বিটাকে পাম্প প্রযুক্তি নিয়ে সেমিনার

প্রকাশিত: ১২:৩৭ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১৭, ২০২১

বিটাকে পাম্প প্রযুক্তি নিয়ে সেমিনার

বাংলাদেশ শিল্প কারিগরি সহায়তা কেন্দ্রে (বিটাক) ভূগর্ভস্থ পানি উত্তোলনের জন্য ব্যবহৃত পাম্প প্রযুক্তির বিষয়ে সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত সোমবার বিকেল তিনটায় বিটাকের টুল অ্যান্ড টেকনোলজি ইনস্টিটিউট (টিটিআই) এর সেমিনার কক্ষে অনুষ্ঠিত এ সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিটাকের মহাপরিচালক আনোয়ার হোসেন চৌধুরী।
সেমিানারে সভাপতিত্ব করেন টিটিআই, বিটাকের পরিচালক সৈয়দ মোঃ ইহসানুল করিম। জাপান ভিত্তিক টোরিশিমা পাম্প প্রাইভেট লিমিটেডের ভারত শাখার ব্যবস্থাপনা পরিচালক মনোজ গ্রোভার, ব্যবস্থাপক সঞ্জয় সিং ও বাকিয়া সুব্রামানিয়াম বিশেষ অতিথি হিসেবে অন-লাইন ভিত্তিক প্ল্যাটফর্ম জুমের মাধ্যমে সেমিনারে যুক্ত ছিলেন। সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন কনসোলিডেট সার্ভিস লিমিটেরে নির্বাহী পরিচালক আব্দুল্লাহ ওমর নাসিফ এবং টিটিআই, বিটাকের সহকারী প্রকৌশলী হুমায়ুন কবীর।
সভাপতির বক্তব্যে সৈয়দ মোঃ ইহসানুল করীম বলেন, বাংলাদেশ কৃষি প্রধান দেশ। এর অর্থনীতি কৃষি নির্ভর। আর কৃষির জন্য পানি অপরিহার্য। ৬০’র দশক থেকে কৃষি ও সুপেয় পানির উৎস হিসেবে ভূগর্ভস্থ পানি ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হচ্ছে। দেশের কৃষি খাতে ব্যবহৃত পানির ৭০ ভাগের উৎস ভূগর্ভস্থ পানি। বাকি ৩০ ভাগ পানি ভূপৃষ্ঠের বিভিন্ন উৎস থেকে সংগৃহ করা হয়।
ভূগর্ভস্থ পানি উত্তোলনের জন্য একদম শুরু থেকেই বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) বিদেশ থেকে আমদানিকৃত পাম্পের ওপর নির্ভরশীল। এসব পাম্প রক্ষণাবেক্ষণ অত্যন্ত ব্যয়বহুল এবং তা বিদেশি প্রকৌশলী নির্ভর। কিন্তু সম্প্রতি টিটিআই, বিটাকের প্রকৌশলীরা সফলভাবে গঙ্গা-কপোতাক্ষ সেচ পাম্প মেরামতের কাজ করেছে। এর মধ্য দিয়ে পাম্প প্রযুক্তিতে বৈদেশিক নির্ভরতা যেমন কমেছে তেমনি দেশের অর্থ সাশ্রয় হয়েছে। টোরিশিমা পাম্প প্রাইভেট লিমিটেডের সাথে এই সেমিনারের মাধ্যমে পাম্প প্রযুক্তি সম্পর্কিত জ্ঞান বিনিময়ের সুযোগ সৃষ্টি হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।
প্রাধান অতিথির বক্তব্যে মহাপরিচালক আনোয়ার হোসেন চৌধুরী বলেন, বাংলাদেশের অর্থনীতিতে পানির ভূমিকা অত্যন্ত গুরু্ত্বপূর্ণ। তাই আধুনিক পাম্প প্রযুক্তি সম্পর্কিত জ্ঞানের কোনো বিকল্প নেই। সে বিবেচনায় এই সেমিনারের মাধ্যমে প্রকৌশলীরা প্রত্যক্ষভাবে উপকৃত হবেন। যার ইতিবাচক প্রভাব দেশের প্রকৌশল খাত এবং অর্থনীতিতে পড়বে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।
তিনি আরও বলেন, জাপান বাংলাদেশের বিশ্বস্ত বন্ধু। যে কোনো প্রয়োজনের মুহূর্তে জাপানকে পাশে পেয়েছে বাংলাদেশ। জাপান ভিত্তিক টোরিশিমা পাম্প লিমিটেডের সহযোগিতায় আয়োজিত এই সেমিনার দেশের প্রকৌশল খাতের অগ্রগতিতে ভূমিকা রাখবে।

ছড়িয়ে দিন