মঠ মন্দির শ্মশান বেদখল ও বাড়ীতে হামলার প্রতিবাদে মানব বন্ধন

প্রকাশিত: ৮:৪২ অপরাহ্ণ, মে ২৫, ২০১৮

মঠ মন্দির শ্মশান বেদখল ও বাড়ীতে হামলার প্রতিবাদে  মানব বন্ধন

গাজীপুর রমাই ঠাকুর আশ্রম এবং বিভিন্ন জায়গায় মঠ মন্দির শ্মশান বেদখল ও হিউম্যান রাইটস ওয়াচ বাংলাদেশ শাখার সভাপতি আইনজীবি রবীন্দ্র ঘোষ এর  বাড়ীতে হামলার প্রতিবাদে জাতীয় প্রেস ক্লাব চত্ত্বরে এক  মানব বন্ধন কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়। সিনিয়র সহ-সভাপতি প্রীতিভূষণ ভট্টাচার্য্য র সভাপতিত্বে আজকের মানববন্ধনে বিভিন্ন জায়গায় মঠ-মন্দির ভাংচুর, শ্মশান বেদখলদারীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে সরকারের প্রতি আহবান জানানো হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ হিন্দু পরিষদের প্রধান সমন্বয়ক সুবীর সাহা, সাধারণ সম্পাদক সাজন কুমার মিশ্র, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক অষ্টম রায়, লিটন মিত্র, সঞ্জয় দেবনাথ, সুমন দে, মুখপাত্র সুমন কুমার রায়, সাংগঠনিক সম্পাদক রবিন লাল, বাংলাদেশ হিন্দু যুব পরিষদের নির্বাহী সভাপতি গোপাল কর্মকার, সাংগঠনিক সম্পাদক মনীষ বালা সহ অঙ্গ-সংগঠনের নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিবর্গ।
মানববন্ধনে উপস্থিত বক্তাগণ দেশের সম্প্রীতি বজায় রাখতে বৃহৎ জনগোষ্ঠী মুসলিম সম্প্রদায়কে হিন্দু সম্প্রদায়ের পাশে থেকে সর্বাত্মক সহযোগীতা করার আহবান জানান।
সিনিয়র সহ-সভাপতি প্রীতিভূষণ ভট্টাচার্য্য তার বক্তব্য সরকারকে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ জানিয়ে বলেন মিথ্যা গুজব ছড়িয়ে সারাদেশের বিভিন্ন স্থানে মন্দির-প্রতিমা ভাংচুর, জোরপূর্বক জমি দখল-বাড়ীঘরে অগ্নি-সংযোগ, লুটপাট, শ্লীলতাহানি ও হিন্দু নির্যাতনকে দেশ থেকে হিন্দুজনগোষ্ঠী উৎখাত করে দেশকে হিন্দু-শুন্য করার কুট-কৌশল করেছে। এসব জঘন্যতম কর্মকান্ডের সাথে প্রকাশ্যে জড়িত ব্যক্তিদের পরিচয় পাওয়ার পরও তাদের সঠিক বিচারের আওতায় না আনার দরুন হিন্দু নির্যাতন ক্রমেই বাড়ছে, যা সত্যিকার অর্থেই দেশের স্বাধীনতা পরিপন্থী, এর ফলে দেশে অনিয়ম, বিশৃঙ্খলা, দেশ বিরোধী কুচক্রী মহল ও দস্যু শ্রেণীর তৈরীতে সহায়ক হচ্ছে।

এসকল নির্যাতন ‘স্বাধীন বাংলাদেশে স্বাধীনতার সূর্য অস্তমিত করার প্রয়াস’ মর্মে উল্লেখ করে সর্বজন স্বীকৃত প্রকৃত দোষীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবী জানানো হয়।