ঢাকা ১৪ই জুলাই ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩০শে আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৮ই মহর্‌রম ১৪৪৬ হিজরি


ব্যবসায়ীদের সাথে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মত বিনিময় সভা

redtimes.com,bd
প্রকাশিত জুন ২৫, ২০১৯, ১১:২৪ অপরাহ্ণ
ব্যবসায়ীদের সাথে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মত বিনিময় সভা


কামরুজ্জামান হিমু

বংশালে ঔষধ ব্যবসায়ীদের সাথে ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের বিশাল জনসচেতনতামূলক সভা অনুষ্ঠিত হয় গত সোমবার । সেই সভায় সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ কেমিস্ট এন্ড ড্রাগিস্ট সমিতির সভাপতি মোঃ সাদেকুর রহমান এবং প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মোঃ মাহবুবুর রহমান। বাংলাদেশ কেমিস্ট এন্ড ড্রাগিস্টস সমিতির কেন্দ্রীয় এবং জেলা শাখার নেতৃবৃন্দসহ সাধারণ ঔষধব্যবসায়ী উপস্থিত ছিলেন।

মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষধ সংরক্ষণ এবং বিক্রয় রোধের ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য মহামান্য সুপ্রিমকোর্ট ও হাইকোর্ট ডিভিশনের নির্দেশনা থাকায় মহাপরিচালক, ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর আগামী ০২ জুলাই ২০১৯ তারিখের মধ্যে ফার্মেসীতে সংরক্ষিত মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষধ সংশ্লিষ্ট উৎপাদনকারী এবং আমদানিকারক প্রতিষ্ঠানকে ফেরত প্রদান এবং ঔষধ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানকে স্ব স্ব চ্যানেলের মাধ্যমে ফেরত নেওয়া মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষধ যথাযথ প্রক্রিয়ায় ধ্বংস করার নির্দেশ প্রদান করেন। এ বিষয়ে ঔষধ ব্যবসায়ীরা সকলে ঐক্যমত পোষণ করেন। মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষধ এর বিষয়ে ক্রেতা বিক্রেতা সবাইকে সচেতন হতে হবে উল্লেখ কওে তিনি বলেন, একটি মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষধ ও ক্ষতিকর, একটিও যেন ক্রেতার হাতে না পৌঁছায়।

তিনি সভায় নির্দেশনা প্রদান করেন-

 ফার্মেসীর কোথাও মেয়াদ উত্তীর্ণ ঔষধ মজুদ/সংরক্ষণ করা যাবেনা। মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষধ বিক্রয়ের জন্য সেলফ/ড্রয়ার/ রেফ্রিজারেটর অথবা ফার্মেসীর অন্য কোথাও পাওয়া গেলে জব্দ করতঃ আইনানুগব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
 মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষধ আলাদা কন্টেইনাওে “মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষধ বিক্রির জন্য নয় ”লাল কালি দিয়ে লিখে সংরক্ষণ করতে হবে এবং যথাশীঘ্র উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের নিকট হস্তান্তর করতে হবে। এ বিষয়ে রেকর্ড সংরক্ষণ করতে হবে।
 ফার্মেসীতে মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষধপাওয়া গেলে ফার্মেসীটি সিলগালা/ বন্ধ করাসহ কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
 ফার্মেসীতে সরকারি ঔষধ ও ফিজিশিয়ান স্যাম্পল বিক্রি করা যাবে না। সরকারি ঔষধ ও ফিজিশিয়ান স্যাম্পল বিক্রি করা আইননত দন্ডনীয় অপরাধ।
বাংলাদেশ কেমিস্ট এন্ড ড্রাগিস্ট সমিতিরমাধ্যমে সভায় আলোচিত বিষয়সমূহ সারা বাংলাদেশের ঔষধ ব্যবসায়ীদের জানাতে বলা হয়। ঔষধ প্রশাসন অধিদপ্তর মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষধ সংরক্ষণ ও বিক্রয় বন্ধে জিরো টলারেন্স নীতি অনুসরণ করছে বলে মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মোঃ মাহবুবুর রহমান বলেন। তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশ কেমিস্ট এন্ড ড্রাগিস্ট সমিতির সাথে এ ধরনের জনসচেতনতামূলক অনুষ্ঠান পর্যায়ক্রমে বিভাগীয় ও জেলা শহরে করা হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

July 2024
S M T W T F S
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
28293031