ফারজানা ব্রাউনিয়াকে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়া উত্তপ্ত

প্রকাশিত: ১:৫৮ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ২৭, ২০২২

ফারজানা ব্রাউনিয়াকে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়া উত্তপ্ত

তামান্না জেসমিন 

ফারজানা ব্রাউনিয়াকে নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়া উত্তপ্ত।

 

 

বিবর্তন এবং পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে সমস্ত কিছুকেই এগোতে হয় কিন্তু বাঙালির প্রবহমান রক্তে বোধহয় পরিবর্তন বলে কিছু নেই।
প্রতিনিয়ত নিজেকে, নিজের চারপাশের অসঙ্গতি নিয়ে কথা বলে সংশোধন করার মানসিকতা নিয়ে কেউ এগিয়ে এলে তার একান্ত ব্যক্তিগত ব্যাপারে হামলে পড়ার স্বভাব আর গেলোনা!

 

 

 

প্রতিটি মানুষের জীবনই ভুলে ভরা, কারো কম বা কারো বেশি। কিন্তু সেই মানুষকে আমাদের জাজ করা উচিৎ যার দ্বারা সমাজ সংক্রমিত হয়,। যারা একের পর এক ক্রাইম করে চলে; কিন্তু দুর্ভাগ্য তাদের নিয়ে আমাদের মাথা ব্যথা নাই বললেই চলে।

 

 

যার যার সিচ্যুয়েশন সেই সেই বোঝে। একজন নারীর বারবার বিয়ে করা যদি অন্যায় হয়ে থাকে তবে সমাজে বহু পুরুষ একাধিক বার বিয়ে করে, বহু পুরুষ বর্তমান স্ত্রীর অগোচরে আইনের থোরাই কেয়ার করে মডেল, নায়িকা বিয়ে করে নিজের এবং নিজ সংসারের বারোটা বাজায়, বহু পুরুষ আছে যারা বহুগামিতার মধ্যেই জীবনের আসল সুখ আনন্দ খোঁজে, বহু বৃদ্ধ পুরুষ রয়েছে যারা বৃদ্ধ বয়সে নাতির সমান বালিকা বিবাহ করছে- এদের নিয়ে কিন্তু সমাজে কথা ওঠেনা কিন্তু কে প্রথমবার ভুল করে দ্বিতীয়বার সঠিক মনে করে আরো একটা ভুল করলো এবং দুর্ভাগ্যজনক ভাবে সেখানেও মানসিক, শারীরিক, ব্যক্তিত্ব, শিক্ষা ইত্যাদিতে রসায়নে না মিল হলে অথবা ক্লিক না করলে আবারো সুখী হবার চেষ্টা করলে অন্যদের চুলকানি কেনো হয়?

 

 

 

আমি লক্ষ্য করেছি এব্যাপারে অনেক নারীরাও ব্যাঙ্গাত্বক কথা বলতে ছাড়েননি। কিছুসংখ্যক নারীদের বলছি, আপনারাতো বছরের পর বছর অপমান, মার লাথি খেয়ে শুধু টাকাপয়সা সোনাদানা আর স্বাচ্ছন্দ্যের জন্য সংসার করে যাচ্ছেন, কেউ কেউ স্বামীর চরিত্রের খবর জেনে গিয়ে নিভৃতে পরকিয়া চালাচ্ছেন, কেউ কেউ ভয়ে সুখে থাকার অভিনয় করছেন সংসার টিকিয়ে রাখার জন্যে, আমি তাদের উদ্দেশ্যে বলবো আপনাদের আসলে ব্যক্তিত্ব, আত্মসম্মান বলে কিছু নেই। আর ফারজানার মতন যদি আপনার অপশন থাকতো তবে আপনারা চারটা নয় বরং চৌদ্দটা করতেন!

 

 

 

 

চারটা স্ত্রী ঘরে রেখে শতশত মূর্খদের সমুখে ওয়াজ নসিয়ত আর গোপনে পাপ করতে লজ্জা করেনা কিন্তু একজন নারী সংগত কারণে একটি বিয়ে বিচ্ছেদের পরে আরেকটা প্রকাশ্যে করলে অপরাধ। জীবনে একা থাকাটা যেমন ব্যক্তিগত চয়েস তেমনি বিয়ে করে একসাথে সুস্থ জীবনযাপন করাও ব্যক্তিগত চয়েস।
একটা বিয়ে ভেঙ্গে যাবার পর আরেকটা করতে হিম্মত লাগে, লাগে যোগ্যতা