মন্দিরের সেবায়েতকে প্রাননাশ ও মন্দির ছাড়ার হুমকি

প্রকাশিত: ৪:০৮ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ২৭, ২০১৭

মন্দিরের সেবায়েতকে প্রাননাশ ও মন্দির ছাড়ার হুমকি

ফতুল্লার পাগলায় শ্রীশ্রী বাবা পাগলনাথ জিউর মন্দিরের সেবায়েতকে প্রাননাশ ও মন্দির ছাড়ার হুমকি
গত ২৫নভেম্বর না.গঞ্জের ফতুল্লার পাগলায় শ্রীশ্রী বাবা পাগলনাথ জিউর মন্দিরের সেবায়েতকে প্রাননাশ ও মন্দির ছাড়ার হুমকির অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযোগকারী শ্রীশ্রী বাবা পাগলনাথ জিউর ও শ্রীশ্রী রামসীতা মন্দিরের সেবাইত শ্রী শিবু দাস মোহন্ত বলেন, স্থানীয় কতিপয় স্বার্থান্বেষী হিন্দু সম্প্রদায় ও নারায়ণগঞ্জ জেলা ও থানা পূজা উদযাপন পরিষদের কতিপয় ব্যক্তিবর্গের ইন্ধনে আমাকে প্রাননাশ ও মন্দির ছাড়ার হুমকি দেওয়া হয়েছে আমি থানায় অভিযোগ দিতে গেলে অভিযোগ নেয়নি ফতুল্লা থানা পুলিশ আমার শত অনুরোধেও পুলিশ আসেনি ঘটনাস্থলে ।পরে বাধ্য হয়ে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার বরাবর অভিযোগ দাখিল করেছি। সংকট নিরসনে প্রশাসন স্থানীয় এমপি ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হস্থক্ষেপ কামনা করি। বাদীর অভিযোগটি হুবুহু তুলে ধরা হল।
বরাবর
মাননীয়
পুলিশ সুপার,নারায়ণগঞ্জ।
বিষয় ঃ অভিযোগ প্রসঙ্গে।
মহোদয়,
যথাবিহীত সম্মান পূর্বক নিবেদন এই যে, আমি নিম্নে স্বাক্ষরকারি শিবু দাস মোহন্ত (সেবায়েত, শ্রীশ্রী বাবা পাগলনাথ জিউর ও শ্রীশ্রী রামসীতা মন্দির), পিতা-মৃত শ্রী বিহারী দাস মোহন্ত, মাতা- মৃত: মিনতী রানী মোহন্ত, ঠিকানা- শ্রীশ্রী বাবা পাগলনাথ জিউর ও শ্রীশ্রী রামসীতা মন্দির, পাগলা বাজার, থানা-ফতুল্লা, জেলা-নারায়ণগঞ্জ আপনাকে জানাইতেছি যে, স্থানীয় কতিপয় স্বার্থান্বেষী হিন্দু সম্প্রদায় ও নারায়ণগঞ্জ জেলা ও থানা পূজা উদযাপন পরিষদের কতিপয় ব্যক্তিবর্গের ইন্ধনে ১। শিবু দাস (৫৫), পিতা-ধনঞ্জয় দাস, ২। ডাঃ অনিল চন্দ্র দাস (৫২), পিতা-মৃত হরিপদ দাস, ৩। চন্দ্রজিৎ বাড়ৈ, পিতা-মৃত ভোলানাথ বাড়ৈ, ৪। পরিমল মন্ডল, পিতা-ফুলচান মন্ডল, সর্ব সাং-পাগলা, থানা-ফতুল্লা, জেলা-নারায়ণগঞ্জ, ৫। শিখন সরকার শিপন (৫০), সাধারণ সম্পাদক, নারায়ণগঞ্জ পূজা উদযাপন পরিষদ, নারায়ণগঞ্জ মহানগর, ৬। রনজিত চন্দ্র মন্ডল (৫৬), সাধারণ সম্পাদক, নারায়ণগঞ্জ পূজা উদযাপন পরিষদ, নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা সহ অজ্ঞাত প্রায় ১০০/১৫০ জন লোক আমার মন্দিরে অনধিকার প্রবেশ করিয়া মন্দির দখলের ষড়যন্ত্রে দীর্ঘদিন যাপত অপচেষ্টায় লিপ্ত রহিয়াছে। আমি ও আমার পূর্ব পুরষগণ বিগত ১৫০ বছরের উর্দ্ভকাল যাবৎ অত্র মন্দিরের সেবায়েত হিসাবে