বুয়েট নিয়ে আমার পর্যবেক্ষণ

প্রকাশিত: ৯:৩৮ অপরাহ্ণ, মার্চ ৩১, ২০২৪

বুয়েট নিয়ে আমার পর্যবেক্ষণ

 

কাজি সায়েমুজ্জামান

বুয়েট নিয়ে আমার পর্যবেক্ষণটা ভিন্ন। বুয়েটের শিক্ষাটা হলো বিশেষজ্ঞ তৈরির জন্য। দেশের সবচেয়ে মেধাবিরা এখানে লেখাপড়া করেন। আমি যতটুকু দেখেছি বিশেষজ্ঞ শিক্ষা যারা গ্রহণ করেন তারা একমুখি হন। আমার দেখায় বুয়েটের শিক্ষার্থীদের বেশিরভাগের চিন্তা ভাবনা নিজের কেন্দ্রিক। তাদের অনেকেই দেশের বাইরে চলে যান। বিদেশেও তারা ভালো করেন। তবে দেশ তাদের কাছ থেকে কতটুকু পান সেই প্রশ্নটা যে কেউ তুলতে পারে।
পৃথিবীর অনেক দেশে এ কারণে শিক্ষার একমুখিতার লাগাম টানা হয়েছে। দক্ষিণ কোরিয়ায় দেখেছি পিওর সায়েন্স পড়ানো হয়না। সাথে আর্টস পড়ানো হয়। মানবিক দিকগুলো বিকাশের জন্য তারা এ ব্যবস্থা করেছে। এমনকি চিকিৎসকদেরকেও ৭০ ভাগ চিকিৎসা বিষয়ক ও ৩০ ভাগ আর্টস পড়ানো হয়। কোরিয়ার ইতিহাস, অর্থনীতি, সামাজিক বিজ্ঞান পড়ানো হয়।
বুয়েট বা সমগোত্রীয় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে অনেক শিক্ষার্থী এখন সিভিল সার্ভিসের জেনারেল ক্যাডারে আসছে। অনেকেই খুব ভালো করছেন। তবে আমার দৃষ্টিতে মানুষের সাথে মিথস্ক্রিয়ায় বা ত্বরিত যথাযথ সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়ায় তারা পিছিয়ে থাকেন। সেবা প্রদানের দৃষ্টিতে দেখলে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাস করা শিক্ষার্থীরাও এদের চেয়ে এগিয়ে। এ কারণে বুয়েটে ত্রিশভাগ আর্টস পড়ানো দরকার। নিজের সাথে নিজের দেশকে নিয়েও যাতে এদের ভাবনা জাগ্রত থাকে।

কাজি সায়েমুজ্জামান ঃ প্রজাতন্ত্রের সুশীল সেবক