ঢাকা ১২ই জুলাই ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ২৮শে আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৬ই মহর্‌রম ১৪৪৬ হিজরি


প্রকাশক ফোরাম কাঁটাবন আয়োজিত বই উৎসব জমে উঠেছে

redtimes.com,bd
প্রকাশিত ফেব্রুয়ারি ৫, ২০২১, ০৬:৩৭ পূর্বাহ্ণ
প্রকাশক ফোরাম কাঁটাবন আয়োজিত বই উৎসব জমে উঠেছে

সাহিত্য ও সমাজ জীবনের মূল বিষয় লোক-গবেষণা। একটি জাতির সভ্যতা ও বিকাশের মূলে রয়েছে লোক সাহিত্য-লোক গবেষণা। সাহিত্যের সত্যিকার মান হচ্ছে লোক সাহিত্য। যারা লোক সাহিত্যকে অবহেলা করে তারা মূলত সাহিত্যকেই অবহেলা করে। জীবনকে সমাজকে অবহেলা করে। একইভাবে সংগীতের মূল সূরটিও হচ্ছে লোক সংগীত। সর্বোপরি যা কিছু জীবনের সঙ্গে জড়িত তাই হচ্ছে সাহিত্য। তাই হচ্ছে লোক সাহিত্য। আমাদের সমাজকে, সাহিত্যকে, জাতিসত্তাকে সমৃদ্ধ করতে হলে অবশ্যই লোক সাহিত্য-লোক গবেষণাকে এগিয়ে নিতে হবে।

গতকাল বুধবার প্রকাশক ফোরাম কাঁটাবন আয়োজিত বই উৎসব অনুষ্ঠানের তৃতীয় দিনের আলোচনায় অংশগ্রহণ করে আলোচকগণ বলেন, আমরা যদি আমাদের ভুলে যাওয়ার চেষ্টা করি তবে লোক সাহিত্যকে ভুলে গেলেই হবে।

আলোচনায় অংশ নেন লোক গবেষক শিশু সাহিত্যিক খালেক বিন জয়েনউদ্দিন, গবেষক আইনজীবি সাহিদা বেগম, বিলু কবির, ড. তপন বাগচি ও ড. সাইমন জাকারিয়া। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ফোরামের আহ্বায়ক শওকত আলী তারা। সভাপতিত্ব করেন শিহাব বাহাদুর প্রকাশক মুক্তচিন্তা।

বক্তারা বলেন, আমাদের লোক সাহিত্যের ভা-ারকে কাজে লাগাতে হবে। উদ্ধার গবেষণা করে লোক সাহিত্যকে আমাদের সাহিত্যের কাজে লাগাতে হবে। এক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। লালন, বঙ্গবন্ধুসহ আমাদের সাধকদের নিয়ে অনেক কাজ করার রয়েছে। তাদের জীবনাচারকে কাজে লাগাতে হবে। শিক্ষার ক্ষেত্রে ফোকলোরকে যুক্ত করতে হবে। তবেই আমাদের সাহিত্য ও জীবনাচার উন্নত হবে।

দ্বিতীয় পর্বে কবি রেজাউদ্দিন স্টালিনের সভাপতিত্বে কবিতা পাঠে অংশ নেনÑ  আসলাম সানি,  তপন বাগচি, বিলু কবির,  বকুল আশরাফ,  দিলদার হোসেন প্রমুখ।

আগামীকাল বই উৎসবের ৪থ দিনে আলোচ্য বিষয়: অনলাইনে বই পাঠ ও আমাদের পাঠ্য বই। আলোচক কবি মুহাম্ম্দ নুরুল হুদা, রকমারি ডট কম এর চেয়ারম্যান মাহমুদুল হাসান সোহাগ। ৪থ দিনের সভা কবি বকুল আশরাফ।

একুশের এই চেতনা সমুন্নত রাখতে এবং আমাদের ভাষাশহীদদের প্র্রতি শ্রদ্ধা জানাতে কনকর্ড মার্কেট প্রাঙ্গণেই সীমিত পরিসরে সরকার নির্দেশিত স্বাস্থ্যবিধি মেনে ৭ দিনের একুশে বই উৎসব ২০২১-এর আয়োজন। ১ ফেব্রুয়ারি ২০২১ থেকে ৭ ফেব্রুয়ারি ২০২১ পর্যন্ত দুপুর ২টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত এই উৎসব চলবে। ক্রেতারা পাবেন ২৫% কমিশন। প্রতিদিনের সর্বোচ্চ অঙ্কের বইক্রেতাগনের ৩ জনের জন্য থাকবে বিশেষ পুরস্কার। মানসম্মত নতুন বইয়ের জন্য ৩ জন প্রকাশককেও দেয়া হবে পুরস্কার। আমরা এবারের বই উৎসবটি উৎসর্গ করেছি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জন্মশত বার্ষিকীকে।

 

আমরা ঢাকা দক্ষিণ সিটির ড. কুদরাত-এ-খোদা সড়ক (এলিফ্যান্ট রোড) ও কাঁটাবন অঞ্চল ঘিরে নবীন-প্রবীণ প্রায় অর্ধশতাধিক সৃজনশীল বই প্রকাশক নিয়ে একুশে বই উৎসব শুরু হয়েছে আজ থেকে। এ উৎসবে অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠান হল- জাতীয় সাহিত্য প্রকাশ, জয়তী, মুক্তচিন্তা, মূর্ধণ্য, গদ্যপদ্য, আবিষ্কার, টাঙ্গন, সংহতি, জাগৃতি, চিরদিন, বেহুলা বাংলা, মহাকাল, সমগ্র,গণপ্রকাশন, অনুপ্রাণন, অগ্রদূত, বলাকা, কবি, সাহস, আপন প্রকাশ, উজান, প্রকৃতি, খোয়াবনামা, মধ্যমা, দ্বিমিক, অ, পেণ্ডুলাম, সহ ৫০টি প্রকাশনা।

মেলা সংক্রান্ত যে কোন আপডেট জানতে : www.facebook.com/পাবলিশার্স-ফোরাম-কাঁটাবন-102675895064567

সংবাদটি শেয়ার করুন

July 2024
S M T W T F S
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
28293031