বয়ানে রামাদান -১

প্রকাশিত: ১০:২৭ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২৪, ২০২০

বয়ানে রামাদান -১


চৌধুরী হাফিজ আহমদ

আজকে প্রথম রামাদান চলছে প্রায় সর্বত্র । সময়ের ব্যবধানে অনেক দেশে কিছুটা তারতম্য ঘটে , রামাদান এলেই আমাদের সমাজে এক ধরনের আলাদা আমেজ আসে । আবার অন্য দিকে, আমাদের সমাজে রামাদান পালন থেকে রামাদান কে দিয়ে নানা রকম স্বার্থ উদ্ধারে ব্যস্ত হয়ে পড়ি । বরাবর দেখে আসছি যা তা ই বলেছি । কিন্তু এবারে রামাদান একেবারে ভিন্ন, সম্পূর্ণ আলাদা । কারণ এই সময়ে পৃথিবীর প্রায় সব মুসলিম দেশে চলছে মহামারী রোগের সমস্যা তাই সবাই ঘরে বন্দি । এই রকম অবস্থা অতীতে হাজার বছরের ইতিহাসে ঘটেনি । এবারের মত রামাদানে এত নীরবতা চোখে পড়েনি ।
এই রামাদান আশা করছি আমাদের সকলের জন্য আসল হেদায়েতের উসিলা হবে । বয়ানে প্রকাশ রামাদান হচ্ছে আরবি হিজরি বছরের এক মাসের নাম । আরবি ১২ মাসের মধ্যে নবম মাস হচ্ছে রামাদান । এই মাসটি ধর্মীয় খাতায় খুব প্রাধান্য পেয়েছে ঘুরে ফিরে নানান ভাবে রামাদানের আলোচনা । স্বয়ং আল্লাহ রাব্বুল আল`আমিন করেছেন নবী রাসুল সঃ রা করেছেন এমন কি মালাইকারা ও করেছেন । এর কারণ রয়েছে অনেক । এর মধ্যে অন্যতম কারণ হচ্ছে এই মাসে আল্লাহ তায়ালা কোরআন নাজিল করেছেন ।
কোরআনের জন্ম মাস বলেই রামাদানে এত জাঁকজমক আয়োজন। রামাদানে সিয়াম ছিল আমাদের আগে ও সিয়াম পালন করেছেন । আল্লাহ তা ব্যক্ত করেছেন – আমি তোমাদের জন্য সিয়াম ফরজ করে দিলাম যেমনটি ফরজ ছিল তোমাদের পূর্ববর্তী জাতি গুষ্টির জন্য । এতে করে বুঝা যায় সিয়াম নতুন নয় আগে ও ছিল ,তবে ভিন্ন ভাবে পালিত হত ।
হয়ত কিছু কিছু নিয়ম এর কথা জানা যায় অন্যান্য ধর্ম বলে তাদের থেকে । তবে কোরআনে বিস্তারিত বর্ণনা আছে , আমাদের জন্য সিয়াম পালন হচ্ছে সূর্যয় উদয় থেকে সূর্যয় অস্ত পর্যন্ত যেই মাত্র চন্দ্র উদিত হবে তখনি আমরা আহার করতে পারব । একে বলা যায় চন্দ্রকালীন আহার বা অন্ধকারে খাবার । আরও বেশ নিয়ম আছে । মেনে চলার মত । তা কঠোর ভাবে মানার নাম ই হচ্ছে সিয়াম । সিয়ামের মধ্যে যা প্রধান তা হচ্ছে সংযম।
আমাকে নতুন করে সংযমের ব্যাখা দিতে হবেনা আমাদের অনেকের জানা আছে এই রামাদান ব্যাপারটি কমবেশি আমরা জানি , কিন্তু মানিনা বলেই ঠকছি বা ঠকাচ্ছি । প্রাপ্য হতে বঞ্চিত হচ্ছি । কারণ মানব জীবনের অন্যতম উপাদান আসে বা ভাগ্য নির্ধারিত হয় এই মাসেই । তাই পণ্ডিতেরা বলেন যে রামাদান পেল অথচ তার ভাগ্য গড়তে পারলনা, তার জীবন আসলেই ব্যর্থ । রামাদানে তাকদিরের যা যা চাই তা যদি আনতে না পারি তা হলে একদম শূন্য হয়ে সাধারনের মতই থাকতে হবে । যেমনটি থাকছে অন্যান্যরা ।
রামাদান এত গুরুত্বপূর্ণ যে চলার বলার করার যত গুনাহ আছে তা থেকে মাফি পাওয়া যায় সহজে ,অনেক পাপ আছে যা কোন ভাবে মাফ করানো যায়না । সেই রকম পাপ এই মাসে অর্থাৎ রামাদানে মাফ করানো সম্ভব । এই মাসে খোলা থাকে আসমানি ভাণ্ডার । আমরা যারা আজ অতিবাহিত করছি এর থেকে একদিন ফুরিয়ে গেল । সময় এত দ্রুত ফুরিয়ে যায় এই মাসে মনে হয় ধরতে ধরতে যেন চলে গেল বা এল কোন দিকে গেল কোন দিকে বুঝতেই পারলাম না ।
এই আমাদের হাত থেকে আজ গেল তখন রইল বাকী ২৯ । তাই কোন ভাবেই অবহেলা করা যাবেনা বা সময় কে অপচয় করা যাবেনা । রুটিন করে সময়কে কাজে লাগাতে হবে , প্রত্যেকটা মিনিট যেন কাঠে ইস্তিগফারে – দুরুদ শরিফ পাঠে – রাত্রে যেন তিলাওয়াত সহ সালাত আদায়ে কার্পণ্য না করি ।
৮/১০/১২/২০ এর দিকে না তাকাই প্রয়োজনে ৪০/৫০ রাকাত ও সালাত আদায় করা যায় , ইফতার পরে তারাবীহ এর পরে তাহাজ্জুদ এর পরে নফল ইত্যাদি রয়েছে । রামাদানে উপোষ থাকা ও একধরনের ইবাদত । অনেকেই অনেক ভাবে অক্ষম।
সেই অক্ষমতাকে পুজি করে রামাদান কে পাশ কাটানোর চেষ্টা করেন বা রোগের বাহানায় এড়িয়ে চলেন এতে করে নিজের কপালে নিজেই কুড়াল মারেন । সব ধরনের অক্ষমতাকেই সক্ষমতায় পরিণত করা যায় এই মাসে । এর মধ্যে অন্যতম হল মনে মনে অনুশোচনা করা । এমন ভাবে তাওবা করবেন যাতে এর মধ্যে সামান্য ও দম্ভ না থাকে ।
এই রামাদান মাস হচ্ছে তাওবার মাস । এখানে অন্যথা হয়না । তাওবাকারীকেতই মাফি দেয়া হয় । ঘরের ছেলে ঘরে ফিরলে যেমন আনন্দ হয় তেমনি আমাদের মালিক আল্লাহ ও আনন্দিত হয়ে পুরণ করে দেন সকল জরুরত । আমাদের মুখের প্রতিটা শব্দ হতে পারে ইবাদত । কথায় কথায় পাব হাজার গুন পুরস্কার যদি খেয়াল করে চলি । এই মাসে অনুশীলনে পিছনে থাকলে বাকী ১১ মাস পস্তাতে হবে , তাই আসুন আমরা রামাদানের প্রত্যেকটা মুহূর্ত কে কাজে লাগাই । রামাদানের আসল পুরস্কার যেন অর্জন করতে পারি তাই সবার কাম্য হোক ।

ছড়িয়ে দিন

Calendar

December 2021
S M T W T F S
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
262728293031