ব্রিগেডিয়ার(অব.) আব্দুল মালিক ‘এক্সেলেন্স অ্যাওয়ার্ড’এ ভূষিত

প্রকাশিত: ১০:১৮ পূর্বাহ্ণ, মে ২১, ২০২১

ব্রিগেডিয়ার(অব.) আব্দুল মালিক ‘এক্সেলেন্স অ্যাওয়ার্ড’এ ভূষিত

বাংলাদেশে উচ্চ রক্তচাপের ঝুঁকি হ্রাস করতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখায় জাতীয় অধ্যাপক ব্রিগেডিয়ার(অব.) আব্দুল মালিককে ‘এক্সেলেন্স অ্যাওয়ার্ড’এ ভূষিত করেছে ওয়ার্ল্ড হাইপারটেনশন লীগ(আন্তর্জাতিক সংস্থা)।
দেশে উচ্চ রক্তচাপ সম্পর্কে জনসাধারণের মধ্যে সচেতনতা তৈরি ও রোগটি নিয়ন্ত্রণে কৃতিত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখার স্বীকৃতি স্বরূপ তাঁকে এই পুরস্কার প্রদান করেছে সংস্থাটি।

প্রতিবছর ১৭ মে বিশ্ব উচ্চ রক্তচাপ দিবসে এই পুরস্কার ঘোষণা করা হয়। এ বছর জাতীয় অধ্যাপক ব্রিগেডিয়ার(অব.) আব্দুল মালিক ‘ডিপ্লোম্যাসি অ্যান্ড অ্যাডভোকেসি ফর পপুলেশন হাইপারটেনশন রিস্ক রিডাকশন’ শ্রেণীতে ‘এক্সেলেন্স অ্যাওয়ার্ড’ লাভ করেছেন, যা বাংলাদেশের জন্য অত্যন্ত গর্বের একটি বিষয়। ইংরেজী দৈনিক সান গত ১৭মে এ খবর প্রকাশ করে।

বাংলাদেশের হৃদরোগ চিকিৎসার পথিকৃত ও ‘ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন অব বাংলাদেশ’এর প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি ব্রিগেডিয়ার(অব.)এ মালিক দীর্ঘদিন ধরে বাংলাদেশে উচ্চ রক্তচাপ ও অন্যান্য হৃদরোগ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণে নিরন্তর কাজ করে আসছেন।
গণমুখী সেমিনার, ফ্রি হাইপারটেনশন ক্লিনিক, সচেতনতামূলক লিফলেট, পোস্টার, ব্যানার প্রদর্শন, আলোচনা অনুষ্ঠান, বৈজ্ঞানিক সেমিনার সহ নানাবিধ উপায়ে ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন অব বাংলাদেশ দেশব্যাপী উচ্চ রক্তচাপ ও অন্যান্য হৃদরোগ বিষয়ে সচেতনতা ও নিয়ন্ত্রণে কাজ করে যাচ্ছে।

বর্তমানে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এনসিডিসি কন্ট্রোল প্রোগ্রাম এবং ‘ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন অব বাংলাদেশ’এর যৌথ উদ্যোগে এবং ‘Resolve to save lives’ ইউএস এর সহযোগিতায় সিলেট বিভাগের এবং কিশোরগঞ্জ ও জামালপুরের ৫৪টি উপজেলায় উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ কর্মসূচি পরিচালিত হচ্ছে। পর্যায়ক্রমে দেশের সব কয়টি উপজেলায় এই কার্যক্রম বিস্তৃত করার পরিকল্পনা রয়েছে।

ড: মালিক সিলেট, দক্ষিন সুরমার পশ্চিমভাগে ১৯২৯ সালের ১ ডিসেম্বর এক সুখ্যাত পরিবারে জন্ম গ্রহন করেন। তার বাবার নাম মৌলভী ফুরকান আলী এবং মাতার নাম নুরুন্নেছা খাতুন। তিনি ৩ সন্তানের জনক।

ছড়িয়ে দিন