বইমেলায় যোগ দিতে ঢাকায় এসেছেন দিলরুবা আহমেদ

প্রকাশিত: ১০:০৭ পূর্বাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৬, ২০১৮

বইমেলায় যোগ দিতে ঢাকায় এসেছেন দিলরুবা আহমেদ

বইমেলায় যোগ দিতে ঢাকায় এসেছেন দিলরুবা আহমেদ

বইমেলায় যোগ দিতে টেক্সাস থেকে এসেছেন দিলরুবা আহমেদ। আমেরিকা প্রবাসী অত্যন্ত জনপ্রিয় এই লেখিকাকে এবার-ই প্রথম দেখা যাবে বই মেলায় । লেখিকা -র অধিকাংশ লেখাই প্রবাস ভিত্তিক ।এবার বইমেলায় নতুন উপন্যাস “গ্রিনকার্ড” টি-র সাথে সাথে আরো পাওয়া যাবে “অনন্যা” প্রকাশনী -তে (পেভিলিয়ন ১৫ ) “ব্রাউন গার্লস”, “বলেছিলো”,”প্রবাসী “। প্রবাসে থাকা (আমেরিকায় ) অভিবাসীদের পড়াশোনা, চাকরি একাকিত্ব, প্রেম ,সংগ্রাম পরিশ্রম ইত্যাদি সব উঠে এসেছে এই উপন্যাস গুলোতে ।এই পর্যন্ত লেখিকার ১১-টি গ্রন্থ বেরিয়েছে বিভিন্ন প্রকাশনা সংস্থা থেকে । লেখিকার উল্লেখযোগ্য বই ” টেক্সাস টক ” টি ২৫ টি গল্পের সমারোহ । তার সাক্ষাৎকার গ্রহণ করেছেন রেডটাইমস এর সাবএডিটর মেরিনা সঈদ ।

মেরিনা সঈদঃ বইমেলায় কেন এলেন এবার যোগ দিতে ?
দিলরুবা আহমেদমেলায় যাবার ইচ্ছে তো বহুদিনের ।এবার ভাবলাম যাই একটু ঘুরে ছুঁয়ে দেখি স্বপ্নটুকু ।যখন আমার বই বের হতো না তখন -ও আমি মেলায় হাজির থাকতাম টেলিভিশনের চ্যানেলের মাধ্যমে।ডালাসে টিভির সামনে বাসে বসেই প্রতিদিন দেখতাম প্রতি টি নতুন বইয়ের নাম ও মলাট ।এখনো গিয়ে দাঁড়ানো হয়নি মেলা প্রাঙ্গনে ।জানি না কেমন লাগবে যেদিন সত্যিই গিয়ে দাঁড়াবো ওই খানে । হয়তো আমি একদিন-ই শুধু যাবো তবে নীরবে , এক একা নিজের মতন করে ঘুরে বেড়াবো পুরোটা মেলা , কেও জানবেও না যে আমিও এসেছিলাম ।

মেরিনা সঈদ ঃপাঠক আপনাকে সামনাসামনি দেখতে চায় ?
দিলরুবা আহমেদলেখা-ই হোক আমাদের একমাত্র বন্ধন।

মেরিনা সঈদঃমেলার উন্নয়নে কিছু বলবেন কি ?
দিলরুবা আহমেদআগে গিয়ে দেখি , তারপর না হয় কিছু বলবো । আসলে আমি তখনই বলবো , যখন মনে হবে আমার কথার একটা দাম থাকবে ।অযথা কাক চিলের মতন কা কা করে কি হবে !তাই না !

মেরিনা সঈদঃ বাংলা বইয়ের মেলার সম্ভাবনা প্রবাসে কেমন ?
দিলরুবা আহমেদ আমি যেখানে থাকি ডালাসে সেখানে বাংলা বইয়ের মেলা হয়নি কখনো । তবে বাঙালি রয়েছে প্রচুর , মেলা জমে যাবারই কথা।

মেরিনা সঈদঃ আপনার আগামী দিনের ইচ্ছে গুলো বলুন?

দিলরুবা আহমেদচাই আরো অনেক অনেক নতুন বই পড়তে , লিখতে । যেতে চাই প্রতি বছর দেশের বইমেলায় ।আমাজনের গভীর জঙ্গলে গাছের মাচায় ট্রি হাউস এ রাত কাটানো যাবে না আর , সেই তারুণ্য নেই যে তাই । তারপর-ও মন চায় যাই একবার কোনো বনে, নিশীথ রাতে শুনি ঝিঝি ডাক । আমার জনকের স্বপ্নের সেই মুহুরীগঞ্জ গ্রামে গিয়ে থাকি কয়টা দিন।ইচ্ছে হয়
অস্ট্রেলিয়ার ক্যানবেরার রাস্তায় রাস্তায় আগের মতন ঘুরে বেড়ানোর, খুঁজবো শুমের শিশুকাল হিউজে -র অলিতে গলিতে ।গ্র্যান্ড ক্যানিয়ন এর কাঠের কেবিনে ঘুম থেকে উঠে কফি পান করতে মন চায় প্রতি শীতে অন্তত তিন চার দিন ।আহা কি অসাধারণ হতো যদি মা-কে সাথে নিয়ে লোহিত সাগরে নৌকা করে ঘুরে বেড়াতে পারতাম ।আম্মা খুব ভয় পেতেন তাই দেখে আমি হেসে নির্ভয় দিতাম । বিশ্বের সবচেয়ে পুরানো বইয়ের দোকান ‘শেক্সপিয়ার এন্ড কোম্পানি’র সামনে রাখা বেঞ্চে চুপচাপ কিছুটা সময় বসে থাকার-ও ইচ্ছে আছে ।তাজমহলের সামনেও বসে থাকতে পারলে ভালো লাগতো । এতবার নায়াগ্রা প্রপাত দেখেছি তারপর-ও মনে হয় আবারো যাবো ।মন চায় কিছু এতিম বাচ্চার হাত ধরি , কিছু ডিসএবল বাচ্চার পাশে দাড়াই , কিছু অর্টিস্টিক বাচ্চা-কে সাহায্য করার-ও খুব ইচ্ছে ।আর চাই মৃত্যুর আগ পর্যন্ত সুস্থ থাকতে।
মেরিনা সঈদ ঃ কেমন ভাবে মৃত্যু হোক চান ?
দিলরুবা আহমেদ মৃত্যুর সময় হাতে থাকুক একটি বই , আমার-ই লেখা কোনো একটি অসাধারণ বই ,আর পাশে থাকুক ইমতিয়াজ।

Calendar

January 2021
S M T W T F S
 12
3456789
10111213141516
17181920212223
24252627282930
31  

http://jugapath.com