মধুময় সম্পর্ক গুলো ফেসবুকে সীমাবদ্ধ না থাকুক

প্রকাশিত: ১০:২০ অপরাহ্ণ, মে ৮, ২০২২

মধুময় সম্পর্ক গুলো ফেসবুকে সীমাবদ্ধ না থাকুক

তাসলিমা মুক্তা
ফেসবুকের হোমপেজে মায়ের প্রতি শ্রদ্ধা আর ভালোবাসাময় কাব্য সেই সাথে এইযে শতশত ছবি দেখছি ভালো লাগছে, সত্যি কথা বলতে আরো বেশি ভালো লাগতো যদি দৈনিক খবরের কাগজে এই মা’ রাই খুন, ধর্ষণ আর নির্যাতন নামক বিষমাখা শব্দে নিউজের হেড লাইন না হতেন।

মেয়ে বলেন, স্ত্রী বলেন, প্রেমিকা বলেন উনাদের সূচনা তো মা” থেকেই তাইনা!

তবে ধ্যান, ধারণায় এতো বৈষম্য কেনো!!
এছাড়া একজন মা, তার জীবদ্দশায় সন্তানের জন্য, পরিবারের জন্য কতটা নিরবভাবে নিজেকে বিলিয়ে দেন, কাছের প্রিয়জনরা যেনো ভালো থাকে সে হিসেবটা কতটা নিখুঁতভাবে করে থাকেন এসব হয়তো অজানাই থেকে যেতো যদি না সৃষ্টিকর্তা আমাকে দুই সন্তানের মা” হওয়ার অশেষ রহমত দান না করতেন!

আগে যত টা না মায়ের কষ্টগুলোকে মনে পড়তো, এখন তার তিনগুন মনে পড়ে।
মনে পড়ে কিভাবে ভাঙ্গা তরী নিয়ে মা, এতোটা পথ পাড়ি দিয়ে পাড়ের নাগাল পেয়েছিলেন। মনে পড়ে
সন্তানের জন্য ঘুমহীন রজনীটা কতটা সুখের ছিলো।
মন পড়ে মায়েরা কতটা স্বপ্ন নিয়ে রাতকে দিন আর দিনকে রাত করেন।

মনে পড়ে সন্তানের একটু একটু বেড়ে ওঠা একজন মাকে কতখানী আনন্দ দেয় সে গভীরতাটা কতটুকু!
আফসোস, এই মমতাময়ীকে যখন আমরা সন্তানেরা তাঁর কাছের প্রিয়জনরা আঘাত করি যখন তাঁর স্বপ্নগুলো নিরাশার পরিণত হয়, তিনি যে কতটা কষ্ট পান আর এই কষ্টের আঁচড় গুলো এতোটাই পিচাশময় যে এই যন্ত্রণাগুলোও মা হজম করে বেঁচে থাকার আশা রাখেন সন্তানের জন্যই। আহারে “মা”

শুনতে কেমন লাগবে জানিনা, তারপরও বলতে ইচ্ছে করছে, আমরা যারা এই মধুময় সম্পর্কগুলোর জন্য দিবস নির্ধারণ করি কেনো জানি সেটা অনেক কম মনে হয়।
কারণ কিছু সম্পর্কের জন্য ধ্যান,জ্ঞান,সময়, অনুভূতি সবসময়ই উদগ্রীব থাকে ভালোবাসা জানানোর জন্য।
একটা বছরের একটা দিন, আর সেটা ফেসবুকের টাইম লাইনেই সীমাবদ্ধ থাকবে কেনো যেনো এ মন মানতে নারাজ।
পরিশেষে আন্তরিক চাওয়া…

পৃথিবীর সকল মা” যারা বেঁচে আছেন মহান আল্লাহ যেনো তাঁদের নেক হায়াত দেন, যারা অপারের মেহমান হয়েছেন তাঁদের যেনো উত্তম প্রতিদান দান করেন।
ভালোবাসা, শ্রদ্ধা,বিনয় একটা দিবসে সীমাবদ্ধ না থেকে প্রতিটিদিন ভালোবাসাময় হোক মায়াময় হোক।

সকল প্রিয়জনদের উৎসর্গ…..
ভালোবাসি তোমাদের, ভালো থেকো সবসময়।

লেখক- তাসলিমা, মুক্তা পুলিশ সদস্য।