বয়ানে রামাদান ২৮

প্রকাশিত: ১০:১১ অপরাহ্ণ, মে ২১, ২০২০

বয়ানে রামাদান ২৮


— চৌধুরী হাফিজ আহমদ
বছরের সেরা সকল মাসের রাজা রামাদান আমাদের সাথে আছে আর মাত্র ২ দিন । বিগত ২৮ দিন এত এত দিয়েছে তবু ভাণ্ডার খালি হয়নি । আগামি ২ দিন দিতেই থাকবে । আমরা আরও নিয়ে সংরক্ষন করে রাখতে পারবো জীবন নামক সিন্দুকে, যত চাই তত । এই খাজানা নিয়ে রামাদান ঘূর্ণায়মান , যাওয়া আসার মধ্যেই রামাদান মানুষদের কাছে বার্তা পৌছাতে থাকে যা অন্য কোন মাসের পক্ষে সম্ভব হয়না , এক মাসের এই ভ্রাম্যমান মহা বিদ্যালয় যা শিক্ষা দেয় তাহাতেই আমাদের দুনিয়া আখিরাত জয় করার জন্য যথেষ্ট । রামাদানের শিক্ষার মধ্যে সর্ব প্রথম আসে আল- কোরআন , সার্বজনীন ভাবে তা সবার কাছে পৌঁছাতে থাকা এর ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখা তাহাকে মেনে চলা সমাজে প্রতিস্টিত করা সমতা আনা সকল অন্যায় বাতিল কে না বলা । লাইলাতুল ক্কাদর খুঁজতে খুঁজতে আমরা কেউ ক্লান্ত হইনি ইনশাহ আল্লাহ আগামী ২ রজনী তে ও খুঁজব , ইবাদত করতে কোন সমস্যা নেই – ইবাদত এমন এক শান্তি যার মাধ্যমে আত্মা সতেজ হয়ে উঠে , রুহের খোরাক হচ্ছে আল্লাহর জিকির যাহারা সর্বক্ষণ আল্লাহর জিকিরে থাকে আল্লাহ নিজেই তাহাদের ফিকির করেন , জিকিরের দ্বারা জীবন শান্তি ময় হয় শরীর ভাল থাকে অবস্তার উন্নতি হয় সমাজ রাষ্ট্রে উন্নয়ন ঘটে , আল্লাহ রাব্বুল আ আমিন এই জন্য ই বিশেষ বিশেষ দিন মাস দিয়ে আমাদের কে আনন্দে মুখরিত করে রাখেন , সাপ্তাহে আনন্দের দিন হচ্ছে শুক্রবার , মাস ব্যাপী উৎসব রামাদান , হাজ্জের মাধ্যমে ভ্রমনের আনন্দ , মহররমের মাধ্যমে আরেক অধ্যায় , জ্ঞান বিজ্ঞান জানার ও বুঝার জন্য রজব মাসে মিরাজ , এই রকম এক সুবিশাল প্ল্যান দিয়ে ই মুমিন দের ব্যস্ত রাখেন , দুনিয়াতে আল্লাহ সকলকে জানাতে চান এই রকম জার্নি করতে হবে মাঞ্জিলে মাক্সুদ তথা জান্নাতে পৌছাতে হলে – এর মাঝখানে যে আল- কোরআনকে সাথী করে চলবে তাহারাই হবে সফল । বলতে দ্বিধা নেই আমার আল- কোরআন ই হচ্ছে একমাত্র চাবি যা দিয়ে ভাগ্যের তালা খোলা যায় । আমরা সচরাচর শুধু ফজিলতের হিসাব করি , কোন দুআ বা তাসবীহ পড়লে কতো সাওয়াব কোন তাসবীহ পাঠে বিপদ মুক্তি ঘটে আখিরাতে মুক্তি পাব তার খুজ নেই - অথচ কোরআন যে বলে কর্মই হচ্ছে আসল তা খেয়াল করিনা - সমানে দুর্নীতি করছি হারাম কামাইয়ে ঘর শরীর ভর্তি , মদের সাথে বন্ধুত্ব - সুদের সাথে সখ্যতা - জুয়ার মধ্যে আনন্দ খুঁজি - জিনা করে তৃপ্তি খুঁজি - অহংকার বিলাসিতায় জীবন খুঁজি এরা যতই তাসবীহ দুআ করিনা কেন তাহাতে মুক্তি পাবনা , একবার তাওবা করলাম আবার সেই একই ভুল করতেই থাকলাম তা হলে মাফির আশায় ইবাদত করা মানেই আল্লাহর সাথে তামাশা করা । আল্লাহ তাই অত্যন্ত স্পষ্ট করে বলেছেন -** ইয়া আইউহাল লাজিনা আমানু উদখুলু ফিস সিলমি কাফফা ,ওয়ালা তাত্তাবিয়ু খুথুওয়াতিশ শাইতানি ইন্নাহু লাকুম আদুয়্যুম মুবিন ** (সুরা বাক্কারা)। মানলে মানবে সম্পূর্ণ ভাবে না মানলে নাই – মধ্যখানে বা মাঝা মাঝি বলে কিছুই নাই যাহারা তা করে এদের জন্য ভয়াবহতা আছে দুনিয়াতে ধ্বংস আছে আখিরাতে এরাই শাইতানের দোসর তাই ইসলামে প্রবেশ করতে হলে পুরাপুরি ভাবে আসতে হবে সকল নিয়ম কানুন মেনে চলতে হবে আর তা মেনে যখনি ইবাদত করবে সব কিছুই কবুল করা হবে । আমার অনেক্ আলোচনায় বলি দুআ কবুলের অন্যতম শর্ত হচ্ছে ভাল আচরন ও হালাল কামাই , রুজি যদি হালাল না হয় তা হলে ইবাদতে ও মজা নাই । আজকে আমরা অতিক্রম করছি ২৮ তম দিন , যে যেখানেই আছি সবাই আমরা আল্লাহর কাছে তাওবা করছি দুআ করছি ছালামতির জন্য – এখন আমরা এক মহাবিপদের সম্মুখীন মহামারীর কবলে বিশ্ব ঝাকে ঝাকে মানুষ মৃত্যুর কোলে ঢলে পরছে , আমাদের একান্ত তাওবা হৃদয় দিয়ে কান্নাই পারে আজাব গজব থেকে বাঁচাতে , আমরা সময়ের অপচয় না করে প্রতিটা মুহূর্তকে কাজে লাগানোর চেষ্টা করি , হালাল ভাবে কামাই করার পন করে তাওবা করে আল্লাহ বলি আমাদের সকল চাহিদা পুরন কর আমাদেরকে তোমার কুদরতের জিম্মায় রেখে চালাও ইয়া আল্লাহ । রামাদান আবার আসবে এবং দেখবে ক্যা কত টুকুন কাজে লাগিয়েছেন অর্জন কে , প্রতি বছর আয় ব্যয় হিসাব করেই রহমত বরকত মাগফিরাত নাজাত বণ্টন করে যায় , অফুরন্ত এই ভাণ্ডার থেকে আমরা ও হিসাব ছাড়া নিয়ামত পেয়েই যেতে পারি যদি আমরা রামাদানের শিক্ষা মেনে চলি ও কোরআনকে ব্যবহার না করে এর নির্দেশনা মেনে চলি । আম সকলার কাছে দু` আ প্রার্থী আল্লাহ যেন আমাদের সকলকে হিদায়াতের পথে চালান , আমাদের কে তাহার রহমত থেকে বঞ্চিত না করেন , যত পাপ করেছি মাফ করে যেন সবটুকুন মুছে ফেলেন , মা বাবার খিদমাত করার তাওফিক্ক দেন , সন্তান্দের যেন ভাল অভ্যাস করার তাওফিক দিয়ে দ্বীনের পথে চালান , আলাহ আমাদের রোগ অসুখ সব কিছুকে নুর দিয়ে শিফা দান কর , ইয়া আল্লাহ আমাদের তাওবা কবুল কর – সালাত ও সালাম প্রেরন করছি মহানবী সঃ প্রতি – আস সালাতু আলান নাবী ওয়াস সালামু আলার রাসুল , আল্লাহুম্মা সাল্লি আলা মুহাম্মাদ ।

ছড়িয়ে দিন

Calendar

December 2021
S M T W T F S
 1234
567891011
12131415161718
19202122232425
262728293031