মুহা‌দি‌স ছা‌লিক আহমদের জানাজায় লা‌খো মানুষ

প্রকাশিত: ৪:৩০ অপরাহ্ণ, জুন ২৫, ২০২১

মুহা‌দি‌স ছা‌লিক আহমদের জানাজায় লা‌খো মানুষ

 

আনোয়ার হো‌সেন র‌নি
অশ্রুসিক্ত নয়নে চিরবিদায় জানানো হলো সিলেটে ঐতিহ্যবাহী সৎপুর কামিল মাদরাসার উপাধ্যক্ষ আল্লামা ছালিক আহমদকে (৫৩)।
দ‌ক্ষিন সি‌লে‌টের প্রখ্যাত হাদিস বিশারদ আল্লামা ছা‌লিক আহমদের মৃত্যুতে সর্বমহলে নেমে আসে শোকের ছায়া। এসময় মরহুমের জানাজায় শোকার্ত লক্ষাধিক মানুষের ঢল নামে। এসময় মাদ্রাসা মাঠ, মাদ্রাসা ভবনের ছাদ, রাস্তাসহ পুরো এলাকা মানুষের সমাগমে কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায়। জানাজায় রাজনৈতিক, বিভিন্ন মাদ্রাসার শায়খুল হাদীস, মুফতি, বিভিন্ন মাদ্রাসার হাজারো ছাত্র-শিক্ষক, বিভিন্ন পেশাজীবী, সামাজিক অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার লক্ষাধিক মানুষ অংশ নেন। গত বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৫টায় ভুরকি হাবিবিয়া হাফিজিয়া দাখিল মাদরাসা মাঠে তার জানাযায় নামাজ শেষে তা‌র পা‌রিবা‌রিক কবরস্থা‌নে তা‌কে দাফন করেন। জানাযার নামাজে ইমামতি করেন তার বড় ছেলে মাওলানা হোসাইন মোহাম্মদ মাছরুর।
ইসলামী এ পন্ডিতের মৃত্যুতে গোটা সিলেটের আলেম সমাজে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। তার জানাযায় উপস্থিত অংশ নি‌য়ে‌ছেন সি‌লে‌টের বি‌ভিন্ন জেলা ও উপ‌জেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের অনুসারী, নানা শিক্ষানুরাগী অনুরাগীসহ সমাজের বিভিন্ন শ্রেনী ননা পেশার বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ।

ছালিক আহমদ (র.) ছিলেন ইলমে হাদীসের নিরলস খাদিম, একজন প্রবীণ শিক্ষাবিদ, সৎপুর দারুল হাদীস কামিল মাদরাসার প্রধান মুহাদ্দিস ও উপাধ্যক্ষ এবং লতিফিয়া কারী সোসাইটির সভাপতি ও ফুলতলী ছাহেব কিবলাহ (রহ.) একজন খলিফা। গত এক সপ্তাহ আগেও খতমে বুখারি শরীফের একটি দুআ মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন তিনি। গত বৃহস্প‌তিবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে সিলেট রাগিব রাবেয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় (৫৩) বছর বয়সে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।(ইন্নাহলিল্লাহি……..রাজিউন)। মৃত্যুকালে তিনি ৩ ছেলে, ৩ মেয়ে, স্ত্রী ও দেশ বিদেশে হাজারো ছাত্র এবং অসংখ্য গুনাগ্রাহী রেখে গেছেন।
তার জানাযায় নামাজে উপস্থিত ছিলেন, সিলেট-২ আসনের এমপি মোকাব্বির খান, মুফতি গিয়াস উদ্দিন চৌধুরী, বাংলাদেশ আনজুমানে আল-ইসলাহ’র মুহতারাম সভাপতি হুসামউদ্দিন চৌধুরী, ইকড়ছই আলিম মাদরাসার প্রিন্সিপাল ছমির উদ্দিন, সৎপুর মাদরাসা সাবেক অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান, বিশ্বনাথ কামিল মাদরাসার অধ্যক্ষ নো’মান আহমদ, বুরাইয়া কামিল মাদরাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ সিরাজুল ইসলাম ফারুকি, জগন্নাথপুর
হলিয়ারপাড়া ফাজিল মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা মইনুল ইসলাম পারভেজ, সৈয়দ নজরুল ইসলাম প্রমুখ। এ‌দি‌কে ছাতক প্রেসক্লা‌বের পক্ষ থে‌কে প্রয়াত আল্লামা ছা‌লিক আহমদ অকাল মৃতু‌্যতে শোকাহত প‌রিবারবর্গকে সম‌বেদনা জা‌নি‌য়ে‌ছেন ছাতক প্রেসক্লাব সভাপতি গিয়াস উদ্দিন তালুকদার, সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন রনি, বর্তমান যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম হিরন, সাংগঠনিক সম্পাদক কাজি রেজাউল করিম রেজা, অর্থ সম্পাদক আতিকুর রহমান মাহমুদ, প্রচার সম্পাদক জুনাইদ আহমদ, ক্রিড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক কামরুল ইসলাম সবুজ, সদস্য নাজমুল ইসলাম, মোশাহিদ আলী।
আল্লামা ছা‌লিক আহমদকে সি‌লেট মৌলভীবাজার হ‌বিগঞ্জ সুনামগঞ্জ ও ঢাকায় শেষবারের মতো দেখতে মাদ্রাসায় লা‌খো মানুষের ঢল নেমেছে।
সেখানে সর্বজন শ্রদ্ধেয় এ আলেমকে শেষবারের মতো দেখতে লা‌খো ও মানুষ জড়ো হয়েছে। একনজর দেখার জন্য মাদ্রাসা মাঠে দীর্ঘক্ষন লাইনে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করতে দেখা যায় তাদের।
চোখের পানিতে বিদায় জানাচ্ছেন দেশের গণ্ডি ছাড়িয়ে দ‌ক্ষিন সি‌লেট ও আন্তর্জাতিকভাবে সমাদৃত হওয়া এ আলেমকে। আলেমরা বলছেন, আল্লামা ছা‌লিক শূন্যতা পূরণ হবার নয়। তার মৃত্যুতে একটি শতাব্দীর মৃত্যু হয়েছেন ব‌লে বক্তারা ব‌লে‌ছেন।

দ‌ক্ষিন সি‌লে‌টের মাদ্রাসা শিক্ষার ইতিহাসের অন্যতম এক নাম আল্লামা ছা‌লিক আহমদ ।
বিশ্বের আনাচে-কানাচে আল্লামা ছা‌লিক আহমদ ছাত্র, শিষ্য, মুরিদ, ভক্ত ও অনুসারী রয়েছে। আল্লামা ছা‌লিক ৬ সন্তানের জনক। তিন ছেলে তিন মেয়ে। জীবনের শেষ দিনগুলোতেও আল্লামা ছা‌লিক আহমদ করোনা সংকট, বিশ্ব পরিস্থিতি, ইসরাইল-আরব আমিরাত চুক্তিসহ নানা বিষয় নিয়ে নিয়মিত বিবৃতি ও দিক-নির্দেশনামূলক বক্তব্য দিয়ে দেশ ও জাতি ও সরকারকে সতর্ক করেছেন।

ছড়িয়ে দিন