“মিষ্টি মেয়ে “কবরী চিরবিদায় নিয়েছেন

প্রকাশিত: ১০:১০ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ১৭, ২০২১

“মিষ্টি মেয়ে “কবরী চিরবিদায় নিয়েছেন

কিংবদন্তি অভিনেত্রী “মিষ্টি মেয়ে ” সারাহ বেগম কবরী (৭০) মারা গেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। শুক্রবার রাত ১২টা ২০মিনিটে রাজধানীর শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতালে তিনি শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন।

অভিনেত্রীর মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন হাসপাতালটির পরিচালক অধ্যাপক ডা. ফারুক আহমেদ।

গত ৫ এপ্রিল সারাহ বেগম কবরীর করোনা পজিটিভ রিপোর্ট এলে রাজধানীর কুর্মিটোলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে ৮ এপ্রিল তাঁকে শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) নেওয়া হয়। এরপর বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টায় তাঁকে লাইফ সাপোর্টে নেওয়া হয়েছিল।

সারাহ বেগম কবরী বিংশ শতাব্দীর ষাট ও সত্তরের দশকের বাংলাদেশের অন্যতম জনপ্রিয় চলচ্চিত্রের নায়িকা ছিলেন। ১৯৬৪ সালে সুভাষ দত্তের পরিচালনায় ‘সুতরাং’ সিনেমার মাধ্যমে নায়িকা হিসেবে তাঁর ক্যারিয়ার শুরু। রাজনৈতিক ক্যারিয়ারে কবরী ২০০৮ সালে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ থেকে জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়েছিলেন।

সবর্শেষ কবরী সরকারি অনুদানের ‘এই তুমি সেই তুমি’ সিনেমা পরিচালনা করেছেন।

বাংলা চলচ্চিত্রের বিখ্যাত অভিনেত্রী, নির্মাতা ও সাবেক সাংসদ সারাহ বেগম কবরীর মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এক শোকবার্তায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, এ দেশের চলচ্চিত্রে কবরী এক উজ্জ্বল নক্ষত্র। অভিনয়ের পাশাপাশি রাজনীতি ও সংস্কৃতি অঙ্গনে তাঁর অবদান স্মরণীয় হয়ে থাকবে।

প্রধানমন্ত্রী মরহুমার আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং তাঁর শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।
অন্যদিকে বাংলা চলচ্চিত্রের বিখ্যাত অভিনেত্রী, নির্মাতা ও সাবেক সাংসদ সারাহ বেগম কবরীর (৭০) মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল—বিএনপি। গতকাল শুক্রবার রাতে গণমাধ্যমে পাঠানো এক শোকবার্তায় দুঃখ প্রকাশ করে দলটি।

কবরীর মৃত্যুতে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য গীতিকার, চলচ্চিত্র পরিচালক গাজী মাজহারুল আনোয়ার ও বিএনপির সংস্কৃতিবিষয়ক সম্পাদক আশরাফ উদ্দিন উজ্জ্বল শোক প্রকাশ করে শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

শোকবার্তায় তাঁরা প্রয়াত কবরীর রুহের মাগফিরাত কামনা করেন।