোটগ্রহণের পর সহিংসতায় দেশের পাঁচ জেলায় ১১জন নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে পিরোজপুরে ৬জন, কক্সবাজারে ২জন, ঝালকাঠিতে ১জন, নেত্রকোনায় ১জন এবং সিরাজগঞ্জে ১জন।

মঙ্গলবার রাতে ভোট গণনা চলাকালে পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ার ধানিসাফা ইউনিয়নে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর গুলিতে ছয়জন নিহত হয়েছেন। রাত সাড়ে ৯টার দিকে ধানিসাফা কলেজকেন্দ্রে আওয়ামী লীগ সমর্থকেরা নির্বাচনী কর্মকর্তাদের অবরুদ্ধ করে রাখতে গেলে এই ঘটনা ঘটে।

নিহতদের মধ্যে ৫জনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তারা হলেন শাহাদত (৩০), সোহেল (২৫), বেলাল (৩০), সোলায়মান (২০) ও কামরুল মৃধা (২৫)।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ধানিসাফা ইউনিয়নের কলেজ কেন্দ্রে ভোট গণনা শেষে কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা ফলাফল ঘোষণার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। কিন্তু ওই কেন্দ্রের আওয়ামী লীগ প্রার্থী গোপন সূত্রে খবর পান যে তিনি পরাজিত হতে যাচ্ছেন।

এ খবর শোনার পর তার সমর্থকেরা কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের অবরুদ্ধ করে রাখেন। এ সময় অবরুদ্ধ হন কর্তব্যরত ম্যাজিস্ট্রেটও।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা সমর্থকদের অনেক বোঝানোর পরেও তারা শ্লোগান দিতে থাকেন এবং ইট পাটকেল ছুড়েন। এক পর্যায়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা গুলি ছুড়লে ঘটনাস্থলেই ছয়জন নিহত হন।

পিরোজপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবু আশরাফ এবং মঠবাড়িয়ার ওসি মুস্তাফিজুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে কক্সবাজারের টেকনাফের সাবরাং ইউনিয়নে ইউপি সদস্য ও সমর্থকদের সঙ্গে পুলিশ-বিজিবির ত্রিমুখী সংঘর্ষে দুইজন নিহত হয়েছেন। গুলিবিদ্ধ হয়েছেন আরও ৩০ জন। মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে মুন্দাদেইল ও শাহপরীর দ্বীপ এলাকায় এ সংঘর্ষ হয়।

জানা যায়, সন্ধ্যা পর ভোট গণনা শেষে ব্যালট বাক্স কেন্দ্রে নিয়ে আসার সময় শাহপরীর দ্বীপ এলাকায় পৌঁছলে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ও তার সমর্থকেরা তা ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে।

এসময় তারা স্থানীয় আওয়ামী লীগের প্রার্থীকে অবরুদ্ধ করে রাখেন। পরে পুলিশ ও বিজিবি পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গেলে উভয় পক্ষের মধ্যে গোলাগুলি হয়। এতে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে। তবে নিহত ও আহতদের নাম-পরিচয় এখনও জানা যায়নি।

এদিকে ঝালকাঠির নবগ্রাম ইউনিয়নের কালিআন্দার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে ২ মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকের মধ্যে সংঘর্ষে এক প্রার্থীর ভাই আবুল কাশেম শিকদার কাঞ্চন নিহত হয়েছেন।

নেত্রকোনার খালিয়াজুরিতে নির্বাচনী সহিংসতায় আওয়ামী লীগ প্রার্থীর ছোট ভাই গোলাম কাউসার (২৮) নিহত হয়েছেন। নেত্রকোনার পুলিশ সুপার (এসপি) জয়দেব চৌধুরী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এদিকে মঙ্গলবার রাতে সিরাজগঞ্জের রায়গঞ্জে দুই মেম্বার প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে এক নারী নিহত হয়েছেন। তার নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

মঙ্গলবার সকাল আটটা থেকে বিকাল চারটা পর্যন্ত দেশের ৭১২টি ইউনিয়নে ভোটগ্রহণ চলে। ভোটগ্রহণকালেও দেশের বিভিন্ন স্থানে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। তবে ভোট গণনার সময় বেশি সংঘর্ষের খবর পাওয়া যাচ্ছে।

ছড়িয়ে দিন