বয়ানে রামাদান ১০

প্রকাশিত: ৯:২২ অপরাহ্ণ, মে ৩, ২০২০

বয়ানে রামাদান ১০


চৌধুরী হাফিজ আহমদ
ইসলামকে যখন বিধান হিসাবে সম্পূর্ণ করে দেয়া হয় আল্লাহর পক্ষ থেকে তখনি এর মধ্যে কি কি থাকবে ও থাকবেনা তা ঠিক করে দেয়া হয় , এর মধ্যে ঈমান – সালাত – সিয়াম- হাজ্জ – যাকাত থাকবে বলে নিয়ম করা হয় এই ৫ টি বিষয়ের মধ্যেই সিমাবদ্ধ করে নিয়ম নীতি প্রণয়ন করেন , রাসুলুল্লাহ সঃ যখন ঘোষণা দেন আজ থেকে আল্লাহ জীবন বিধান হিসাবে ইসলাম কে মনোনীত করেছেন সেই সময়েই রূপরেখা কি হবে তা বলেছেন বিশ্বাস স্তাপন করব আল্লাহর উপরে সালাত আদায় করব ৫ ওয়াক্ত – রামাদান মাসে সিয়াম পালন করব এক মাস -জাকাত দেব বছরে একবার – এবং হজ্জ করবো জিবনে একবার ,
এই কাজগুলা সার্বজনীন সবাইর জন্য করতেই হবে অবশ্য কিছুটা শিথিল আছে গরীব সাধারণের জন্য তবে সেই গরীবকেই চেষ্টা করতে হবে জীবন মানের উন্নতি সাধনে গরিব বলে সারা জীবন গরিব ই থাকবে তা কাম্য হতে পারেনা , একদম সহজ ভাবে সাজানো হয়েছে ইসলাম কে – এর মধ্যে কাহাকে কি দেব কোথায় কোথায় দেব তাও বলে দেয়া হয়েছে – জাকাত – লিল্লাহ – সাদাকা -ফিতরা । এর বাহিরে দিলে একান্ত নিজের ইচ্ছায় দেবে , ইদানিং আমাদের সমাজে ইসলামের নামে ডাকাতি হচ্ছে এক পক্ষ্য বসেই আছে পাবার আশায় আরেক পক্ষ্ আছে ছিনিয়ে নেবার মানসে অন্যদিকে প্রাতিস্টানিক কিছু ইনস্টিটিউট করা হয়েছে শুধু মাত্র দানের উপর ভিত্তি করে এর পরে রয়েছে মাজারের মানতের কোরবানির চামড়া ইত্যাদির নামে মাস্তানী যা মোটে ও সমর্থন যোগ্য নয় তাই হচ্ছে ইসলামের নামে কলঙ্ক , অন্যদিকে আরেক পক্ষ আছেন তাহারা ইসলামের নাম দিয়ে ব্যবসা করেই যাচ্ছেন তাবিজ জাদু মন্ত্র তন্ত্র রূহানী আমল চিকিৎসা খানকা জিন পীর ওলী ইত্যাদি ইত্যাদি যা আদৌ ইসলামের খাতায় নেই এবং ছিল ও না এই ব্যবসায়িক পদ্ধতিকে আজে বাজে মনগড়া কাহিনী দিয়ে অমুকের লেজে তমুকের লেজ লাগিয়ে দলিল দেবার চেষ্টা করেন তা কোন যুক্তিতে ই টিকে না এই সব ভণ্ডামি ছারা কিছুই নয় , হকিকতের আধ্যাত্মিকতায় টাকা কামানোর উপায় নাই সেখানে দুনিয়ার লোভ লালসা ভোগ স্বার্থ এইগুলা অচল । ইসলামে রামাদান হচ্ছে মধ্যখানে মাঝামাঝি যে থাকে তার মুল্য মর্যাদা আলাদা রামাদানের সিয়ামের মুল্য ও তাই আল্লাহর কাছে আলাদা তিনি নিজেই এর তদারকি করেন উপোষ করাই নয় সালাত থেকে নিয়ে একদম সামান্য তাসবীহ কে পড়লো কোথায় কখন কোন নিয়তে তার হিসাব ও তাহার ক্যামেরায় ধরা পরে এত কন্ট্রলিং অন্য কোন ইবাদতে নাই , একমাত্র তিনি ই বান্দাহ কে এর