মুক্তিযোদ্ধার পরেই মহৎপ্রাণ আমাদের করোনাযোদ্ধাগণ : পুনাক

প্রকাশিত: ১১:৫৭ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০২১

মুক্তিযোদ্ধার পরেই মহৎপ্রাণ আমাদের করোনাযোদ্ধাগণ : পুনাক

তৌহিদা নূপুর  

“মুক্তিযোদ্ধার পরেই মহৎপ্রাণ আমাদের করোনাযোদ্ধাগণ ।  তাদের আত্নত্যাগ আমাদের জন্য মহৎ কাজে সম্পৃক্ত হবার  প্রেরণার প্রত্যক্ষ  উৎস। ওই ত্যাগের মহিমায় উজ্জীবিত হয়ে আমরা এগিয়ে যাবো মানবতার সেবায়।” বললেন পুনাক সভানেত্রী, জীশান মীর্জা।

গতকাল “করোনায় মৃত ব্যক্তিদের অন্তিম সংস্কারে নিবেদিতপ্রাণ মহৎ হৃদয়বান অগ্রণী যোদ্ধাদের প্রাণঢালা সম্বর্ধনা ও সম্মাননা অনুষ্ঠানে” তিনি প্রধান অতিথির ভাষণ দেন।

করোনায় মৃত ব্যক্তিদের সৎকার করেন এমন ২০ ব্যক্তিকে সম্বর্ধনা দেয় পুনাক। নিজেদের জীবন তুচ্ছ করে মানবতার সেবায় নিবেদিত প্রাণ এই মানুষদেরকে পুনাকই সর্বপ্রথম সম্মাননা প্রদান করলো। সেদিক থেকে পুনাকই হলো তাঁদেরকে স্বীকৃতি ও সম্মাননা  প্রদানকারিদের অগ্রদূত।

“যখন ছেলে মেয়েরা যায়নি, আত্নীয় স্বজন কেউ যায়নি লাশের কাছে, তখন আমরা গেছি। মানবিক কারণে এক আকর্ষণ অনুভব করেছি তাদের পাশে দাঁড়াতে। লাশ দাফন করেছি, সৎকার করেছি। ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে একাজ করেছি; কোন পুরস্কার বা সম্বর্ধনার প্রত্যাশায় নয়। তবে এই সম্বর্ধনা আমাদেরকে আপ্লুত করেছে। “ বলেছেন সম্বর্ধনাপ্রাপ্ত মহৎ প্রাণ মানুষেরা।

অনুষ্ঠানে জীশান মীর্জা আরও বলেন, প্রত্যেক যোদ্ধাই নিজের জীবনের চেয়ে বড় করে দেখেন অন্যের জীবনকে। যারা মহান মুক্তিযুদ্ধ দেখেনি, তাদের জন্য এই যোদ্ধাগণ হলেন সেই ত্যাগের মহিমা-তাড়িত মহৎপ্রাণ। আজকের সম্বর্ধিত মহৎ ব্যক্তিগণ যে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন- তা অনন্য। তাঁরা রাতদিন অক্লান্ত পরিশ্রম করেছেন। নিজের কথা, আপনজনের কথা ভাবেননি। পরকে করেছেন আপন। কর্মরত পুলিশ সদস্যগণও সেই প্রেরণা বুকে ধারণ করেছেন। তবে আমরা আগে বেছে নিয়েছি সাধারণ মানুষদেরকে, যারা সত্যিকার অর্থেই অসাধারণ। এমন মহৎ আয়োজনের অংশ হতে পেরে আমরা সম্মানিত,গর্বিত ।

দাফনে অংশগ্রহনকারি  অকুতোভয় যোদ্ধাগণের হৃদয়স্পর্শী  ঘটনার বর্ণনা শুনে উপস্থিত ব্যক্তিরা চোখের পানি ধরে রাখতে পারেননি।

অনুষ্ঠানে পুনাকের ঊর্ধ্বতন নেতৃবৃন্দসহ অনেকে  উপস্থিত ছিলেন।

ছড়িয়ে দিন