বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব এঁর ৯৩তম জন্মবার্ষিকী পালিত

প্রকাশিত: ৩:২০ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৮, ২০২৩

বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব এঁর ৯৩তম জন্মবার্ষিকী পালিত
এস এম আব্দুল্লাহ সউদ, কালাই উপজেলা প্রতিনিধিঃ
জয়পুরহাটের কালাইয়ে উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে বাংলাদেশ স্বাধীনতার মহান স্থপতি,হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি,জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সহধর্মিনী মহীয়সী নারী বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব এঁর ৯৩তম জন্মবার্ষিকী যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হয়েছে।
মঙ্গলবার (৮আগস্ট) সকাল সাড়ে দশটায় উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে নানা কর্মসূচির মধ্য দিয় দিবসটি পালন করা হয়। সকালে উপজেলা চত্বরে শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব এঁর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, রাজনৈতিক ও সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ। পরে উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জান্নাত আরা তিথি’র সভাপতিত্বে শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব এঁর জীবনী নিয়ে স্মৃতিচারণ ও আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়।
আলোচনাসভা শেষে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর ও জাতীয়  মহিলা সংস্থার পক্ষ থেকে শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের জন্মদিনে ০৮জন অসহায় মহিলাকে সেলাই মেশিন বিতরন করা হয়েছে।
দ্বিতীয় পর্বে দুপুর ১২টায় আওয়ামীলীগের দলীয় কার্যালয়ে শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব এঁর ৯৩তম জন্মদিন উপলক্ষে এক আলোচনা সভা ও তাঁর আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফজলুর রহমান এর সঞ্চালনায় উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কালাই উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মিনফুজুর রহমান মিলন।
অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন কালাই পৌরসভার মেয়র রাবেয়া সুলতানা,পৌর আওয়ামী লীগের আহবায়ক ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মো.হেলালউদ্দিন মোল্লা,উদয়পুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ওয়াজেদ আলী দাদা,সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ও উপজেলা কৃষক লীগের সভাপতি বাবু মুনিশ চৌধুরী,উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ছানাউল হক ছানা,উপজেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের মহিলা সদস্য মিসেস রত্না রশীদ ও সাধারণ সম্পাদক মিসেস মেরি আক্তার,মহিলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শাবানা আকতার,উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মুবিনুল হক মুবিন।এসময় উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।
উপস্থিত বক্তারা বলেন, ১৯৩০ সালের ৮ই আগস্ট গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জন্মগ্রহণ করেন বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব, যিনি পরিবারে পরিচিত ছিলেন রেণু নামে। মাত্র ১৩ বছর বয়সে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের সঙ্গে পরিণয়সূত্রে আবদ্ধ হন তিনি। শুধু সহধর্মিনী হিসেবে নয়,রাজনৈতিক সহকর্মী হিসেবে আজীবন প্রিয়তম বঙ্গবন্ধুর ছায়াসঙ্গী ছিলেন বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব। ১৯৭৫ এর ১৫ই আগষ্ট কালরাতে বঙ্গবন্ধুর সপরিবার হত্যাযজ্ঞে তিনিও শহীদ হন।
ইতিহাসে বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব কেবল একজন প্রাক্তন রাষ্ট্রনায়কের সহধর্মিণীই নন, বাঙালির মুক্তি সংগ্রামে অন্যতম এক নেপথ্য অনুপ্রেরণাদাত্রী। বাঙালি জাতির সুদীর্ঘ স্বাধিকার আন্দোলনের প্রতিটি পদক্ষেপে তিনি বঙ্গবন্ধুকে সক্রিয় সহযোগিতা করেছেন। ছায়ার মতো অনুসরণ করেছেন প্রাণপ্রিয় স্বামী বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে। এই আদর্শ বাস্তবায়নের জন্য অবদান রেখেছেন।
জীবনে অনেক ঝুঁকিপূর্ণ কাজ করেছেন, এজন্য অনেক কষ্ট-দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে তাকে। বঙ্গবন্ধুর সমগ্র রাজনৈতিক জীবনে ছায়ার মতো অনুসরণ করে তার প্রতিটি রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে অফুরান প্রেরণার উৎস হয়েছিলেন বেগম মুজিব।
বাঙালি জাতির মুক্তি সনদ ছয়-দফা ঘোষণার পর বঙ্গবন্ধু যখন বারে বারে পাকিস্তানি শাসকদের হাতে বন্দি জীবন যাপন করছিলেন, তখন দলের সর্বস্তরের নেতাকর্মী বঙ্গমাতার কাছে ছুটে আসতেন, তিনি তাদের বঙ্গবন্ধুর বিভিন্ন দিকনির্দেশনা বুঝিয়ে দিতেন এবং লড়াই-সংগ্রাম চালিয়ে যাওয়ার জন্য অনুপ্রেরণা জোগাতেন। যা বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাসে স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে।
এরপর দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। এসময় উপজেলা মডেল মসজিদের পেশ ঈমাম বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছার আত্মার মাগফিরাত কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করেন।

লাইভ রেডিও

Calendar

April 2024
S M T W T F S
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
282930