প্রতিদান দেন , তাই নিয়ত এখানে বিশাল ভুমিকা রাখে সেহরী থেকে ইফতার – ইফতার থেকে সেহরী সব কিছুতেই থাকে আল্লাহর নিবিড় পর্যবেক্ষণ । রামাদানে আমাদের উচিত সবকিছুতে সতর্ক থাকা নতুবা আমি ছেলে বেলা থেকে দেখে আসছি রামাদান আসে যায় কিন্তু মনে পরিবারে সমাজে রাষ্ট্রে কোন পরিবর্তন আসেনা এর আসল কারন ই হল আমাদের গাফিলতা ও প্রকৃত শিক্ষার অভাব আমাদের বলা হয়েছে এক করি ভিন্ন , বলা হয়েছে উপোষ করতে আমরা তা পুষিয়ে নিচ্ছি অধিক ইফতার ও সেহরিতে – আমাদের বলা হয়েছে তাকতে সংযমে ও তাকওয়ায় কিন্তু আমরা আছি ইফতারির আয়োজনে ইফতার পার্টি মেয়ে বাড়ি ইফতার দিতে জামাইকে খুশী রাখতে , আমরা শিক্ষা ণা দিয়ে ইচ্ছে খুশী খুচরা জাকাত দিচ্ছি এতে গরিব আরও নিঃস্ব হচ্চে যার ফলে সমাজে বেরে যাচ্ছে হিংসা লোভ দুর্নীতি , রামাদানের শিক্ষা অর্জন না করে আমরা জিবনেকে নিয়ে যাচ্ছি বিলাসিতার অন্ধকারে , আমি প্রতিবার রামাদান এলেই দেখি তাকওয়া থেকে বেশী থাকে অপচয় অবহেলা লোভ এই গুলা পরিহার করে আমাদের মন মানসিকতা পরিবর্তনের প্রয়োজন তাকওয়া পরিপন্তি কাজ বেশী হলে আল্লাহ খুশী হবেন না এবং প্রকৃত উপহার পাচ্ছিনা । আজকে চলছে দশম দিন রামাদানের এই দিনে রয়েছে আমাদের অনেক অনেক বিজয়ের কাহিনী এই রহমতে ভরা দিনে বিজয় লাভ করেছেন বদরের যুদ্ধে আমাদের সৈনিকেরা যে যুদ্ধের সেনাপতি ছিলেন রাসুলুল্লাহ সঃ নিজে , মুমিনদের বিজয়ী করেন আল্লাহ সব সময় , মুমিনদের সাথেই আল্লাহর সম্পর্ক বেশী আমাদের উচিত এই রামাদান কেই মুমিন হবার মাধ্যম বানানো , যতই ভাল কজ করিনা কেন মুমিন না হলে এর স্বীকৃতি পাচ্ছিনা আল্লাহর পক্ষ্য থেকে তাই উচিত হবে আমাদের মুমিন হবার চেষ্টা করা - কেননা মুমিন ই হচ্ছে দুনিয়াতে কল্যানের আখিরাতে জান্নাতের ওয়ারিশ এরাই আল্লাহর সৈনিক রাসুল সঃ এর আশিক সিরাতুয়ালীফও কিয়াম করতে পেরেছি এর জন্য শুকরিয়া আদায় করছি আল্লাহর প্রতি , তিনি আমাদের তাওফিক না দিলে পারতামনা কিছুই করতে -চলমান ভাইরাস জনিত কারনে বিরাজ করছে এক চরম অচলাবস্তা সকল দেশের সরকারের নির্দেশে সবাই ঘরে বন্ধি , হাসপাতালগুলাতে হচ্ছে লাশের পাহাড় চারিদিকে বিপদের হাতছানি আশংকা করছেন চিন্তাবিদরা সামনের দিনগুলাতে আমাদের মোকাবেলা করতে হবে কঠিন অবস্তার , এরি মাঝে রামাদান আমাদের জন্য এক বিশাল নিয়ামত এই নিয়ামত কে আদর যত্ন করে আমাদের অর্জন করতে হবে মাফি আনতে হবে আগামির জন্য কল্যান , এমনি এমনি চলে গেলে আফসোসের সীমা থাকবেনা , আমি আশায় আছি প্রস্তুতি নিচ্ছি কদরের রাত্রি গুলার এখন থেকেই , ইবাদত বন্দেগী যতো পারি করব এর সাথে সময় কাঠাব আল্লাহর জপ নামে , অনেক জিকির আছে যা করলে সময় কাঠে ভাল চলতে পথে সাহায্য আসে আসমানের উপর থেকে মালাইকারা সাথী হয় এমন একটি ভাল অভ্যাস আছে যে আমল আল্লাহ নিজে করেন মালাইকারা করেন আমরা ও করলে আনন্দের সীমা থাকবেনা এই আমলটির কথা আল্লাহ নিজেই বলেছেন -** ইন্নাল্লাহা ওয়া মালাইকাতুহু ইউসাল্লুনা আলান নাবী ইয়া আইয়ুহাল্লাজিনা আমানু ছাল্লু আলাইহি ওয়া সাল্লিমু তাসলিমা**( সুরা আহজাব ৫৬)দুরুদ শরিফ এমন এক সুন্দর ও ভাল অভ্যাস যা করলে ফায়দা ই ফায়দা কদমে কদমে রহমত বর্ষিত হয় রাসুলের প্রতি মহব্বত দুনিয়া ও আখিরাতে কামিয়াবির অন্যতম হাতিয়ার , দুনিয়াতে যেমন মর্যাদা তেমনি আখিরাতে মর্যাদা ও পাচ্ছি সফলতা , রামাদানে দুরুদ শরীফের আমল এনে দিতে পারে ইবাদতে আলাদা এক স্বাদ অনেক ওলী বুজুর্গ বলেছেন প্রতিদিন কমপক্ষে ২০০ বার দুরুদ শরিফের আমলে বেচে থাকা যায় অনেক বিপদ থেকে তাই আমাদের জিবনে প্রান সতেজ রাখতে পড়া উচিত আল্লাহুম্মা ছাল্লি আলা মুহাম্মদ নিয়মিত , রামাদানের আরেকটি উত্তম আমল হল কোরআনের সহিত সময় কাঠান , তিলাওয়াত তাফসির পড়া , এই চর্চা অব্যাহত থাকলে শঙ্কা থাকেনা কারন এই কোরআনের জন্ম মাসে তাহার সাথেই সময় কাঠাচ্ছি তাই আশা করতে পারি কোরআন মজীদ আমাদের জন্য সুপারিশ করবে । কোরআন করীম সুপারিশ করলে আর কি চাই জীবনে ! রামাদানের বিস্তারিত নিয়ম নীতি জানার জন্য আমরা সাহায্য নিতে পারি বিভিন্ন বই নতুবা লকেল মাসজিদের ঈমাম সাহেবদের না জানলে ক্ষতি নিজের , শুনে শুনে বা দেখে দেখে ইবাদতের যুগ এখন নেই এখন জানার এবং শিখার জন্য রয়েছে প্রচুর মাধ্যম , আল্লাহ আমাদের রব তিনি নিজেই তাহার কোরআন সকল ইনসানদের ঘরে ঘরে পৌঁছিয়েছেন এমন কি আলাদা টাকা খরছ করতে হয়না নিজ ব্যবহৃত মোবাইল ফোনেই গুগলি তে সার্চ দিলেই চলে আসে যার যার ভাসা অনুযায়ী অর্থ সহ কোরআন , গাফিলতি না করে আসুন আমরা কোরআন বুঝার চেষ্টা চালাই , রামাদানের আরও বাকী আছে ২০ দিন আমরা অবহেলা না করে সেই সময়টুকুন সঠিক ভাবে কাজে লাগাই , নতুবা রামাদানের হক্ক আদায় হবেনা , নিজের অহমিকা ত্যাগ বাজে সব কিছু বাদ দিয়ে দেহ মন উজার করে পবিত্র মনে সিজদায় লুটিয়ে আল্লাহকে রাজী করাতে লেগে থাকি , ক্ষমার সাগর তিনি ক্ষমাই তাহার পচন্দ – আমাদের চাইতেই বাকী শুধু ।

ছড়িয়ে দিন

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

Calendar

November 2021
S M T W T F S
 123456
78910111213
14151617181920
21222324252627
282930