নিষ্ঠার সহিত দায়িত্ব পালন করিয়া আসিতেছি (যাহার দালিলিক প্রমাণ আবেদনপত্রের সহিত সংযুক্ত)। আমি অত্র দরখাস্তকারী মন্দিরের প্রকৃত স্বীকৃতপ্রাপ্ত সেবায়েত ও বর্তমানে ২০১৬ হতে ২০২০ ইং পর্যন্ত মন্দিরের বৈধ কমিটি থাকা সত্ত্বেও বর্ণিত বিবাদীগণ বর্তমানে নতুন কমিটি গঠন ও আমাকে অত্র মন্দির হতে উৎখাত করা ও মন্দিরের ভূমি দখলের জন্য নতুন কমিটি গঠনের পায়তারা করে আসছে। তারই ফলশ্রুতিতে অদ্য ২৫/১১/২০১৭ ইং তারিখে আমার অনুমতি ব্যতিরেকে মন্দিরে সন্ধ্যা ৭:০০টায় এক বেআইনী সমাবেশের আয়োজন করে আমি খবর পাইয়া উক্ত ঘটনার প্রতিবাদ করিলে ১ ও ২নং বিবাদী তাহাদের দলবল নিয়া আমাকে একইদিন আনুমানিক দুপুর ২টায় মন্দির হতে ২নং গেইট দিয়ে বাহির হওয়ার সময় গেটের সামনে এবং এর পূর্বে আমার দায়িত্বপ্রাপ্ত সেবায়েতদের প্রাণনাশের হুমকিসহ মন্দির হইতে বাহির করিয়া দিবে বলিয়া হুমকি প্রদান করে।পরে বিবাদীগন জোরপূর্বক মন্দিরে অনাধিকার প্রবেশ করিয়া তাহাদের পূর্ব ঘোষিত তারিখ ও সময়ে বেআইনী সমাবেশ করে। সমাবেশের সময় তারা মন্দিরকে পিছনে ফেলে মন্দিরের দরজা খোলা অবস্থায় পূজিত শ্রী শ্রী রাধা গোবিন্দ বিগ্রহের সামনে ব্যানার স্থাপন ও চেয়ার টেবিল পাতিয়া তথায় বসিয়া পূজিত শ্রী শ্রী রাধা গোবিন্দ বিগ্রহকে অসম্মান করে যাহা আমাদের ধর্মীয় অনুভূতিতে চরমভাবে আঘাত হানে পরে বক্তৃতাকালে আমাদেরকে বিভিন্ন হুমকি ধমকি প্রধান করে এবং যাওয়ার সময় অফিসের চাবি ছিনিয়ে নেয়ার চেস্টা করে পরেরদিন আমার বড় ভাই দেবু দাস মহন্তের ইচ্ছার বিরুদ্ধে ২৬/১১/২০১৭ ইং তারিখে ১.৩০মিঃ ঘটিকার সময় তার মাধ্যমে বিবাদীগণ তাদের কমিটি মানিয়া নিয়েছে বলিয়া ফটো সেসনসহ জোর পূর্বক স্বাক্ষর আদায়ের চেস্টা চালায়। আসামীরা দুষ্ট প্রকৃতির হওয়ায় কখন যে কি করিয়া ফেলে তাহা বলা যায় না। উক্ত ঘটনায় ফতুল্লাথানা পুলিশ কে জানালে তাহারা কোন প্রকার সহযোগিতা করে নাই ইতিপূর্বে ও বর্তমানে বিবাদীগণ আমার মন্দিরের পূজা-পার্বন ও সেবাকার্যের বিঘœ ঘটাইয়া আসছে। ইহাতে আমরা চরম শংকিত ও নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে দিনাতিপাত করিতেছি।
অতএব মহোদয় সমীপে বিনীত প্রার্থনা উপরোক্ত বিষয়টি তদন্ত পূর্বক আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করে বর্ণিত বিবাদীগণদের মন্দিরে অনধিকার প্রবেশ বন্ধ করা, মন্দিরের পূজা-পার্বনে বিঘœ দূরীকরনার্থে ও মন্দির ও মন্দিরের সেবায়েতগণদের জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করিতে মহোদয়ের আজ্ঞা হয়।
বিনীত নিবেদক
তারিখ ; ২৬/১১/২০১৭ ইং।
শিবু দাস মোহন্ত
(সেবায়েত, শ্রীশ্রী বাবা পাগলনাথ জিউর ও শ্রীশ্রী রামসীতা মন্দির)
মোবা : ০১৫৫২-৩০৫১৬৫