বিদ্যুতের প্রি-পেইড মিটার গ্রাহকদের ভোগান্তি কমে নি

প্রকাশিত: ৭:৪৩ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৪, ২০২০

বিদ্যুতের প্রি-পেইড মিটার গ্রাহকদের ভোগান্তি কমে নি

অবরুদ্ধ পরিস্থিতির মধ্যে পরিষেবা নিরবচ্ছিন্ন রাখার নানা উদ্যোগ নিলেও বিদ্যুতের প্রি-পেইড মিটার গ্রাহকদের ভোগান্তি কমে নি ।

প্রতিদিনই প্রি-পেইড মিটারের ব্যালান্স শূন্য হয়ে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে বিদ্যুৎ সংযোগ। আর সেজন্য মহামারীর মধ্যে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে শত শত গ্রাহক বিদ্যুতের বিল জমা দিতে ঢাকার ভেন্ডিং স্টেশনগুলোতে ভিড় করছেন।

নগরবাসীদের অভিযোগ, বিতরণ সংস্থা চাইলে আগে থেকে সব গ্রাহকদের নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করতে পারত। কিন্তু এই মহামারীর সংকটেও তারা সে ব্যবস্থা না করে তারা গ্রাহকদের ঝুঁকির মুখে ফেলে দিয়েছে।

তবে বিতরণ সংস্থাগুলো বলছে, জরুরি মুহূর্তে ব্যালেন্স শূন্য হয়ে গেলে অভিযোগ জানাতে ওয়েবসাইটে বেশ কয়েকটি নম্বর দেওয়া আছে। এছাড়া বেশ কিছু পস (পয়েন্ট অব সেলস) মেশিন বসানো হয়েছে। সে দুটি উপায় ব্যবহার না করে বেশিরভাগ গ্রাহক ভেন্ডিং স্টেশনে ভিড় করছেন।

ডেসকোর প্রকৌশলী একেএম মহিউদ্দিন বলেন, এগুলোতেই গ্রাহকরা নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুতের সমস্যায় পড়ছেন। আমাদের অফিস বন্ধ থাকলেও পস (পয়েন্ট অব সেলস) স্টেশনগুলো খোলা থাকছে।

আমাদের ওয়েবসাইটে দেওয়া অভিযোগ নম্বর খোলা আছে, পস স্টেশনের ঠিকানাগুলো দেওয়া আছে। কিন্তু লোকজন এসব না দেখে কেবল রিচার্জ স্টেশনগুলোতেই ভিড় করছে। ফলে আপতদৃষ্টিতে একটা সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে। কেউ সরাসারি আমাদেরকে ফোন করলেও আমরা ডোর টু ডোর সমাধান করে দিচ্ছি। কিন্তু অনেকেই বিষয়টি করছে না।

তিনি জানান, ডেসকোর নিজস্ব ১০টি রিচার্জ স্টেশন চালু আছে। এর বাইরে থার্ড পার্টির মাধ্যমে ২১টি ভেন্ডিং স্টেশন চালু রয়েছে ।

ডেসকোর ২ লাখ ৯১ হাজার প্রি-প্রেইড মিটারের মধ্যে দুই লাখ ২০ হাজারই স্মার্ট মিটার। এসব মিটারে হলিডে সুবিধা দিয়ে দেওয়া হয়েছে বন্ধকালীন সময়ে। ফলে কারও টাকা শেষ হয়ে গেলেও সংযোগ বিচ্ছিন্ন হচ্ছে না।

আর ডিপিডিসির নির্বাহী পরিচালক এটিএম হারুন অর রশিদ বলেন, “গ্রাহকদের মধ্যে আর সেবাদাতাদের মধ্যে সঠিক বোঝাপড়ার সমস্যা হচ্ছে। সেকারণে অনেক গ্রাহককে ভোগান্তির মধ্যে পড়তে হচ্ছে।
আমাদের কাছে ফোন দিয়েছে কিন্ত সমস্যার সমাধান হয়নি এমন কোনো উদাহরণ নেই। এটা একটা ক্রাইসিস মুহূর্ত। সবাই ঘরে । আমরা কিন্তু মাঠে আছি, কাজ করছি। অনেক জায়গায় ভেন্ডর হয়তো উপস্থিত থাকতে পারছেন না। কিন্তু আমাদের অনেকগুলো টেলিফোন নম্বর দেওয়া আছে। সেগুলোতে ফোন করলেই সমাধান মিলবে।

বর্তমান পরিস্থিতিতে প্রি-পেইড গ্রাহকদের ভোগান্তি কমাতে প্রতিটি গ্রাহকের বাড়ি বাড়ি গিয়ে অগ্রিম পাঁচ হাজার টাকা লোড করে দিয়ে আসার সিদ্ধান্ত হয়েছে। পরিস্থিতি ভালো হলে আগে এই টাকা কেটে নেওয়া হবে। অচিরেই এই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করা হলে কারোর আর কোনো অভিযোগ থাকবে না।

ডিপিডিসির নির্বাহী পরিচালক (মানবসম্পদ) জয়ন্ত কুমার সিকদার (০১৭৩০৩৩৫০২৫) ও নির্বাহী পরিচালক (প্রশাসন) এটিএম হারুন অর রশিদ (০১৭৩০৩৩৫০৭৯) এবং ডেসকোর প্রকৌশলী একেএম মহিউদ্দিন (০১৭১৩০২৪০৫৮) ও প্রকৌশলী জাকির হোসেন (০১৭১৩০৯০৫৯০) এর নম্বর আগেই প্রকাশ করা হয়েছিল। এর বাইরে সংশ্লিষ্ট বিতরণ সংস্থার ওয়েবসাইটে দেওয়া আছে আরও কিছু কর্মকর্তা ও পস মেশিন এজেন্টের নাম্বার।

ছড়িয়ে দিন

Calendar

December 2021
S M T W T F S
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
262728293031