বন্যার প্রভাব সিলেটের পর্যটন কেন্দ্রে

প্রকাশিত: ১:৫৫ অপরাহ্ণ, জুলাই ১২, ২০২২

বন্যার প্রভাব সিলেটের পর্যটন কেন্দ্রে

আজ মঙ্গলবার থেকে সরকারি-বেসরকারি অফিসগুলো খুলতে শুরু করেছে ।

তবে প্রতিবছরের মতো ঈদকে কেন্দ্র করে পর্যটকের দেখা মেলেনি সিলেটের পর্যটনকেন্দ্র গুলোতে । পর্যটক কম রয়েছে উপজেলার অন্য দুটি পর্যটনকেন্দ্র বিছনাকান্দি ও রাতারগুলেও।

 

 

মহামারি করোনার কারণে গত ২ বছর ঈদে পর্যটনকেন্দ্রগুলো বন্ধ ছিল । এরপর স্পটগুলো থেকে নিষেধাজ্ঞা শিথিল হওয়ার পর ঘুরে দাঁড়ানোর স্বপ্ন দেখছিলেন ব্যবসায়ীরা । এর পরপরই সিলেটে হয়েছে ভয়াবহ বন্যা । বন্যার কারণে ঈদের আগে থেকেই স্পটগুলোতে ছিল সুনসান নীরবতা । বর্তমানে বন্যা পরিস্থিতি স্বাভাবিক থাকলেও পর্যটকের সংখ্যা সীমিত।

 

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ঈদের দ্বিতীয় দিন সোমবার সন্ধ্যা পর্যন্ত পর্যটনকেন্দ্র জাফলং, সাদাপাথর, বিছনাকান্দি ও রাতারগুলে পর্যটকের সংখ্যা ছিল সীমিত। কয়েকটি স্পটে পর্যটক থাকলেও তারা ছিল স্থানীয়। এখানকার হোটেল-রিসোর্টের বেশির ভাগই ফাঁকা রয়েছে। বিশাল প্রস্তুতি নিয়ে রাখা পর্যটনসংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীরা কাঙ্ক্ষিত পর্যটক না আসায় ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছেন।

 

 

 

জাফলং ট্য রিস্ট পুলিশের ইনচার্জ (ওসি) মো. রতন শেখ জানান, বন্যার প্রভাবে এবারের ঈদে আশানুরূপ পর্যটক নেই জাফলংয়ে। যেহেতু বন্যার পানি একেবারেই কমে গেছে, সেহেতু পর্যটক আসতে পারে। তাই কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা যাতে না ঘটে, সেই দিক বিবেচনা করে ট্যুরিস্ট পুলিশ ঈদের দিন থেকেই দায়িত্ব পালন করে আসছে।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

Calendar

November 2022
S M T W T F S
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
27282930