বাংলাদেশ দুর্নীতির বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে :আইন মন্ত্রী

প্রকাশিত: ১১:৫৮ অপরাহ্ণ, মে ২৭, ২০১৯

বাংলাদেশ দুর্নীতির বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে :আইন মন্ত্রী

আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর স্বপ্ন ছিল দুর্নীতিমুক্ত সমাজ গঠন করা। তাঁর এই স্বপ্ন বাস্তবায়নে বর্তমান সরকার দুর্নীতির বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে। ফলে বাংলাদেশে দিনদিন দুর্নীতি কমছে।
সোমবার (২৭ মে) অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনায় অনুষ্ঠিত জাতিসংঘের দুর্নীতি বিরোধী কনভেনশন (ইউএনসিএসি) এর বাস্তবায়ন পর্যালোচনা পর্বের দশম অধিবেশনে বক্তৃতাকালে তিনি একথা বলেন। ২৭ – ২৯ মে অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনায় এ সম্মেলন চলবে।
মন্ত্রী বলেন, ইউএনসিএসি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বাংলাদেশের নিজস্ব বহু আইন আছে। ইউএনসিএসি বাস্তবায়নে তিনি দুর্নীতি প্রতিরোধ আইন, ১৯৪৭;, দুর্নীতি দমন কমিশন আইন, ২০০৪ (২০১৩ সালের সংশোধনীসহ); সন্ত্রাস বিরোধী আইন, ২০০৯; তথ্য অধিকার আইন, ২০০৯; মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইন, ২০১২; সরকারি ক্রয় আইন,২০০৬ সহ বিভিন্ন আইন প্রণয়ন ও বাস্তবায়নের উদাহরণ দেন। জাতীয় মানবাধিকার কমিশন ও তথ্য অধিকার কমিশন গঠনসহ মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের মাধ্যমে জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল প্রণয়ন করার কথাও তিনি উল্লেখ করেন। এছাড়া দুর্নীতি প্রতিরোধে ব্যাপকভাবে সচেতনতা গড়ে তোলার লক্ষ্যে বাংলাদেশের ৯টি মেট্রোপলিটান শহর, ৬২টি জেলা এবং ৪২১ টি উপজেলায় নাগরিক সমাজের মধ্যে স্বচ্ছতা ও সততা কমিটি গঠন করা হয়েছে এবং এ ধরণের কমিটি সারা দেশের স্কুল, কলেজ এবং অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গঠন করা হয়েছে বলেও তিনি বিশ্ববাসীকে জানান।

তিনি বলেন, দুর্নীতি প্রতিরোধ এবং ইউএনসিএসি- এর কার্যকর বাস্তবায়নের জন্য আইন পুনর্গঠন/সংশোধন, ব্যবহারিক সক্ষমতা বৃদ্ধি, সরকারি কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ, দুর্নীতি বিষয়ে গবেষণা ও পরীবিক্ষণ, দুর্নীতি বিরোধী নীতিমালার কৌশলগত উন্নয়ন, অনুসন্ধান, তদন্ত, দুর্নীতির শাস্তি ও নিয়ন্ত্রণ ইত্যাদি বিষয়ে বাংলাদেশের কারিগরি সহযোগিতা প্রয়োজন। মন্ত্রী দুর্নীতিমুক্ত সমাজ গড়তে বিশ্ব সম্প্রদায়ের সমর্থন আশা করেন।

প্রসঙ্গত বাংলাদেশ ২০০৭ সালে জাতিংঘের দুর্নীতি বিরোধী কনভেনশনে সমর্থনের মাধ্যমে সদস্যরাষ্ট্র হওয়ার পর হতে এ পর্যন্ত ইউএনসিএসি- এর অধীন যে সকল পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে, তা ইউএনসিএসি ভুক্ত অন্যান্য সদস্যরাষ্ট্র কর্তৃক বিশেষভাবে প্রশংসিত হয়েছে। ইতোমধ্যে লেজিসলেটিভ ও সংসদ বিষয়ক বিভাগের তত্ত্বাবধানে প্রথম রিভিউ সাইকেলে “টঘঈঅঈ-ইধহমষধফবংয ঈড়সঢ়ষরধহপব ধহফ এধঢ় অহধষুংরং (ইঈএঅ)” সম্পন্ন হয়েছে।

সম্মেলনে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক ছাড়াও আইন মন্ত্রণালয়ের লেজিসলেটিভ ও সংসদ বিষয়ক বিভাগ, দুর্নীতি দমন কমিশন, বাংলাদেশ ব্যাংক এবং ভিয়েনাস্থ বাংলাদেশ মিশনের প্রতিনিধিবৃন্দ অংশ নিয়েছেন। আইনমন্ত্রী বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন।